ইদলিবে পুতিন-ট্রাম্পের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা
jugantor
ইদলিবে পুতিন-ট্রাম্পের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা

  যুগান্তর ডেস্ক  

০৬ মার্চ ২০২০, ১৪:৫৩:৩১  |  অনলাইন সংস্করণ

ইদলিবে পুতিন-ট্রাম্পের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা
ছবি: এএফপি

ইদলিবে অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর আগে ছয় ঘণ্টা ধরে বৈঠক করেন এই দুই নেতা।

সিরিয়ার সর্বশেষ বিদ্রোহী ঘাঁটি ইদলিবে গত ডিসেম্বর থেকে রক্তপাত ও সহিংসতা বাড়ছিল। অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ নিতে রুশ-সমর্থিত সিরীয় সরকার অভিযান শুরু করলে উত্তেজনা বেড়ে যায়।– খবর আল-জাজিরা

রাশিয়ার রাজধানীতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এরদোগান বলেন, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টা থেকে এই অস্ত্রবিরতি কার্যকর করা হয়েছে।

সিরীয় সেনাবাহিনীকে বিতাড়িত করতে ইদলিবে কয়েক হাজার সেনা পাঠিয়েছে তুরস্ক। তিনি বলেন, সিরীয় সরকারি বাহিনী অব্যাহত হামলা চালিয়ে আসলে তুরস্ক নীরব বসে থাকবে না। আংকারা তখন সর্বশক্তি দিয়ে তা প্রতিহত করবে।

পুতিন বলেন, তুরস্কের সঙ্গে সবসময় রাশিয়া একমত না হলেও আশা করা হচ্ছে যে এই চুক্তি ইদলিবের সংঘাতের অবসানে সহায়তা করবে। এতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি যেমন কমবে, তেমনি ক্রমবর্ধমান মানবিক সংকটও কমে আসতে থাকবে।

চুক্তি কার্যকর করা হলেও তুরস্কের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আনাদুলু বলছে, শুক্রবার সকালে ২১ সিরীয় সেনাকে হত্যা করেছে তুর্কি বাহিনী। এছাড়া দুটি কামান ও দুটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপক ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে।

ডিসেম্বরের শেষ থেকে অন্তত ১০০ শিশুসহ তিন শতাধিক বেসামরিক নাগরিক ইদলিবে নিহত হয়েছেন। আর তুর্কিশ সীমান্ত বরাবর প্রায় ১০ লাখ লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছেন।

ইদলিবে পুতিন-ট্রাম্পের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা

 যুগান্তর ডেস্ক 
০৬ মার্চ ২০২০, ০২:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইদলিবে পুতিন-ট্রাম্পের অস্ত্রবিরতি ঘোষণা
ছবি: এএফপি

ইদলিবে অস্ত্রবিরতি ঘোষণা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান ও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এর আগে ছয় ঘণ্টা ধরে বৈঠক করেন এই দুই নেতা।

সিরিয়ার সর্বশেষ বিদ্রোহী ঘাঁটি ইদলিবে গত ডিসেম্বর থেকে রক্তপাত ও সহিংসতা বাড়ছিল। অঞ্চলটির নিয়ন্ত্রণ নিতে রুশ-সমর্থিত সিরীয় সরকার অভিযান শুরু করলে উত্তেজনা বেড়ে যায়।– খবর আল-জাজিরা

রাশিয়ার রাজধানীতে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এরদোগান বলেন, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১টা থেকে এই অস্ত্রবিরতি কার্যকর করা হয়েছে।

সিরীয় সেনাবাহিনীকে বিতাড়িত করতে ইদলিবে কয়েক হাজার সেনা পাঠিয়েছে তুরস্ক। তিনি বলেন, সিরীয় সরকারি বাহিনী অব্যাহত হামলা চালিয়ে আসলে তুরস্ক নীরব বসে থাকবে না। আংকারা তখন সর্বশক্তি দিয়ে তা প্রতিহত করবে।

পুতিন বলেন, তুরস্কের সঙ্গে সবসময় রাশিয়া একমত না হলেও আশা করা হচ্ছে যে এই চুক্তি ইদলিবের সংঘাতের অবসানে সহায়তা করবে। এতে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি যেমন কমবে, তেমনি ক্রমবর্ধমান মানবিক সংকটও কমে আসতে থাকবে।

চুক্তি কার্যকর করা হলেও তুরস্কের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আনাদুলু বলছে, শুক্রবার সকালে ২১ সিরীয় সেনাকে হত্যা করেছে তুর্কি বাহিনী। এছাড়া দুটি কামান ও দুটি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপক ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে।

ডিসেম্বরের শেষ থেকে অন্তত ১০০ শিশুসহ তিন শতাধিক বেসামরিক নাগরিক ইদলিবে নিহত হয়েছেন। আর তুর্কিশ সীমান্ত বরাবর প্রায় ১০ লাখ লোক বাস্তুচ্যুত হয়েছেন।

 

ঘটনাপ্রবাহ : সিরিয়া যুদ্ধ