১০ বার হার্টঅ্যাটাকের পর না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা
jugantor
১০ বার হার্টঅ্যাটাকের পর না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা

  বিনোদন ডেস্ক  

২০ নভেম্বর ২০২২, ১৫:০৮:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ লড়াই শেষে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। রোববার দুপুর ১২টা ৫৯ মিনিটে তার মৃত্যু হয়। এর আগে তিনি ১০ বারহার্টঅ্যাটাক করেন।১ নভেম্বরে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং হাওড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ঐন্দ্রিলার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। তিনি কোমায় চলে যান। তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়; কিন্তু আর জ্ঞান ফেরেনি তার। হাসপাতালে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর।

রোববার সকালে অভিনেত্রীর বেশ কয়েকবার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়। এর পর থেকে পরিস্থিতি জটিল হতে থাকে। এ সময় তার বাবা-মা ও পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্য হাসপাতালে ছিলেন।

রোববার সকালে ঐন্দ্রিলার মা জানান, মেয়েটা মোটেও ভালো নেই। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর, ঐন্দ্রিলার লড়াই যত দিন যাচ্ছে, ততই কঠিন হয়ে উঠেছে।

গত ১৪ নভেম্বর থেকে ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। হৃদযন্ত্র বারবার থেমে যাচ্ছিল। শনিবার রাত থেকে তার হৃদযন্ত্রে সমস্যা শুরু হয় বলে জানায় হাসপাতাল সূত্র। এ ধাক্কা সামলাতে পারেননি ঐন্দ্রিলা।

অতীতে দুবার ক্যানসার ধরা পড়ার পরও ঐন্দ্রিলা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে আসেন। ২০১৫ সালে একাদশ শ্রেণিতে পড়ার সময় তিনি প্রথমবারের মতো ক্যানসারে আক্রান্ত হন। ক্যানসার তার অস্থিমজ্জায় আক্রমণ করেছিল।

২০২১ সালে ফুসফুসে টিউমার হয় তার। ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ের পাশাপাশি তার অভিনয়ের কাজ অব্যাহত রেখেছিলেন তিনি।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

১০ বার হার্টঅ্যাটাকের পর না ফেরার দেশে ঐন্দ্রিলা

 বিনোদন ডেস্ক 
২০ নভেম্বর ২০২২, ০৩:০৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দীর্ঘ লড়াই শেষে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা। রোববার দুপুর ১২টা ৫৯ মিনিটে তার মৃত্যু হয়। এর আগে তিনি ১০ বার হার্টঅ্যাটাক করেন। ১ নভেম্বরে তিনি গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন এবং হাওড়ার একটি বেসরকারি হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, ঐন্দ্রিলার মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হয়েছে। তিনি কোমায় চলে যান। তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়; কিন্তু আর জ্ঞান ফেরেনি তার। হাসপাতালে মৃত্যু হয় অভিনেত্রীর।

রোববার সকালে অভিনেত্রীর বেশ কয়েকবার কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়। এর পর থেকে পরিস্থিতি জটিল হতে থাকে। এ সময় তার বাবা-মা ও পরিবারের আরও কয়েকজন সদস্য হাসপাতালে ছিলেন। 

রোববার সকালে ঐন্দ্রিলার মা জানান, মেয়েটা মোটেও ভালো নেই। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর, ঐন্দ্রিলার লড়াই যত দিন যাচ্ছে, ততই কঠিন হয়ে উঠেছে।

গত ১৪ নভেম্বর থেকে ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। হৃদযন্ত্র বারবার থেমে যাচ্ছিল। শনিবার রাত থেকে তার হৃদযন্ত্রে সমস্যা শুরু হয় বলে জানায় হাসপাতাল সূত্র। এ ধাক্কা সামলাতে পারেননি ঐন্দ্রিলা।

অতীতে দুবার ক্যানসার ধরা পড়ার পরও ঐন্দ্রিলা সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে আসেন। ২০১৫ সালে একাদশ শ্রেণিতে পড়ার সময় তিনি প্রথমবারের মতো ক্যানসারে আক্রান্ত হন। ক্যানসার তার অস্থিমজ্জায় আক্রমণ করেছিল।

২০২১ সালে ফুসফুসে টিউমার হয় তার। ক্যানসারের সঙ্গে লড়াইয়ের পাশাপাশি তার অভিনয়ের কাজ অব্যাহত রেখেছিলেন তিনি।

সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন