সিফাত-শিপ্রার মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে অনড় স্টামফোর্ড শিক্ষার্থীরা

  যুগান্তর রিপোর্ট ১১ আগস্ট ২০২০, ২০:০৭:২১ | অনলাইন সংস্করণ

রাজধানীর স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রানী দেবনাথের নামে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে অনড় রয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির শিক্ষার্থীরা।

পৃথক দুই মামলায় মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের এই দুই সহযোগীর জামিনে সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও মূল দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছেন তারা। সব ধরনের আইনি জটিলতা নিরসন করে এই দুই শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত এবং সিনহা হত্যার বিচারেরও দাবি জানিয়েছেন তারা।

মঙ্গলবার আন্দোলনকারী শিক্ষার্থী সানাউল কবির সিদ্দিক যুগান্তরকে বলেন, জামিন হওয়ায় আমার ভাইবোনেরা তাদের পরিবারের কাছে ফিরে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে। এতে আমরা খুশি। তবে আমরা তাদের নিঃশর্ত মুক্তি চাই, মিথ্যা ও সাজানো মামলা প্রত্যাহার চাই। সব আইনি জটিলতার অবসান করে অতি দ্রুত তাদেরকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার সুযোগ দিতে হবে। যতদিন পর্যন্ত সেটি না করা হবে ততদিন পর্যন্ত রাজপথে ও অনলাইনে আমাদের প্রতিবাদ অব্যাহত থাকবে।

আন্দোলনকারীদের নেতৃত্বদানকারী শিক্ষার্থী সানাউল কবির সিদ্দিক আরও বলেন, সিফাত ও শিপ্রার সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। তারা মানসিকভাবে অনেকটাই বিপর্যস্ত। অন্যায়ের প্রতিবাদ করায় তারা সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়েছে। পাশাপাশি মেজর সিনহা হত্যার বিচার না হওয়া পর্যন্ত সবাইকে স্বোচ্চার থাকার আহ্বান জানিয়েছে। খুব শীঘ্রই আমরা তাদেরকে নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে সিনহা হত্যাকাণ্ডের সামগ্রিক দিক নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করব। এখন আমরা তাদেরকে কিছুটা সময় দিতে চাই।

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের তথ্যচিত্র নির্মাণের সহযোগী ছিলেন সিফাত ও শিপ্রা। ঘটনাস্থল থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরে পৃথক দুটি মামলায় তাদেরকে কারাগারে নেওয়া হয়। তাদের মুক্তি দাবিতে শুরু থেকেই বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছিল সহপাঠীরা। এতে যোগ দেয় বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষও। এসব কর্মসূচি থেকে মেজর (অব.) সিনহা মো. রাশেদ খানের হত্যার ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি উঠে আসে। পাশাপাশি দুই শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারকে সামাজিকভাবে নিরাপত্তা প্রদানে সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। তারা বলেন, জামিন দিয়ে কোনো আইনি জটিলতা পাকিয়ে রাখা যাবে না। মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে।

ঘটনাপ্রবাহ : মেজর সিনহার মৃত্যু

আরও

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত