এরদোগানের সঙ্গে বৈঠকে কী হল জানাল হামাস
jugantor
এরদোগানের সঙ্গে বৈঠকে কী হল জানাল হামাস

  অনলাইন ডেস্ক  

২৭ আগস্ট ২০২০, ২১:৫২:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

ইসমাইল হানিয়া ও এরদোগান

ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন গোষ্ঠী হামাসের প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, এরদোগান সবসময় ফিলিস্তিনিদের অভ্যন্তরীণ সমন্বয়ের জন্য জোর দিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ইস্তাম্বুলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট এরদোগান ফিলিস্তিনের অভ্যন্তরে দীর্ঘসময়ের জন্য হামাস ও ফাতাহকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

এর আগে গত সপ্তাহে ইস্তাম্বুলে হামাস নেতাকে স্বাগত জানান। তিনি এ সময় ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মাহমুদ আব্বাসকেও ফোন করেন।

হামাস নেতা বলেন, আমাদের সমন্বয়ে সাহায্য ও বিবাদ দূর করতে তুর্কির ভূমিকাকে আমরা স্বাগত জানাই।

২০০৭ সালের মাঝামাঝি থেকে গাজা অবরুদ্ধ করার পর হামাস ও ফাতাহর মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়। তাদের মধ্যে কয়েকদফা লড়াইও হয়।

২০১৭ সালে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে কায়রোতে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে চুক্তি হয়। ওই চুক্তিতে কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। তবে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে চুক্তি শর্ত বাস্তবায়ন করা যায়নি।

ইয়েনি শাফাক

এরদোগানের সঙ্গে বৈঠকে কী হল জানাল হামাস

 অনলাইন ডেস্ক 
২৭ আগস্ট ২০২০, ০৯:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
ইসমাইল হানিয়া ও এরদোগান
ইসমাইল হানিয়া ও এরদোগান। ছবি: মিডল ইস্ট অনলাইন

ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলন গোষ্ঠী হামাসের প্রধান ইসমাইল হানিয়া বলেছেন, এরদোগান সবসময় ফিলিস্তিনিদের অভ্যন্তরীণ সমন্বয়ের জন্য জোর দিয়েছেন।  

বৃহস্পতিবার ইস্তাম্বুলে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট এরদোগান ফিলিস্তিনের অভ্যন্তরে দীর্ঘসময়ের জন্য হামাস ও ফাতাহকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।  

এর আগে গত সপ্তাহে ইস্তাম্বুলে হামাস নেতাকে স্বাগত জানান।  তিনি এ সময় ফিলিস্তিনের প্রধানমন্ত্রী মাহমুদ আব্বাসকেও ফোন করেন। 

হামাস নেতা বলেন, আমাদের সমন্বয়ে সাহায্য ও বিবাদ দূর করতে তুর্কির ভূমিকাকে আমরা স্বাগত জানাই।

২০০৭  সালের মাঝামাঝি থেকে গাজা অবরুদ্ধ করার পর হামাস ও ফাতাহর মধ্যে বিরোধ দেখা দেয়।  তাদের মধ্যে কয়েকদফা লড়াইও হয়।  

২০১৭ সালে নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে কায়রোতে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে চুক্তি হয়।  ওই চুক্তিতে কিছু শর্ত জুড়ে দেয়া হয়। তবে দুই গোষ্ঠীর মধ্যে চুক্তি শর্ত বাস্তবায়ন করা যায়নি। 

ইয়েনি শাফাক

 

ঘটনাপ্রবাহ : ফিলিস্তিনিদের ঘরে ফেরার বিক্ষোভ