ডিএনসিসির প্রতিটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুজিব কর্নার’ হবে
jugantor
ডিএনসিসির প্রতিটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুজিব কর্নার’ হবে

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৮ আগস্ট ২০২০, ২১:১৩:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

মেয়র আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি
মেয়র আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রতিটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুজিব কর্নার’ নামে একটি লাইব্রেরি স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, মুজিব কর্ণারে মূলত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি ইত্যাদি সম্পর্কে বিভিন্ন বই, তথ্যচিত্র ইত্যাদি থাকবে। যাতে নগরবাসী মুজিব কর্নারে এসে বইগুলো পড়তে পারেন, বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে পারেন।

মেয়র আজ ডিএনসিসির বিভিন্ন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল মিটিংয়ে এসব কথা জানান। বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের নিয়ে স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়।

স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সদস্যদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে মেয়র বলেন, আশা করি সবাই নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করবেন। নগরবাসীকে তার কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রদানের লক্ষ্যে মেয়র আতিকুল ইসলাম প্রতিটি কমিটির সভাপতিকে নিজ নিজ অধিক্ষেত্রের জন্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়নের নির্দেশ প্রদান করেন।
সভায় ডিএনসিসির উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্থায়ী কমিটিগুলোর সভাপতিরা হচ্ছেন- বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জাকির হোসেন, আইন শৃঙ্খলা ও সন্ত্রাস দমন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ইসহাক মিয়া, মশক নিয়ন্ত্রণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুল মান্নান, যোগাযোগ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুরাদ হোসেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল মতিন, হিসাব নিরীক্ষা ও রক্ষণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ফোরকান হোসেন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুম গনি, সমাজকল্যাণ ও কমিউনিটি সেন্টার স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৩ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নিলুফার ইয়াসমিন ইতি, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. শফিকুল ইসলাম, জলাবদ্ধতা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবুল কাশেম মোল্লা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান খান, নগর অবকাঠামো নির্মাণ ও সংরক্ষণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মফিজুর রহমান, নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আফছার উদ্দিন খান। এই কমিটিগুলো আড়াই বছরের জন্য বলবৎ থাকবে।

ডিএনসিসির প্রতিটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুজিব কর্নার’ হবে

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৮ আগস্ট ২০২০, ০৯:১৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
মেয়র আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি
মেয়র আতিকুল ইসলাম। ফাইল ছবি

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) প্রতিটি কমিউনিটি সেন্টারে ‘মুজিব কর্নার’ নামে একটি লাইব্রেরি স্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, মুজিব কর্ণারে মূলত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, বাংলাদেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি ইত্যাদি সম্পর্কে বিভিন্ন বই, তথ্যচিত্র ইত্যাদি থাকবে। যাতে নগরবাসী মুজিব কর্নারে এসে বইগুলো পড়তে পারেন, বাংলাদেশের ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতি সম্পর্কে জানতে পারেন।

মেয়র আজ ডিএনসিসির বিভিন্ন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে অনুষ্ঠিত এক ভার্চুয়াল মিটিংয়ে এসব কথা জানান। বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলরদের নিয়ে স্থায়ী কমিটি গঠন করা হয়।

স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও সদস্যদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে মেয়র বলেন, আশা করি সবাই নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করবেন। নগরবাসীকে তার কাঙ্ক্ষিত সেবা প্রদানের লক্ষ্যে মেয়র আতিকুল ইসলাম প্রতিটি কমিটির সভাপতিকে নিজ নিজ অধিক্ষেত্রের জন্য স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়নের নির্দেশ প্রদান করেন।
সভায় ডিএনসিসির উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

স্থায়ী কমিটিগুলোর সভাপতিরা হচ্ছেন- বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. জাকির হোসেন, আইন শৃঙ্খলা ও সন্ত্রাস দমন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ইসহাক মিয়া, মশক নিয়ন্ত্রণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুল মান্নান, যোগাযোগ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মুরাদ হোসেন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা এবং স্বাস্থ্য ব্যবস্থা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৪১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আব্দুল মতিন, হিসাব নিরীক্ষা ও রক্ষণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ফোরকান হোসেন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাসুম গনি, সমাজকল্যাণ ও কমিউনিটি সেন্টার স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৩ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নিলুফার ইয়াসমিন ইতি, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৩৯ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. শফিকুল ইসলাম, জলাবদ্ধতা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ৮ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবুল কাশেম মোল্লা, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা স্থায়ী কমিটির সভাপতি ২৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফরিদুর রহমান খান, নগর অবকাঠামো নির্মাণ ও সংরক্ষণ স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১৯ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মফিজুর রহমান, নগর পরিকল্পনা ও উন্নয়ন স্থায়ী কমিটির সভাপতি ১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.আফছার উদ্দিন খান। এই কমিটিগুলো আড়াই বছরের জন্য বলবৎ থাকবে।

 

ঘটনাপ্রবাহ : মুজিববর্ষ