বলিউডের কড়া সমালোচনায় ইমরান খান (ভিডিও)
jugantor
বলিউডের কড়া সমালোচনায় ইমরান খান (ভিডিও)

  অনলাইন ডেস্ক  

২২ জানুয়ারি ২০২০, ১০:২৩:২৫  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউডের কড়া সমলোচনা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তিনি বলেন, বলিউডের কারণেই পাকিস্তানে যৌন অপরাধ বাড়ছে।

গত সোমবার পাকিস্তানের ইসলামাবাদে ডিজিটাল মিডিয়ার বিশিষ্ট লোকদের সঙ্গে এক আলোচনাসভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

ইমরান বলেন, মোবাইলের ব্যাপক ব্যবহারের ফলে দেশের ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের হাত এমন সব বিষয়বস্তু চলে আসছে, যা আগে ভাবাই যেত না। স্কুলে ড্রাগের প্রচলন বাড়ছে দ্রুত। দ্বিতীয়ত দেশের যৌন অপরাধ লাফিয়ে বাড়ছে। বাড়ছে শিশু পর্নোগ্রাফির প্রচলন।

তিনি আরও বলেন, আমরা যেসব বিনোদনমূলক জিনিস দেখি তা প্রথমে তৈরি হয় হলিউডে। সেখান থেকে তা আসে বলিউডে। তার পর আসে পাকিস্তানে। এমন কিছু জিনিস পশ্চিমা দুনিয়ার সংস্কৃতি আসছে যা আমরা বুঝি না।

‘বলিউডের সবচেয়ে খারাপ জিনিসটা আমরা নিচ্ছি। এতে আমাদের সামাজিক সমস্যা তৈরি হচ্ছে। পারিবারিক বন্ধন নষ্ট হচ্ছে। এর প্রভাব ভারতে পড়ছে। আমাদের এখানেও দেখতে পাবেন। বলিউডে যেসব ড্রামা তৈরি হয় তার সঙ্গে আমাদের সংস্কৃতির যোগ নেই। এর জন্য অল্টারনেটিভ তৈরি করতে হবে।' সূত্র: এপিবি আনন্দ।

বলিউডের কড়া সমালোচনায় ইমরান খান (ভিডিও)

 অনলাইন ডেস্ক 
২২ জানুয়ারি ২০২০, ১০:২৩ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

বলিউডের কড়া সমলোচনা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

তিনি বলেন, বলিউডের কারণেই পাকিস্তানে যৌন অপরাধ বাড়ছে।

গত সোমবার পাকিস্তানের ইসলামাবাদে ডিজিটাল মিডিয়ার বিশিষ্ট লোকদের সঙ্গে এক আলোচনাসভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

ইমরান বলেন, মোবাইলের ব্যাপক ব্যবহারের ফলে দেশের ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের হাত এমন সব বিষয়বস্তু চলে আসছে, যা আগে ভাবাই যেত না। স্কুলে ড্রাগের প্রচলন বাড়ছে দ্রুত। দ্বিতীয়ত দেশের যৌন অপরাধ লাফিয়ে বাড়ছে। বাড়ছে শিশু পর্নোগ্রাফির প্রচলন।

তিনি আরও বলেন, আমরা যেসব বিনোদনমূলক জিনিস দেখি তা প্রথমে তৈরি হয় হলিউডে। সেখান থেকে তা আসে বলিউডে। তার পর আসে পাকিস্তানে। এমন কিছু জিনিস পশ্চিমা দুনিয়ার সংস্কৃতি আসছে যা আমরা বুঝি না।

‘বলিউডের সবচেয়ে খারাপ জিনিসটা আমরা নিচ্ছি। এতে আমাদের সামাজিক সমস্যা তৈরি হচ্ছে। পারিবারিক বন্ধন নষ্ট হচ্ছে। এর প্রভাব ভারতে পড়ছে। আমাদের এখানেও দেখতে পাবেন। বলিউডে যেসব ড্রামা তৈরি হয় তার সঙ্গে আমাদের সংস্কৃতির যোগ নেই। এর জন্য অল্টারনেটিভ তৈরি করতে হবে।' সূত্র: এপিবি আনন্দ।