কেনোসায় ট্রাম্পের সফর সামনে রেখে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ
jugantor
কেনোসায় ট্রাম্পের সফর সামনে রেখে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ

  অনলাইন ডেস্ক  

৩০ আগস্ট ২০২০, ১১:১৮:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

কেনোসায় ট্রাম্পের সফর সামনে রেখে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনের কেনোসায় বর্ণবাদবিরোধী মাইলব্যাপী মিছিলে শত শত লোক যোগ দিয়েছেন। এ সময় তারা ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’, ‘ন্যায়বিচার না থাকলে, শান্তি আসবে না’ বলে স্লোগান দেন।-খবর রয়টার্সের

এমন এক সময় বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়েছে, যখন সহিংসতাকবলিত শহরটিতে সফরের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

জ্যাকোব ব্লেইক জুনিয়র নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে গুলি করে এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা। এরপরেই শহরটিতে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। তবে লুটতরাজ ও ভাংচুর থেকে সবাইকে বিরত থাকতে আহ্বান জানিয়েছেন তার বাবা।

তিনি বলেন, কারণ এতে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের বিষয়টি আড়ালে চলে যেতে পারে। এই শহরের ভালো মানুষগুলো বুঝতে পেরেছেন, যদি আমরা ভাংচুর করি, তবে তাতে কোনো লাভ হবে না। কাজেই এসব বন্ধ করতে হবে।

তিন সন্তানের সামনেই ২৯ বছর বয়সী ব্লেইককে গুলি করে পুলিশ। এতে শ্বেতাঙ্গ সংখ্যাগরিষ্ঠ শহরটি নতুন উত্তেজনার কেন্দ্রস্থলে পরিণত হয়।

এদিকে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান নিয়েছেন ট্রাম্প। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করতে মঙ্গলবার তিনি সেখানে সফর করবেন।

এতে ভাংচুরের ক্ষয়ক্ষতিরও মূল্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার(বিএলএম) আন্দোলনের ক্লাইড ম্যাকলোমোর বলেন, প্রেসিডেন্টকে আমি যে কথাটি বলতে চাচ্ছি, তা হচ্ছে, বিএলএম সদস্যরা গুন্ডা না। তারা লুটতরাজকারী না। তিনি আমাদের দোষারোপ করছেন, কিন্তু বিষয়টি সত্যিকারে এমন না।

পুলিশের গুলিতে ব্লেইক বেঁচে গেলেও মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। তার কোমরের নিচের অংশ পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

কেনোসায় ট্রাম্পের সফর সামনে রেখে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ

 অনলাইন ডেস্ক 
৩০ আগস্ট ২০২০, ১১:১৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কেনোসায় ট্রাম্পের সফর সামনে রেখে বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভ
ছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনের কেনোসায় বর্ণবাদবিরোধী মাইলব্যাপী মিছিলে শত শত লোক যোগ দিয়েছেন। এ সময় তারা ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’, ‘ন্যায়বিচার না থাকলে, শান্তি আসবে না’ বলে স্লোগান দেন।-খবর রয়টার্সের

এমন এক সময় বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়েছে, যখন সহিংসতাকবলিত শহরটিতে সফরের ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

জ্যাকোব ব্লেইক জুনিয়র নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবককে গুলি করে এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা। এরপরেই শহরটিতে অস্থিরতা দেখা দিয়েছে। তবে লুটতরাজ ও ভাংচুর থেকে সবাইকে বিরত থাকতে আহ্বান জানিয়েছেন তার বাবা।

তিনি বলেন, কারণ এতে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভের বিষয়টি আড়ালে চলে যেতে পারে। এই শহরের ভালো মানুষগুলো বুঝতে পেরেছেন, যদি আমরা ভাংচুর করি, তবে তাতে কোনো লাভ হবে না। কাজেই এসব বন্ধ করতে হবে।

তিন সন্তানের সামনেই ২৯ বছর বয়সী ব্লেইককে গুলি করে পুলিশ। এতে শ্বেতাঙ্গ সংখ্যাগরিষ্ঠ শহরটি নতুন উত্তেজনার কেন্দ্রস্থলে পরিণত হয়।

এদিকে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে কড়া অবস্থান নিয়েছেন ট্রাম্প। আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর কর্মকর্তাদের সঙ্গে দেখা করতে মঙ্গলবার তিনি সেখানে সফর করবেন।

এতে ভাংচুরের ক্ষয়ক্ষতিরও মূল্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস।

ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার(বিএলএম) আন্দোলনের ক্লাইড ম্যাকলোমোর বলেন, প্রেসিডেন্টকে আমি যে কথাটি বলতে চাচ্ছি, তা হচ্ছে, বিএলএম সদস্যরা গুন্ডা না। তারা লুটতরাজকারী না। তিনি আমাদের দোষারোপ করছেন, কিন্তু বিষয়টি সত্যিকারে এমন না।

পুলিশের গুলিতে ব্লেইক বেঁচে গেলেও মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন। তার কোমরের নিচের অংশ পক্ষাঘাতগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন

ঘটনাপ্রবাহ : কৃষ্ণাঙ্গ হত্যায় অগ্নিগর্ভ যুক্তরাষ্ট্র