ভারত নয় অযোধ্যাপুরীতে রামের জন্ম, মূর্তি তৈরির নির্দেশ ওলির

  অনলাইন ডেস্ক ০৯ আগস্ট ২০২০, ১৯:২০:৫৯ | অনলাইন সংস্করণ

নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। ফাইল ছবি

রামের জন্ম ভারতের অযোধ্যায় নয় নেপালের চিতওয়ানের মাদি পৌরসভা এলাকার অযোধ্যাপুরীতে বলে দাবি করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। মাদি পৌরসভার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সেখানে রামের মূর্তি নির্মাণের কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া প্রতিনিধিদের পরামর্শ দেন অযোধ্যাপুরীতে রামের জন্ম তা প্রচার করতে।

রোববার নেপালের দ্য হিমালয়া টাইমস এ খবর জানায়।

এর আগে শনিবার মাদি পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের চেয়ারম্যান শিবহরি সুবেদির সঙ্গে ফোনে কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। এদিকে এদিন মাদি পৌরসভার মেয়র ঠাকুর প্রসাদ দাকালসহ মাদি থেকে আসা একটি প্রতিনিধির সঙ্গে ২ ঘণ্টা ধরে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি।

সুবেদি জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ভারতের উত্তর প্রদেশে রামের জন্ম নয় নেপালের অযোধ্যাপুরীতে রামের জন্ম। আমার কাছে যেসব প্রমাণ আছে সেগুলো নির্দেশ করে নেপালের অযোধ্যাপুরীতেই রামের জন্ম হয়েছে।

সুবেদি নামের মাদি পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের চেয়ারম্যান বলেন, আমরাও বিশ্বাস করি চিতওয়ানের অযোধ্যাপুরী থেকে পারসার থরি এলাকার বাল্মিকি আশ্রমে রামের জন্ম হয়েছে।

ন্যাশনাল এসেম্বলির সদস্য দিল কুমার রাওয়াল জানান, প্রধানমন্ত্রী অযোধ্যাপুরীর আশেপাশের এলাকা সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন। প্রতিনিধি দলকে প্রধানমন্ত্রী আরও প্রমাণ সংগ্রহের জন্য খনন কাজ শুরু করতে বলেছেন।

অযোধ্যাপুরীকে ঐতিহাসিক ও ধর্মীয় স্থান হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার ভূমি প্রদান করবে বলে জানিয়েছেন নেপালি প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া রাম, লক্ষ্মণ ও সীতার মূর্তি স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।

প্রতিনিধি দলের পক্ষ থেকে নেপালের প্রধানমন্ত্রীকে বলা হয়েছে, তারা মাদি পৌরসভার নাম পরিবর্তন করে অযোধ্যাপুরী রাখার চেষ্টা করবেন। এতে করে স্থানটির ধর্মীয় গুরুত্ব বাড়বে।

এদিকে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস বলছে, রামের জন্ম উত্তর প্রদেশে নয় নেপালের অযোধ্যাপুরীতে দেশটির প্রধানমন্ত্রী এমন মন্তব্যকে হাস্যকর বলে উল্লেখ করেছে।

সম্প্রতি উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরই মধ্যে এমন নেপালি প্রধানমন্ত্রীর এমন মন্তব্যে সমালোচিত হন তিনি।

এর আগে অযোধ্যাকে নিজেদের ভূমি বলে দাবি করেছিল নেপালি সরকার। ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, বিরোধীদের চাপের মুখেই সেই দাবি থেকে সরে এসে এমন মন্তব্য করছেন ওলি।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত