লিসবনে অভিবাসীদের নিয়ে মাল্টিকালচারাল আর্ট ফেস্টিভ্যাল

  নাঈম হাসান, পর্তুগাল থেকে ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০৯ | অনলাইন সংস্করণ

আর্ট ফেস্টিভ্যাল

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনে ২১ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে মাল্টিকালচারাল আর্ট ফেস্টিভ্যাল। চিত্র প্রদর্শনী ছাড়াও ফেস্টিভ্যালে উন্মোচিত হবে ম্যাগাজিন স্কুতা।

ফেস্টিভ্যালটি অনুষ্ঠিত হবে লিসবনের ঐতিহ্যবাহী ক্যাম্পো মার্টিরেস দ্য পাট্রিয়া পার্কে। সেই পার্কেই রয়েছে লিসবনে স্থাপিত বাংলাদেশের স্থায়ী শহীদ মিনার। এছাড়াও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের স্মরণীয় ব্যক্তি ও বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা।

বিগত বছর স্কুতা ছিলো একটি কমিউনিটি রেডিও। তার ধারাবাহিকতায় এবার স্কুতা ম্যাগাজিন ও চিত্র প্রদর্শনী হবে। স্কুতা পর্তুগালের বসবাসরত বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় পরিচালিত রেডিও। স্কুতায় সম্প্রচারিত বিভিন্ন প্রতিবেদন ও অনুষ্ঠানের পিছনের গল্প ম্যাগাজিন ও স্কুতা গ্যালারিতে তুলে ধরা হবে।

এছাড়াও ম্যাগাজিনে লিসবনের বিভিন্ন বিখ্যাত ফেস্টিভ্যালের আয়োজক অ্যাসোসিয়েশন লারগো রেসিডেন্সিয়াস ও গাবীব আলমিরান্তে রেইস অ্যাসোসিয়েশনের করা বিভিন্ন ফেস্টিভ্যাল ও অভিবাসীদের নিয়ে করা নানা কর্মকান্ড তুলে ধরা হবে। রেডিও স্কুতা মূলত অভিবাসীদের নিয়ে এই অ্যাসোসিয়েশনগুলোর বিভিন্ন কর্মকান্ড ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়ার একটি মাধ্যম।

চিত্র প্রদর্শনী, ম্যাগাজিন ছাড়াও আয়োজনে রয়েছে বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের খাবার প্রদর্শন, সিনেমা, ওয়ার্কশপ, গানের কনসার্ট। এছাড়াও শিল্পী ও উদ্যোক্তারা ফেস্টিভ্যালে তাদের চিত্রকর্ম ও পণ্য প্রদর্শন করতে পারবে।

বাংলাদেশ-পর্তুগাল সম্পর্ক ও পর্তুগিজদের বাংলাদেশ গমণের ঐতিহাসিক একটি প্রমাণ্যচিত্র প্রদর্শিত হবে ফেস্টিভ্যালে। ২৭ অক্টোবর সমাপনী দিন শুক্রবার বেলা চারটায়।

ফেস্টিভ্যালের আয়োজক ও লারগো রেসিডেন্সিয়াসের পরিচালক মার্তা সিলভা ফেস্টিভ্যালে বাংলাদেশ কমিউনিটিসহ লিসবনে বসবাসরত সকল অভিবাসী কমিউনিটিকে অংশগ্রহণের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন।

লিসবনে বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকা মার্তৃম-মনিজ ও আশপাশের এলাকাগুলোতে এই অ্যাসোসিয়েশনগুলো অভিবাসীদের ইন্টিগ্রেশন ও জীবনমান উন্নয়নে কাজ করে। বাংলাদেশি অধ্যুষিত এলাকার কাছে হওয়ায় মাল্টিকালচারাল ফেস্টিভ্যালগুলোতে প্রবাসী বাংলাদেশিরা স্বতস্ফূর্ত অংশগ্রহণ করে থাকেন।

রেডিও স্কুটা ওয়েব সাইটে রেডিওতে সম্প্রচারিত সব প্রতিবেদন, সাক্ষাতকার রয়েছে স্থানীয় বিভিন্ন মানুষের কথা, গল্প রেডিও স্কুতায় শোনা যাবে। একসঙ্গে রেডিও শুনতে ও আর্ট গ্যালারি দেখতে ভিজিট করতে হবে www.escuta.pt

বাংলাদেশিসহ বিভিন্ন দেশের অভিবাসীদের পাবলিক হেলথ সম্পর্কে সহজ ধারণা দিতে পর্তুগালের পাবলিক হেলথ সংক্রান্ত সাধারণ তথ্যাবলী অভিবাসীদের ভিন্ন ভিন্ন ভাষায় পাবলিক হেলথের তথ্যসম্বলিত বই তৈরি করেছে এ অ্যাসোসিয়েশনগুলো। ফেস্টিভ্যাল চলাকালীন সেগুলো পাওয়া যাবে।

এর আগে একই অ্যাসোসিয়েশনের আয়োজনে পর্তুগালে মাল্টিকালচারাল ফেস্টিভাল 'নেক্সট স্টপ'-এ অংশ নেন দুই বাংলাদেশি শিল্পী। তারা ছাড়াও বিশ্বের ১৫ দেশের প্রায় ৬০ জন অভিবাসী শিল্পী সেই ফেস্টিভালে অংশগ্রহণ করেছিলো। বাংলাদেশি দুইজন শিল্পীর মধ্যে চিত্রকর্মে শারমিন মৌ এবং গানে কে এম মোস্তফা আনোয়ার অংশগ্রহণ করেছিলেন।

পুরনো সব স্থাপত্য এবং পৃথিবীর প্রায় ৭৯ দেশের ভিন্ন ভিন্ন মানুষদের বসবাস লিসবনের অ্যারিওস জইন্তা। এই এলাকায় বসবাসরত স্থানীয় পর্তুগিজ কমিউনিটি, ভিন্ন ভিন্ন দেশের মানুষ আর ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির অভিবাসীরা মিলে এই এলাকা মাল্টিকালচারাল মানুষদের এলাকা হিসেবে পরিচিত।

লিসবনের এই জোনটি সবচেয়ে বেশি মাল্টিকালচারাল। সবসময়ই এই বিশেষ একটি এলাকায় উৎসবের আমেজ লক্ষ্য করা যায়। যেখানে স্থানীয় পর্তুগিজদের সঙ্গে সমানতালে অভিবাসী সম্প্রদায়ও সংযুক্ত থাকেন।

লারগো রেসিডেন্সিয়াসের তত্ত্ববধানে গাবীব আলমিরান্তে রেইস নামের স্থানীয় অ্যাসোসিয়েশন আয়োজন ও উদ্যোগুলোতে স্থানীয় মানুষদের সঙ্গে যোগ দেয় লিসবনে বসবাসরত বাংলাদেশসহ অভিবাসী বিভিন্ন দেশের মানুষেরাও।

লারগো রেসিডেন্সিয়াসের তত্বাবধানে গাবীব আলমিরান্তে রেইস, রিপাবলিক পর্তুগিজ, লিসবন মিউনিসিপালিটি, জুইন্তা ফ্রেগ্রেজিয়া অ্যারিওস. আগা খান ফাউন্ডেশন, র্ক্রেসার এবারের ফেস্টিভ্যালটির আয়োজন সহযোগী।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×