চীনের সঙ্গে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে কীভাবে দেখছে ভারত?
jugantor
চীনের সঙ্গে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে কীভাবে দেখছে ভারত?

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ জানুয়ারি ২০২১, ১৬:৩১:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

চীনের সঙ্গে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে কীভাবে দেখছে ভারত?

বিতর্কিত হিমালয় সীমান্তে চীনা সেনাদের মধ্যে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে গুরুত্ব না দেয়ার দাবি করেছে ভারত।

গত সপ্তাহের সংঘাতকে তেমন গুরুতর নয় বলে উল্লেখ করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

পাঁচ দিন আগে চীনের একদল সেনা সিকিম সীমান্ত দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল। কিন্তু ভারতীয় বাহিনীর বাধায় শেষ পর্যন্ত পিছু হটে তারা।

এ সময় সংঘর্ষে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন জওয়ান আহত হয়েছেন। সিকিম রাজ্যের নাকুলায় এ সংঘর্ষে দুই পক্ষেরই ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

২০ জানুয়ারি হাতাহাতি হয় বলে ভারত স্বীকার করেছে। তবে এটিকে ছোট ঘটনা উল্লেখ করে স্থানীয় কমান্ডাররাই সমাধান করে নিয়েছে বলে জানিয়েছে ভারত।

বর্তমানে পরিস্থিতি থমথমে হলেও শান্ত রয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। এ নিয়ে পূর্ব সেক্টরে এক বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার চীনের সঙ্গে হাতাহাতি হল।

গত বছর মে মাসে নাকুলাতে প্রথম সংঘর্ষ হয়। আহত হয় দুই পক্ষের সেনা। কিন্তু তারপরেই আলোচনা চলে যায় পূর্ব লাদাখে।

সেখানে দুই দেশের সেনার মধ্যে গত দশ মাস ধরে অচলাবস্থা চলছে। এর মধ্যে ১৫ জুন গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ২০জন ভারতীয় সেনার মৃত্যু হয়।

বর্তমানে মারাত্মক শীত উপেক্ষা করেও লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় নিজেদের অবস্থান ধরে রেখেছে দুই দেশের সেনারা।

দফায় দফায় কূটনৈতিক ও সামরিকভাবে আলোচনা করেও সমাধানসূত্র পাওয়া যায় নি।

চীনের সঙ্গে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে কীভাবে দেখছে ভারত?

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ জানুয়ারি ২০২১, ০৪:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চীনের সঙ্গে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে কীভাবে দেখছে ভারত?
ছবি: পিটিআই

বিতর্কিত হিমালয় সীমান্তে চীনা সেনাদের মধ্যে ফের সংঘর্ষের ঘটনাকে গুরুত্ব না দেয়ার দাবি করেছে ভারত। 

গত সপ্তাহের সংঘাতকে তেমন গুরুতর নয় বলে উল্লেখ করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের। 

পাঁচ দিন আগে চীনের একদল সেনা সিকিম সীমান্ত দিয়ে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল। কিন্তু ভারতীয় বাহিনীর বাধায় শেষ পর্যন্ত পিছু হটে তারা। 

এ সময় সংঘর্ষে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন জওয়ান আহত হয়েছেন। সিকিম রাজ্যের নাকুলায় এ সংঘর্ষে দুই পক্ষেরই ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

২০ জানুয়ারি হাতাহাতি হয় বলে ভারত স্বীকার করেছে। তবে এটিকে ছোট ঘটনা উল্লেখ করে স্থানীয় কমান্ডাররাই সমাধান করে নিয়েছে বলে জানিয়েছে ভারত।

বর্তমানে পরিস্থিতি থমথমে হলেও শান্ত রয়েছে বলে দাবি করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। এ নিয়ে পূর্ব সেক্টরে এক বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বার চীনের সঙ্গে হাতাহাতি হল।

গত বছর মে মাসে নাকুলাতে প্রথম সংঘর্ষ হয়। আহত হয় দুই পক্ষের সেনা। কিন্তু তারপরেই আলোচনা চলে যায় পূর্ব লাদাখে। 

সেখানে দুই দেশের সেনার মধ্যে গত দশ মাস ধরে অচলাবস্থা চলছে। এর মধ্যে ১৫ জুন গালওয়ানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে ২০জন ভারতীয় সেনার মৃত্যু হয়। 

বর্তমানে মারাত্মক শীত উপেক্ষা করেও লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় নিজেদের অবস্থান ধরে রেখেছে দুই দেশের সেনারা। 

দফায় দফায় কূটনৈতিক ও সামরিকভাবে আলোচনা করেও সমাধানসূত্র পাওয়া যায় নি।  

 

 

ঘটনাপ্রবাহ : সীমান্তে চীন-ভারত উত্তেজনা

০৯ জানুয়ারি, ২০২১