যে কারণে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প
jugantor
যে কারণে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প

  অনলাইন ডেস্ক  

২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১:৩৮:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ডোনাল্ড ট্রাম্প
উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

অভিশংসন নিয়ে ট্রাম্পের পক্ষে কথা বললে উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেয়া হতো বলে দাবি করেছেন আইনজীবী অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড।

তিনি বলেন, অ্যাসাঞ্জকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমা করতে চেয়েছিলেন।

তবে শর্ত রেখেছিলেন, অ্যাসাঞ্জকে ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনের সময় ই-মেইল ফাঁসের সঙ্গে রাশিয়া সম্পৃক্ত ছিল না- মর্মে স্বীকারোক্তি দিতে হবে।

স্থানীয় সময় বুধবার ওয়েস্ট মিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের শুনানি চলাকালে তার আইনজীবী অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড এসব দাবি করেন।  খবর বিবিসির

এদিন ভিডিও লিংকের মাধ্যমে দক্ষিণ-পূর্ব লন্ডনের বেলমার্শ কারাগার থেকে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাসাঞ্জ।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে প্রকাশ, শুনানিতে অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড বলেছেন, ট্রাম্পের পক্ষ হয়ে অ্যাসাঞ্জকে এ প্রস্তাব দিয়েছিলেন সাবেক রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান ডানা রোহরাবাচার। এ বিষয়ে আমার কাছে সাক্ষী রয়েছে।

এদিকে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের আইনজীবীর এ দাবিকে অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউস দাবিটিকে সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বলে অভিহিত করেছে।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে উইকিলিকস নামের ওয়েবসাইটটি চালু করেন অ্যাসাঞ্জ। এই সাইটে তিনি একের পর এক গোপন মার্কিন নথিপত্র প্রকাশ করতে থাকেন।

২০১০ সালের জুলাইয়ে উইকিলিকস আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযানের প্রায় ৭০ হাজার শ্রেণিবদ্ধ নথি প্রকাশ করেছিল। এসব তথ্য পরে বিশ্ব গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

এ কারণে বিব্রত যুক্তরাষ্ট্র তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়। এর পর থেকে গ্রেফতার এড়াতে সাত বছর ধরে ব্রিটেনের ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ।

গত বছরের ১১ এপ্রিল লন্ডন পুলিশ উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে লন্ডনে তার বিচার চলছে।

 

যে কারণে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প

 অনলাইন ডেস্ক 
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১১:৩৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ডোনাল্ড ট্রাম্প
উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ ও ডোনাল্ড ট্রাম্প

অভিশংসন নিয়ে ট্রাম্পের পক্ষে কথা বললে উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে ক্ষমা করে দেয়া হতো বলে দাবি করেছেন আইনজীবী অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড।

তিনি বলেন, অ্যাসাঞ্জকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমা করতে চেয়েছিলেন।

তবে শর্ত রেখেছিলেন, অ্যাসাঞ্জকে ২০১৬ সালের মার্কিন নির্বাচনের সময় ই-মেইল ফাঁসের সঙ্গে রাশিয়া সম্পৃক্ত ছিল না- মর্মে স্বীকারোক্তি দিতে হবে।

স্থানীয় সময় বুধবার ওয়েস্ট মিনিস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের শুনানি চলাকালে তার আইনজীবী অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড এসব দাবি করেন। খবর বিবিসির

এদিন ভিডিও লিংকের মাধ্যমে দক্ষিণ-পূর্ব লন্ডনের বেলমার্শ কারাগার থেকে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাসাঞ্জ।

বিবিসির এক প্রতিবেদনে প্রকাশ, শুনানিতে অ্যাডওয়ার্ড ফিতজেরার্ল্ড বলেছেন, ট্রাম্পের পক্ষ হয়ে অ্যাসাঞ্জকে এ প্রস্তাব দিয়েছিলেন সাবেক রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান ডানা রোহরাবাচার। এ বিষয়ে আমার কাছে সাক্ষী রয়েছে।

এদিকে জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের আইনজীবীর এ দাবিকে অস্বীকার করেছে হোয়াইট হাউস। হোয়াইট হাউস দাবিটিকে সম্পূর্ণ বানোয়াট ও ভিত্তিহীন বলে অভিহিত করেছে।

উল্লেখ্য, ২০০৬ সালে উইকিলিকস নামের ওয়েবসাইটটি চালু করেন অ্যাসাঞ্জ। এই সাইটে তিনি একের পর এক গোপন মার্কিন নথিপত্র প্রকাশ করতে থাকেন।

২০১০ সালের জুলাইয়ে উইকিলিকস আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযানের প্রায় ৭০ হাজার শ্রেণিবদ্ধ নথি প্রকাশ করেছিল। এসব তথ্য পরে বিশ্ব গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়।

এ কারণে বিব্রত যুক্তরাষ্ট্র তার ওপর ক্ষুব্ধ হয়। এর পর থেকে গ্রেফতার এড়াতে সাত বছর ধরে ব্রিটেনের ইকুয়েডর দূতাবাসে রাজনৈতিক আশ্রয়ে ছিলেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ।

গত বছরের ১১ এপ্রিল লন্ডন পুলিশ উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেফতার করে। বর্তমানে লন্ডনে তার বিচার চলছে।