ভারতকে শান্ত করতে নতুন উদ্যোগ মালয়েশিয়ার
jugantor
ভারতকে শান্ত করতে নতুন উদ্যোগ মালয়েশিয়ার

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৩ জানুয়ারি ২০২০, ১৫:১৯:০৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতকে শান্ত করতে নতুন উদ্যোগ মালয়েশিয়ার
ছবি: সংগৃহীত

ভারত থেকে পণ্য ক্রয় বাড়িয়ে দেয়ার কথা জানিয়েছে মালয়েশিয়ার শীর্ষ চিনি পরিশোধনাগার। পাম অয়েল রফতানি নিয়ে চলমান দ্বন্দ্বের মধ্যে নয়াদিল্লিকে শান্ত রাখতে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

দুটি সূত্রে বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

প্রথম ধাপে ২০ কোটি রিংগিত মূলের এক লাখ ৩০ হাজার টনের অপরিশোধিত চিনি ভারতে থেকে ক্রয় করবে এমএসএম মালয়েশিয়া হোল্ডিংস বেরহাদ। গত বছর ভারত থেকে তারা ৮৮ হাজার অপরিশোধিত চিনি ক্রয় করেছিল।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় পাম অয়েল রফতানিকারক দেশটির চিনি শোধনাগার হচ্ছে এমএসএম। মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ফেডারেল ল্যান্ড ডেভলপমেন্ট অথরিটির একটি ইউনিট এটি।

তবে এই চিনি ক্রয়ের পেছনে পাম অয়েল সংকট রয়েছে কিনা, তা জানাতে অস্বীকার করেছে কোম্পানিটি। কিন্তু সূত্র বলছে, ভারতকে শান্ত রাখতেই তারা এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনতে আহ্বান জানিয়ে আসছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভোজ্য তেল ক্রেতা ভারত।

কাশ্মীর ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ সরব হওয়ার পর থেকেই দেশটি থেকে পাম অয়েল ক্রয় বন্ধ করে দিয়েছিল নরেন্দ্র মোদি সরকার।

পাম অয়েল বিক্রিতে নতুন বাজার খোঁজার কথা জানিয়েছিল মালয়েশিয়া। কিন্তু গত পাঁচ বছরে এই তেলের সবচেয়ে বড় ক্রেতা ভারত হওয়ায় মালয়েশিয়ার পক্ষে তা সহজ হবে না।

ভারতকে শান্ত করতে নতুন উদ্যোগ মালয়েশিয়ার

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৩ জানুয়ারি ২০২০, ০৩:১৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভারতকে শান্ত করতে নতুন উদ্যোগ মালয়েশিয়ার
ছবি: সংগৃহীত

ভারত থেকে পণ্য ক্রয় বাড়িয়ে দেয়ার কথা জানিয়েছে মালয়েশিয়ার শীর্ষ চিনি পরিশোধনাগার। পাম অয়েল রফতানি নিয়ে চলমান দ্বন্দ্বের মধ্যে নয়াদিল্লিকে শান্ত রাখতে এমন উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

দুটি সূত্রে বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

প্রথম ধাপে ২০ কোটি রিংগিত মূলের এক লাখ ৩০ হাজার টনের অপরিশোধিত চিনি ভারতে থেকে ক্রয় করবে এমএসএম মালয়েশিয়া হোল্ডিংস বেরহাদ। গত বছর ভারত থেকে তারা ৮৮ হাজার অপরিশোধিত চিনি ক্রয় করেছিল।

বিশ্বের সবচেয়ে বড় পাম অয়েল রফতানিকারক দেশটির চিনি শোধনাগার হচ্ছে এমএসএম। মালয়েশিয়ার রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন ফেডারেল ল্যান্ড ডেভলপমেন্ট অথরিটির একটি ইউনিট এটি।

তবে এই চিনি ক্রয়ের পেছনে পাম অয়েল সংকট রয়েছে কিনা, তা জানাতে অস্বীকার করেছে কোম্পানিটি। কিন্তু সূত্র বলছে, ভারতকে শান্ত রাখতেই তারা এমন উদ্যোগ নিয়েছে।

দুই দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনতে আহ্বান জানিয়ে আসছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভোজ্য তেল ক্রেতা ভারত।

কাশ্মীর ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ সরব হওয়ার পর থেকেই দেশটি থেকে পাম অয়েল ক্রয় বন্ধ করে দিয়েছিল নরেন্দ্র মোদি সরকার।

পাম অয়েল বিক্রিতে নতুন বাজার খোঁজার কথা জানিয়েছিল মালয়েশিয়া। কিন্তু গত পাঁচ বছরে এই তেলের সবচেয়ে বড় ক্রেতা ভারত হওয়ায় মালয়েশিয়ার পক্ষে তা সহজ হবে না।