হঠাৎ রহস্যময় পোস্ট শ্রীলেখার
jugantor
হঠাৎ রহস্যময় পোস্ট শ্রীলেখার

  বিনোদন ডেস্ক  

২০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪৩:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ সরব টালিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র, যা মনে আসে লিখে ফেলেন। তার মরণ হলে কোনো শব্দটি লেখা যাবে না, সে বার্তাও দিলেন সাহস করে।

সম্প্রতি ফেসবুক পোস্টে শ্রীলেখা লিখেছেন— ‘দয়া করে RIP লিখবেন না আমার শোকে।’ কিন্তু হঠাৎ এমন বার্তা কেন?

কলকাতায় তার ভক্ত-সমর্থকরা মনে করছেন, ক্যানসারে আক্রান্ত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলাকে স্মরণ করে তাদের উদ্দেশে এ বার্তা দিয়েছেন শ্রীলেখা। তবে বেশিক্ষণ ফেসবুকে নিজের পোস্টটি রাখেননি শ্রীলেখা। ডিলিট করে দিয়েছেন। কিন্তু তার পোস্টের স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়ে গেছে।

পোস্টে তিনি লিখেছিলেন— অনেক তো বয়স হলো, জীবন কিছু কম দেখলাম না। মা-বাবা নেই, মেয়েটাও বড় বেশি স্বাধীনচেতা। একদিক ভালো আমাদের মতো বুড়ো বয়স অবধি মা-বাবার লেজ ধরা না। কিছু কাজ বাকি সেগুলো তাড়াতাড়ি করে যেতে চাই। নিজের জীবন তো কাটিয়ে ফেলেছি। কোনো খেদ নেই, কোনো অভিযোগ নেই। মৃত্যুকে ভয় করি না; বরং ওটাকে একটা অ্যাডভেঞ্চার মনে হয়। শুধু অনেক লিপস্টিক আছে, ওগুলো কাউকে প্রাণে ধরে দিতে পারব বলে মনে হয় না।

আমার যে চারপেয়ে বাচ্চাগুলো আছে, সেগুলো মেয়ে দেখে নিতে পারবে। সওদা করতে চাই ওপরওয়ালার সঙ্গে। যাদের অনেকটা পথ চলা বাকি তাদের রাখো সুস্থ করে পরিবর্তে যদি ইচ্ছে হয়। আমি প্রস্তুত, আর আপনাদের বলছি দয়া করে RIP লিখবেন না আমার শোকে। আমি আনন্দে যাব। শান্তিতে বিশ্রাম নেব। অযথা চিন্তিত হবেন না। তার চেয়ে অনলাইন ডেটিং বা শপিং করুন।

হঠাৎ রহস্যময় পোস্ট শ্রীলেখার

 বিনোদন ডেস্ক 
২০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৪৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে বেশ সরব টালিউড অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র, যা মনে আসে লিখে ফেলেন। তার মরণ হলে কোনো শব্দটি লেখা যাবে না, সে বার্তাও দিলেন সাহস করে। 

সম্প্রতি ফেসবুক পোস্টে শ্রীলেখা লিখেছেন— ‘দয়া করে RIP লিখবেন না আমার শোকে।’ কিন্তু হঠাৎ এমন বার্তা কেন?

কলকাতায় তার ভক্ত-সমর্থকরা মনে করছেন, ক্যানসারে আক্রান্ত অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলাকে স্মরণ করে তাদের উদ্দেশে এ বার্তা দিয়েছেন শ্রীলেখা। তবে বেশিক্ষণ ফেসবুকে নিজের পোস্টটি রাখেননি শ্রীলেখা। ডিলিট করে দিয়েছেন। কিন্তু তার পোস্টের স্ক্রিনশট ভাইরাল হয়ে গেছে।

পোস্টে তিনি লিখেছিলেন— অনেক তো বয়স হলো, জীবন কিছু কম দেখলাম না। মা-বাবা নেই, মেয়েটাও বড় বেশি স্বাধীনচেতা। একদিক ভালো আমাদের মতো বুড়ো বয়স অবধি মা-বাবার লেজ ধরা না। কিছু কাজ বাকি সেগুলো তাড়াতাড়ি করে যেতে চাই। নিজের জীবন তো কাটিয়ে ফেলেছি। কোনো খেদ নেই, কোনো অভিযোগ নেই। মৃত্যুকে ভয় করি না; বরং ওটাকে একটা অ্যাডভেঞ্চার মনে হয়। শুধু অনেক লিপস্টিক আছে, ওগুলো কাউকে প্রাণে ধরে দিতে পারব বলে মনে হয় না।

আমার যে চারপেয়ে বাচ্চাগুলো আছে, সেগুলো মেয়ে দেখে নিতে পারবে। সওদা করতে চাই ওপরওয়ালার সঙ্গে। যাদের অনেকটা পথ চলা বাকি তাদের রাখো সুস্থ করে পরিবর্তে যদি ইচ্ছে হয়। আমি প্রস্তুত, আর আপনাদের বলছি দয়া করে RIP লিখবেন না আমার শোকে। আমি আনন্দে যাব। শান্তিতে বিশ্রাম নেব। অযথা চিন্তিত হবেন না। তার চেয়ে অনলাইন ডেটিং বা শপিং করুন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন