লেখক না হলে খেজুরগাছের গাছি হতাম
jugantor
লেখক না হলে খেজুরগাছের গাছি হতাম

  মাকিদ হায়দার  

০৬ আগস্ট ২০২০, ২৩:৪১:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

মাকিদ হায়দার বাংলাদেশের একজন খ্যাতিমান কবি। ১৯৪৭ সালের ২৮ নভেম্বর তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের পাবনা জেলার দোহারপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

তার বাবা হাকিমউদ্দিন শেখ ও মা রহিমা খাতুন। মা-বাবার সাত ছেলে ও সাত মেয়ে। তার ভাই রশীদ হায়দার, জিয়া হায়দার, দাউদ হায়দার, জাহিদ হায়দার, আবিদ হায়দার ও আরিফ হায়দার সবাই দেশের সাহিত্য-সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িত।

উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ: রোদে ভিজে বাড়ি ফেরা, আপন আঁধারে একদিন, রবীন্দ্রনাথ : নদীগুলা, বাংলাদেশের প্রেমের কবিতা, যে আমাকে দুঃখ দিলো সে যেনো আজ সুখে থাকে, কফিনের লোকটা, ও প্রার্থ ও প্রতিম, প্রিয় রোকানালী, মমুর সাথে সারা দুপুর।

মাকিদ হায়দার বাংলা একাডেমি সাহিত্যসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।

যুগান্তর: লেখকরা তো আড্ডা-প্রিয়। বিশেষ করে আপনি তো খুব আড্ডা-প্রিয় কবি হিসেবেই পরিচিত। এখন আপনার সময়টি কেমন করে কাটাচ্ছে?

মাকিদ হায়দার: আড্ডা-প্রিয় সঙ্গ হারিয়ে যাচ্ছে। প্রিয় বন্ধুদের অনেকেই ইতোমধ্যে সঙ্গীবিহীন অন্ধকারে। স্বদেশ-বিদেশে যেখানে যখন থেকেছি, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা না দিলে নিঃসর্গ মিছে মনে হতো। সময় কাটছে ধ্রুপদী সাহিত্য পাঠ করে এবং গৃহ লক্ষ্মীর সঙ্গে খুনসুটি করে।

যুগান্তর: এই মহামারী সময়ে কী পড়ছেন, কী লিখছেন?

মাকিদ হায়দার: একাধিকবার পাঠিত হলেও , শরৎচন্দ্র , সৈয়দ মুজতবা আলী। লিখছি কবিতা, ছড়া কলাম। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায়।

যুগান্তর: করোনা পরবর্তী পৃথিবীর মানুষের কী ধরনের মানসিক পরিবর্তন হতে পারে?

মাকিদ হায়দার: হতে পারে আপনজনকে ভুলে যাওয়া। শক্তিধর দেশের প্রতি ঘৃণা, অশ্রদ্ধা।

যুগান্তর: বিশ্বসাহিত্যের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমান বাংলা সাহিত্যের অবস্থান কেমন?

মাকিদ হায়দার: আন্তর্জাতিক মানের কবিতা। ছোট গল্প। ভালো বলেই আমি জেনেছি।

যুগান্তর: বর্তমানে বাংলাদেশের সাহিত্যে ভালো লেখকের অভাব নাকি ভালো মানের পাঠকের অভাব?

মাকিদ হায়দার: দুটোই

যুগান্তর: যাদের লেখা সমাজে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে জীবিত এমন তিনজন লেখকের নাম।

মাকিদ হায়দার: হাসান আজিজুল হক। রশীদ হায়দার। নির্মলেন্দু গুণ।

যুগান্তর: লেখক হিসেবে বহুল আলোচিত কিন্তু আপনার বিবেচনায় এদের নিয়ে এতটা আলোচনা হওয়ার কিছু নেই এমন তিনজন লেখকের নাম।

মাকিদ হায়দার: প্রশ্নের ভেতরেই উত্তর নিহিত। যদি আপনি তিনটি নাম জানতেন বাধিত হব।

যুগান্তর: এখানে গুরুত্বপূর্ণ লেখকরা কী কম আলোচিত? যদি সেটা হয়, তাহলে কী কী কারণে হচ্ছে? এমন তিনটি সমস্যার কথা উল্লেখ করুন।

মাকিদ হায়দার: শিক্ষার মান পড়ে যাওয়া। চতুর প্রযুক্তির ভেতরে মানুষ আটকে যাচ্ছে। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সংকট।

যুগান্তর: সাহিত্য থেকে হওয়া আপনার দেখা সেরা সিনেমা।

মাকিদ হায়দার: পথের পাঁচালী। সূর্য দীঘল বাড়ী। টু উইমেন। হ্যামলেট।

যুগান্তর: অভিনয় ভালো লাগে জীবিত এমন একজনের নাম বলুন।

মাকিদ হায়দার: আসাদুজ্জামান নূর।

যুগান্তর: এমন একজন নায়িকার কথা বলুন যার প্রেমে পড়তে চান।

মাকিদ হায়দার: সোফিয়া লরেন।

যুগান্তর: জীবিত একজন আদর্শ রাজনীতিবিদের নাম বলুন।

মাকিদ হায়দার: মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

যুগান্তর: দুই বাংলার সাহিত্যে তুলনা করলে বর্তমানে আমরা কোন বিভাগে এগিয়ে কোন বিভাগে পিছিয়ে?

মাকিদ হায়দার: এগিয়ে কবিতা। উপন্যাস পিছিয়ে।

যুগান্তর: একজন অগ্রজ এবং একজন অনুজ লেখকের নাম বলুন যারা বাংলা সাহিত্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

মাকিদ হায়দার: জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত, রেজাউদ্দিন স্টালিন।

যুগান্তর: এমন দুটো বই, যা অবশ্যই পড়া উচিত বলে পাঠককে পরামর্শ দেবেন।

মাকিদ হায়দার: বাংলা অভিধান। গীতবিতান।

যুগান্তর: লেখক না হলে কী হতে চাইতেন।

মাকিদ হায়দার: খেজুরগাছের গাছি হতে চেয়েছিলাম। জিরেন কাটের রস খেতে পারব প্রতিদিন।

যুগান্তর: গানে আছে ‘প্রেম একবার এসেছিল জীবনে’- আপনার জীবনে কতবার এসেছিল?

মাকিদ হায়দার: কর গুণে হিসাব করে তার পর বলতে হবে। তবে শ- এর অধিক। তাদের নিয়ে পদ্যও লিখেছিলাম ‘যে আমাকে দুঃখ দিলো, সে যেনো আজ সুখেই থাকে।’

যুগান্তর: আপনার সবচেয়ে ভালো লাগার বিষয়, খারাপ লাগার বিষয়।

মাকিদ হায়দার: ভালো লাগে বড়শি ফেলে মাছ ধরতে। খারাপ লাগে মানুষ যখন পরচর্চা পর নিন্দা করে তখন।
 

লেখক না হলে খেজুরগাছের গাছি হতাম

 মাকিদ হায়দার 
০৬ আগস্ট ২০২০, ১১:৪১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মাকিদ হায়দার বাংলাদেশের একজন খ্যাতিমান কবি। ১৯৪৭ সালের ২৮ নভেম্বর তৎকালীন ব্রিটিশ ভারতের পাবনা জেলার দোহারপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

তার বাবা হাকিমউদ্দিন শেখ ও মা রহিমা খাতুন। মা-বাবার সাত ছেলে ও সাত মেয়ে। তার ভাই রশীদ হায়দার, জিয়া হায়দার, দাউদ হায়দার, জাহিদ হায়দার, আবিদ হায়দার ও আরিফ হায়দার সবাই দেশের সাহিত্য-সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িত।

উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ: রোদে ভিজে বাড়ি ফেরা, আপন আঁধারে একদিন, রবীন্দ্রনাথ : নদীগুলা, বাংলাদেশের প্রেমের কবিতা, যে আমাকে দুঃখ দিলো সে যেনো আজ সুখে থাকে, কফিনের লোকটা, ও প্রার্থ ও প্রতিম, প্রিয় রোকানালী, মমুর সাথে সারা দুপুর।

মাকিদ হায়দার বাংলা একাডেমি সাহিত্যসহ অসংখ্য পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।

যুগান্তর: লেখকরা তো আড্ডা-প্রিয়। বিশেষ করে আপনি তো খুব আড্ডা-প্রিয় কবি হিসেবেই পরিচিত। এখন আপনার সময়টি কেমন করে কাটাচ্ছে?

মাকিদ হায়দার: আড্ডা-প্রিয় সঙ্গ হারিয়ে যাচ্ছে। প্রিয় বন্ধুদের অনেকেই ইতোমধ্যে সঙ্গীবিহীন অন্ধকারে। স্বদেশ-বিদেশে যেখানে যখন থেকেছি, বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা না দিলে নিঃসর্গ মিছে মনে হতো। সময় কাটছে ধ্রুপদী সাহিত্য পাঠ করে এবং গৃহ লক্ষ্মীর সঙ্গে খুনসুটি করে।

যুগান্তর: এই মহামারী সময়ে কী পড়ছেন, কী লিখছেন?

মাকিদ হায়দার: একাধিকবার পাঠিত হলেও , শরৎচন্দ্র , সৈয়দ মুজতবা আলী। লিখছি কবিতা, ছড়া কলাম। বিভিন্ন পত্রপত্রিকায়।

যুগান্তর: করোনা পরবর্তী পৃথিবীর মানুষের কী ধরনের মানসিক পরিবর্তন হতে পারে?

মাকিদ হায়দার: হতে পারে আপনজনকে ভুলে যাওয়া। শক্তিধর দেশের প্রতি ঘৃণা, অশ্রদ্ধা।

যুগান্তর: বিশ্বসাহিত্যের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমান বাংলা সাহিত্যের অবস্থান কেমন?

মাকিদ হায়দার: আন্তর্জাতিক মানের কবিতা। ছোট গল্প। ভালো বলেই আমি জেনেছি।

যুগান্তর: বর্তমানে বাংলাদেশের সাহিত্যে ভালো লেখকের অভাব নাকি ভালো মানের পাঠকের অভাব?

মাকিদ হায়দার: দুটোই

যুগান্তর: যাদের লেখা সমাজে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে জীবিত এমন তিনজন লেখকের নাম।

মাকিদ হায়দার: হাসান আজিজুল হক। রশীদ হায়দার। নির্মলেন্দু গুণ।

যুগান্তর: লেখক হিসেবে বহুল আলোচিত কিন্তু আপনার বিবেচনায় এদের নিয়ে এতটা আলোচনা হওয়ার কিছু নেই এমন তিনজন লেখকের নাম।

মাকিদ হায়দার: প্রশ্নের ভেতরেই উত্তর নিহিত। যদি আপনি তিনটি নাম জানতেন বাধিত হব।

যুগান্তর: এখানে গুরুত্বপূর্ণ লেখকরা কী কম আলোচিত? যদি সেটা হয়, তাহলে কী কী কারণে হচ্ছে? এমন তিনটি সমস্যার কথা উল্লেখ করুন।

মাকিদ হায়দার: শিক্ষার মান পড়ে যাওয়া। চতুর প্রযুক্তির ভেতরে মানুষ আটকে যাচ্ছে। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সংকট।

যুগান্তর: সাহিত্য থেকে হওয়া আপনার দেখা সেরা সিনেমা।

মাকিদ হায়দার: পথের পাঁচালী। সূর্য দীঘল বাড়ী। টু উইমেন। হ্যামলেট।

যুগান্তর: অভিনয় ভালো লাগে জীবিত এমন একজনের নাম বলুন।

মাকিদ হায়দার: আসাদুজ্জামান নূর।

যুগান্তর: এমন একজন নায়িকার কথা বলুন যার প্রেমে পড়তে চান।

মাকিদ হায়দার: সোফিয়া লরেন।

যুগান্তর: জীবিত একজন আদর্শ রাজনীতিবিদের নাম বলুন।

মাকিদ হায়দার: মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

যুগান্তর: দুই বাংলার সাহিত্যে তুলনা করলে বর্তমানে আমরা কোন বিভাগে এগিয়ে কোন বিভাগে পিছিয়ে?

মাকিদ হায়দার: এগিয়ে কবিতা। উপন্যাস পিছিয়ে।

যুগান্তর: একজন অগ্রজ এবং একজন অনুজ লেখকের নাম বলুন যারা বাংলা সাহিত্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

মাকিদ হায়দার: জ্যোতিপ্রকাশ দত্ত, রেজাউদ্দিন স্টালিন।

যুগান্তর: এমন দুটো বই, যা অবশ্যই পড়া উচিত বলে পাঠককে পরামর্শ দেবেন।

মাকিদ হায়দার: বাংলা অভিধান। গীতবিতান।

যুগান্তর: লেখক না হলে কী হতে চাইতেন।

মাকিদ হায়দার: খেজুরগাছের গাছি হতে চেয়েছিলাম। জিরেন কাটের রস খেতে পারব প্রতিদিন।

যুগান্তর: গানে আছে ‘প্রেম একবার এসেছিল জীবনে’- আপনার জীবনে কতবার এসেছিল?

মাকিদ হায়দার: কর গুণে হিসাব করে তার পর বলতে হবে। তবে শ- এর অধিক। তাদের নিয়ে পদ্যও লিখেছিলাম ‘যে আমাকে দুঃখ দিলো, সে যেনো আজ সুখেই থাকে।’

যুগান্তর: আপনার সবচেয়ে ভালো লাগার বিষয়, খারাপ লাগার বিষয়।

মাকিদ হায়দার: ভালো লাগে বড়শি ফেলে মাছ ধরতে। খারাপ লাগে মানুষ যখন পরচর্চা পর নিন্দা করে তখন।