কুর্মিটোলা হাসপাতালে গনোরিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ধর্ষণ করে মজনু
jugantor
কুর্মিটোলা হাসপাতালে গনোরিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ধর্ষণ করে মজনু

  যুগান্তর ডেস্ক  

২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০১:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রীকে ধর্ষণের আগে ‘সিরিয়াল রেপিস্ট’ মজনু রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে যৌনবাহিত রোগ গনোরিয়ার চিকিৎসা গ্রহণ করে।

তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। 

সূত্র জানায়, ঘটনার দিন বিকালে মজনু হাসপাতাল থেকে গনোরিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ফেরার পর সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণ মামলাটির তদন্ত করছে ডিবি উত্তরের ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিম। 

চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে অথবা আগামী সপ্তাহে মজনুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে বলেও জানিয়েছে ডিবির ওই তদন্ত সংস্থা।  

ডিবি উত্তরের উপকমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান একটি গণমাধ্যমকে বলেন, চলতি সপ্তাহের শেষে অথবা আগামী সপ্তাহে মামলার অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হবে। এই মামলার পুরো তদন্তকাজ আমরা সফলভাবে শেষ করেছি। এখন আমরা অভিযোগপত্রটি আদালতে দাখিলের অপেক্ষায় আছি।

মামলার তদন্তসংশ্লিষ্ট আরেকটি সূত্র জানায়, মজনু বহু নারীকে একইভাবে ধর্ষণ করেছে বলে স্বীকার করেছে। তবে সে ধর্ষণ করেছে অধিকাংশই ভ্রাম্যমাণ নারীকে। যারা ফুটপাতেই দিনযাপন করে। ২০ বছর ধরে মজনু ঢাকার ফুটপাতেই থাকে। এ ছাড়া মজনু চুরি-ছিনতাইও করত নিয়মিত।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে রাজধানীর শেওড়ায় বান্ধবীর বাসায় যেতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী ক্যাম্পাস থেকে রওনা হন। 

সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে ভুল করে কুর্মিটোলা হাসপাতাল এলাকায় নেমে পড়েন ওই ছাত্রী। পরে হেঁটে শেওড়া যাওয়ার পথে তাকে ফলো করেন ধর্ষক। তাকে সড়ক থেকে তুলে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। 

এ সময় ওই ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়েন। তিন ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরে পেলে বন্ধুদের সহায়তায় হাসপাতালে যান ওই ছাত্রী। 

এ ঘটনায় পর দিন শাহবাগ ও ক্যান্টনমেন্ট থানায় দুটি মামলা হয়।

কুর্মিটোলা হাসপাতালে গনোরিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ধর্ষণ করে মজনু

 যুগান্তর ডেস্ক 
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ছাত্রীকে ধর্ষণের আগে ‘সিরিয়াল রেপিস্ট’ মজনু রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতাল থেকে যৌনবাহিত রোগ গনোরিয়ার চিকিৎসা গ্রহণ করে।

তদন্ত সংস্থা ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) গোয়েন্দা বিভাগের সংশ্লিষ্ট সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্র জানায়, ঘটনার দিন বিকালে মজনু হাসপাতাল থেকে গনোরিয়ার চিকিৎসা নিয়ে ফেরার পর সন্ধ্যায় ওই ছাত্রীকে ধর্ষণ করে।

ধর্ষণ মামলাটির তদন্ত করছে ডিবি উত্তরের ক্যান্টনমেন্ট জোনাল টিম।

চলতি সপ্তাহের শেষ দিকে অথবা আগামী সপ্তাহে মজনুর বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হবে বলেও জানিয়েছে ডিবির ওই তদন্ত সংস্থা।

ডিবি উত্তরের উপকমিশনার (ডিসি) মশিউর রহমান একটি গণমাধ্যমকে বলেন, চলতি সপ্তাহের শেষে অথবা আগামী সপ্তাহে মামলার অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল করা হবে। এই মামলার পুরো তদন্তকাজ আমরা সফলভাবে শেষ করেছি। এখন আমরা অভিযোগপত্রটি আদালতে দাখিলের অপেক্ষায় আছি।

মামলার তদন্তসংশ্লিষ্ট আরেকটি সূত্র জানায়, মজনু বহু নারীকে একইভাবে ধর্ষণ করেছে বলে স্বীকার করেছে। তবে সে ধর্ষণ করেছে অধিকাংশই ভ্রাম্যমাণ নারীকে। যারা ফুটপাতেই দিনযাপন করে। ২০ বছর ধরে মজনু ঢাকার ফুটপাতেই থাকে। এ ছাড়া মজনু চুরি-ছিনতাইও করত নিয়মিত।

উল্লেখ্য, গত ৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে রাজধানীর শেওড়ায় বান্ধবীর বাসায় যেতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ওই ছাত্রী ক্যাম্পাস থেকে রওনা হন।

সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাস থেকে ভুল করে কুর্মিটোলা হাসপাতাল এলাকায় নেমে পড়েন ওই ছাত্রী। পরে হেঁটে শেওড়া যাওয়ার পথে তাকে ফলো করেন ধর্ষক। তাকে সড়ক থেকে তুলে নির্জন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে।

এ সময় ওই ছাত্রী অচেতন হয়ে পড়েন। তিন ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরে পেলে বন্ধুদের সহায়তায় হাসপাতালে যান ওই ছাত্রী।

এ ঘটনায় পর দিন শাহবাগ ও ক্যান্টনমেন্ট থানায় দুটি মামলা হয়।