দুবাইয়ে বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালিত
jugantor
দুবাইয়ে বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালিত

  ওবায়দুল হক মানিক, আমিরাত থেকে  

১০ আগস্ট ২০২০, ২১:১২:৪১  |  অনলাইন সংস্করণ

আরব আমিরাতের দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে তথ্যচিত্র প্রদর্শন, জীবন ও কর্মের ওপর প্রাণবন্ত আলোচনা, পুস্পস্তবক অর্পণ, স্মারক চিত্র প্রদর্শন ও বিশেষ দোয়া মাহফিলের মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেসা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী।

শনিবার কনস্যুলেটের হলরুমে কাউন্সিলর ও দূতালয় প্রধান প্রবাস লামারংর পরিচালনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন খান। প্রধান অতিথি ছিলেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর।

জাতির পিতার পরিবারের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর রাষ্টপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণী পাঠ করেন কনস্যুলেটের কর্মকতারা।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা সংগ্রামের প্রতিটা ধাপে বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী হিসাবে নয়, একজন নীরব দক্ষ সংগঠক হিসাবে যিনি নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে বাঙালির মুক্তির সংগ্রামে ভূমিকা রেখেছেন এবং বঙ্গবন্ধুকে হিমালয়ের সম আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন তিনি বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেসা মুজিব।

সভাপতির বক্তব্যে কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন খান বলেন, বাঙালি জাতির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর যোগ্য ও বিশ্বস্ত সহচর এবং নারী মুক্তি সংগ্রামে অন্যতম এক নেপথ্য কারিগর।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ডেপুটি কনসাল শহিদুল ইসলাম, লেভার কনসাল ফাতেমা জাহান, মাহাতাবুর রহমান নাসির সিআইপি, প্রকৌশলী আবু জাফর চৌধুরী, এম এ বাসার, আইয়ুব আলী বাবুল, অধ্যাপক আবদুস সবুর, কাউছার নাজ, ইসমাইল গণি চৌধুরী, কাজী মোহাম্মদ আলী, সিরাজুল হক প্রমুখ।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

দুবাইয়ে বঙ্গমাতার ৯০তম জন্মবার্ষিকী পালিত

 ওবায়দুল হক মানিক, আমিরাত থেকে 
১০ আগস্ট ২০২০, ০৯:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আরব আমিরাতের দুবাইয়ে বাংলাদেশ কনস্যুলেটে তথ্যচিত্র প্রদর্শন, জীবন ও কর্মের ওপর প্রাণবন্ত আলোচনা, পুস্পস্তবক অর্পণ, স্মারক চিত্র প্রদর্শন ও বিশেষ দোয়া মাহফিলের মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেসা মুজিবের ৯০তম জন্মবার্ষিকী।

শনিবার কনস্যুলেটের হলরুমে কাউন্সিলর ও দূতালয় প্রধান প্রবাস লামারংর পরিচালনায় আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন খান। প্রধান অতিথি ছিলেন আমিরাতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ আবু জাফর।

জাতির পিতার পরিবারের প্রতিকৃতিতে পুস্পস্তবক অর্পণের মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠান শুরু হয়। এরপর রাষ্টপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাণী পাঠ করেন কনস্যুলেটের কর্মকতারা।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রাষ্ট্রদূত বলেন, বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা সংগ্রামের প্রতিটা ধাপে বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী হিসাবে নয়, একজন নীরব দক্ষ সংগঠক হিসাবে যিনি নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে বাঙালির মুক্তির সংগ্রামে ভূমিকা রেখেছেন এবং বঙ্গবন্ধুকে হিমালয়ের সম আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন তিনি বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেসা মুজিব।

সভাপতির বক্তব্যে কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন খান বলেন, বাঙালি জাতির অধিকার আদায়ের সংগ্রামে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর যোগ্য ও বিশ্বস্ত সহচর এবং নারী মুক্তি সংগ্রামে অন্যতম এক নেপথ্য কারিগর।

আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন ডেপুটি  কনসাল শহিদুল ইসলাম, লেভার কনসাল ফাতেমা জাহান, মাহাতাবুর রহমান নাসির সিআইপি, প্রকৌশলী আবু জাফর চৌধুরী, এম এ বাসার, আইয়ুব আলী বাবুল, অধ্যাপক আবদুস সবুর, কাউছার নাজ, ইসমাইল গণি চৌধুরী, কাজী মোহাম্মদ আলী, সিরাজুল হক প্রমুখ।
 

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন [email protected] এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]