মালদ্বীপে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন
jugantor
মালদ্বীপে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন

  মোহাম্মদ মাহামুদুল, মালদ্বীপ থেকে  

০৬ আগস্ট ২০২২, ০০:৫৬:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের
জ্যেষ্ঠপুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী
শুক্রবার মালদ্বীপে বাংলাদেশ হাইকমিশনার অফিসে পালিত হয়। এ উপলক্ষ্যে
আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হাইকমিশনার রিয়ার অ্যাডমিরাল এসএম আবুল কালাম
আজাদ। আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন দূতাবাসের প্রথম
সচিব সোহেল পারভেজ ও দ্বিতীয় সচিব মিজানুর রহমান ভূঁইয়া।

প্রধান অতিথি বলেন, শেখ কামাল ছিলেন সেই সময়ের শ্রেষ্ঠ যুবক। বহুমুখী প্রতিভার
অধিকারী শেখ কামাল ক্রীড়া, সংস্কৃতির সব ক্ষেত্রেই অবদান রেখেছেন। নিজেও
ক্রিকেট খেলতেন, সেতার বাজাতেন। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনকে আন্তর্জাতিক
পর্যায়ে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন শেখ কামাল।

বক্তব্য শেষে শেখ কামালকে নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। পরে
মোনাজাতে শহিদ শেখ কামালসহ ১৫ আগস্ট শহিদ সবার আত্মার মাগফিরাত কামনা
করা হয়।

অনুষ্ঠানে হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ মালদ্বীপ আওয়ামী লীগের নেতা,
চিকিৎসক, শিক্ষক, মালদ্বীপে বসবাসরত বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, স্থানীয়
সাংবাদিক, সামাজিক সংগঠনের নেতাসহ অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি উপস্থিত ছিলেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]

মালদ্বীপে শেখ কামালের জন্মবার্ষিকী পালন

 মোহাম্মদ মাহামুদুল, মালদ্বীপ থেকে 
০৬ আগস্ট ২০২২, ১২:৫৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের
জ্যেষ্ঠপুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭৩তম জন্মবার্ষিকী
শুক্রবার মালদ্বীপে বাংলাদেশ হাইকমিশনার অফিসে পালিত হয়। এ উপলক্ষ্যে
আলোচনা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন হাইকমিশনার রিয়ার অ্যাডমিরাল এসএম আবুল কালাম
আজাদ। আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন দূতাবাসের প্রথম
সচিব সোহেল পারভেজ ও দ্বিতীয় সচিব মিজানুর রহমান ভূঁইয়া।

প্রধান অতিথি বলেন, শেখ কামাল ছিলেন সেই সময়ের শ্রেষ্ঠ যুবক। বহুমুখী প্রতিভার
অধিকারী শেখ কামাল ক্রীড়া, সংস্কৃতির সব ক্ষেত্রেই অবদান রেখেছেন। নিজেও
ক্রিকেট খেলতেন, সেতার বাজাতেন। বাংলাদেশের ক্রীড়াঙ্গনকে আন্তর্জাতিক
পর্যায়ে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন শেখ কামাল।

বক্তব্য শেষে শেখ কামালকে নিয়ে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। পরে
মোনাজাতে শহিদ শেখ কামালসহ ১৫ আগস্ট শহিদ সবার আত্মার মাগফিরাত কামনা
করা হয়।

অনুষ্ঠানে হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ মালদ্বীপ আওয়ামী লীগের নেতা,
চিকিৎসক, শিক্ষক, মালদ্বীপে বসবাসরত বাংলাদেশি ব্যবসায়ী প্রতিনিধি, স্থানীয়
সাংবাদিক, সামাজিক সংগঠনের নেতাসহ অনেক প্রবাসী বাংলাদেশি উপস্থিত ছিলেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন