করোনাকালীন অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই
jugantor
জাতীয় সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী
করোনাকালীন অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

০৯ আগস্ট ২০২০, ২২:৪৭:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

জাতীয় সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কোভিড- ১৯ কালীন চরম অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের খাদ্য নিরাপত্তা ধান নির্ভর, সেজন্য দেশের বিভিন্ন স্থানের বন্যার ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ, বাজার পর্যালোচনা, আপদকালীন সংকটের আশংকা এবং চালের রাজনৈতিক স্পর্শকাতর দিকসহ সার্বিক পরিস্থিতি বিচার-বিবেচনার পরই চাল আমদানির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

কৃষিমন্ত্রী রোববার দুপুরে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) আয়োজিত ‘কোভিড-১৯ যুগে খাদ্য নিরাপত্তা: বাংলাদেশ কি অদূর ভবিষ্যতে খাদ্য সংকটে পড়ছে?’ শীর্ষক ওয়েবিনার ভিত্তিক জাতীয় সেমিনারে প্রয়োজনীয় তথ্য উপাত্তসহ এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্রির মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর।

অনলাইন মিটিং প্ল্যাটফর্ম জুমে আয়োজিত এ সেমিনারের উদ্দেশ্য ছিল কোভিড-১৯ কালীন খাদ্য নিরাপত্তা পরিস্থিতি, ধানের উৎপাদন ও বাজারজাতকরণে গৃহীত পদক্ষেপ পর্যালোচনা এবং উৎপাদন বৃদ্ধিতে করণীয় নির্ধারণ করা।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো.আব্দুর রাজ্জাক, এমপি। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

সভাপতিত্ব করেন কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন- পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য শামসুল আলম, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. লুৎফুল হাসান, খাদ্য সচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের এপিএ পুলের সদস্যবৃন্দ।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত সকল দফতর/সংস্থার প্রধানগণ, বিভিন্ন দাতা সংস্থা, এনজিও এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শতাধিক প্রতিনিধি অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন।

জাতীয় সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী

করোনাকালীন অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধি অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
০৯ আগস্ট ২০২০, ১০:৪৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
জাতীয় সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী
ফাইল ছবি

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, কোভিড- ১৯ কালীন চরম অনিশ্চিয়তায় ধান উৎপাদন বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রাখার বিকল্প নেই। 

তিনি বলেন, আমাদের দেশের খাদ্য নিরাপত্তা ধান নির্ভর, সেজন্য দেশের বিভিন্ন স্থানের বন্যার ক্ষয়ক্ষতি নিরুপণ, বাজার পর্যালোচনা, আপদকালীন সংকটের আশংকা এবং চালের রাজনৈতিক স্পর্শকাতর দিকসহ সার্বিক পরিস্থিতি বিচার-বিবেচনার পরই চাল আমদানির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে হবে। 

কৃষিমন্ত্রী রোববার দুপুরে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি) আয়োজিত ‘কোভিড-১৯ যুগে খাদ্য নিরাপত্তা: বাংলাদেশ কি অদূর ভবিষ্যতে খাদ্য সংকটে পড়ছে?’ শীর্ষক ওয়েবিনার ভিত্তিক জাতীয় সেমিনারে প্রয়োজনীয় তথ্য উপাত্তসহ এ অভিমত ব্যক্ত করেন। 

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ব্রির মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর।

অনলাইন মিটিং প্ল্যাটফর্ম জুমে আয়োজিত এ সেমিনারের উদ্দেশ্য ছিল কোভিড-১৯ কালীন খাদ্য নিরাপত্তা পরিস্থিতি, ধানের উৎপাদন ও বাজারজাতকরণে গৃহীত পদক্ষেপ পর্যালোচনা এবং উৎপাদন বৃদ্ধিতে করণীয় নির্ধারণ করা।

ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন কৃষিমন্ত্রী ড. মো.আব্দুর রাজ্জাক, এমপি। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি। 

সভাপতিত্ব করেন কৃষি সচিব মো. নাসিরুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন- পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য শামসুল আলম, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর  ড. লুৎফুল হাসান, খাদ্য সচিব ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের এপিএ পুলের সদস্যবৃন্দ। 

কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনস্ত সকল দফতর/সংস্থার প্রধানগণ, বিভিন্ন দাতা সংস্থা, এনজিও এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শতাধিক প্রতিনিধি অনুষ্ঠানে সংযুক্ত ছিলেন। 
 

 

ঘটনাপ্রবাহ : ছড়িয়ে পড়ছে করোনাভাইরাস