ক্ষেপণাস্ত্রসহ ১০১টি সামরিক সরঞ্জাম আমদানি নিষিদ্ধ ভারতের
jugantor
ক্ষেপণাস্ত্রসহ ১০১টি সামরিক সরঞ্জাম আমদানি নিষিদ্ধ ভারতের

  অনলাইন ডেস্ক  

০৯ আগস্ট ২০২০, ১৮:০৩:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী
ফাইল ছবি
আত্মনির্ভরশীল ভারত গঠনে প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। দেশীয় প্রতিরক্ষা উৎপাদন ক্ষেত্রগুলো চাঙ্গা করতে ক্ষেপণাস্ত্রসহ ১০১ রকমের সামরিক (প্রতিরক্ষা) সরঞ্জাম আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এসবের তালিকায় রয়েছে কামান থেকে জাহাজবিধ্বংসী ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ও হাল্কা যুদ্ধবিমান থেকে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল। রোববার এক টুইট বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। ২০২০ সাল থেকে ২০২৪ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হবে বলে তিনি জানান। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই উদ্যোগের ফলে আগাগী ছয়-সাত বছরের মধ্যে প্রায় ৪ লাখ কোটি রুপি ঋণ দেয়া হবে সংস্থাগুলোকে। রাজনাথ জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেসব সামরিক সরঞ্জামগুলো আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে স্থলসেনা ও বিমান বাহিনীর জন্য প্রস্তাবিত এক লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার উপকরণ। এ ছাড়া নৌবাহিনীর আনুমানিক এক লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকার উপকরণ। চলতি বছরই ঘরোয়া প্রতিরক্ষা উৎপাদনে ব্যয় করা হবে ৫২ হাজার কোটি টাকা। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস ও আনন্দবাজার প্রত্রিকা

ক্ষেপণাস্ত্রসহ ১০১টি সামরিক সরঞ্জাম আমদানি নিষিদ্ধ ভারতের

 অনলাইন ডেস্ক 
০৯ আগস্ট ২০২০, ০৬:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ভারতীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী
ফাইল ছবি
আত্মনির্ভরশীল ভারত গঠনে প্রধানমন্ত্রীর ডাকে সাড়া দিয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। দেশীয় প্রতিরক্ষা উৎপাদন ক্ষেত্রগুলো চাঙ্গা করতে ক্ষেপণাস্ত্রসহ ১০১ রকমের সামরিক (প্রতিরক্ষা) সরঞ্জাম আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারতীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। এসবের তালিকায় রয়েছে কামান থেকে জাহাজবিধ্বংসী ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ও হাল্কা যুদ্ধবিমান থেকে স্বয়ংক্রিয় রাইফেল। রোববার এক টুইট বার্তায় এ কথা জানিয়েছেন দেশটির প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। ২০২০ সাল থেকে ২০২৪ সালের মধ্যে পর্যায়ক্রমে এই নিষেধাজ্ঞা কার্যকর করা হবে বলে তিনি জানান। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই উদ্যোগের ফলে আগাগী ছয়-সাত বছরের মধ্যে প্রায় ৪ লাখ কোটি রুপি ঋণ দেয়া হবে সংস্থাগুলোকে। রাজনাথ জানিয়েছেন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের যেসব সামরিক সরঞ্জামগুলো আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে স্থলসেনা ও বিমান বাহিনীর জন্য প্রস্তাবিত এক লাখ ৩০ হাজার কোটি টাকার উপকরণ। এ ছাড়া নৌবাহিনীর আনুমানিক এক লাখ ৪০ হাজার কোটি টাকার উপকরণ। চলতি বছরই ঘরোয়া প্রতিরক্ষা উৎপাদনে ব্যয় করা হবে ৫২ হাজার কোটি টাকা। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস ও আনন্দবাজার প্রত্রিকা
 
আরও খবর