jugantor
ঢামেকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ রাব্বী হল বন্ধ

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪, ০০:০০:০০  | 

রাজধানীর বকশীবাজারে ঢাকা মেডিকেল কলেজের আবাসিক ছাত্রাবাসে বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষের পর ডা. ফজলে রাব্বী হল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। রাত ৯টায় হল খালি করে দেয়া হয়। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ খোলা রয়েছে। ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকদের সংঘর্ষের জের ধরে হল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক তাসনীম হোসেন জানান, সম্প্রতি ছাত্রদলের কিছু কর্মী ছাত্রলীগে যোগ দেন। তাদের দলে নেয়া না নেয়াকে কেন্দ্র করে মেডিকেল কলেজের সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম সুমন ও সাধারণ সম্পাদক আহাদ বিন কবিরের মধ্যে মতিবিরোধ দেখা দেয়। এ নিয়ে বুধবার রাতে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় সমঝোতার জন্য তারা বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে আবারও বাকবিতণ্ডা শুরু হয় এবং একপর্যায়ে হাতাহাতিতে রূপ নেয়। সাধারণ সম্পাদকের গ্র“প সভাপতির গ্র“পকে ব্যাপক মারধর করে। এতে দুই পক্ষের ২০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে হুমায়ুন ইসলাম সুমন, শেখ আল আমিন, রবিন, তাসনীম আহমেদ, সৌবিক রায়, তারেক, সবুজ ও ইফতেখার হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

সংঘর্ষের পর হাসপাতালের অধ্যক্ষ ইসমাইল খান ফজলে রাব্বী হলে যান। তিনি আরও সংঘর্ষ এড়াতে রাত ৯টার মধ্যে ছাত্রদের হল ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। তিনি আরও জানান, শনিবার সকাল ৮টায় কলেজে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। বৈঠকে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে হল খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। তিনি আরও জানান, কলেজ যথারীতি খোলা থাকবে এবং সব ক্লাস ও পরীক্ষা পূর্বনির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

হল বন্ধ করে দেয়ায় সাধারণ ছাত্ররা বিপাকে পড়েন। সব ছাত্রকে হল ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে দেখা গেছে। ছাত্রদের অনেকে রাতেই হল ছেড়ে আত্মীয়স্বজনের বাসা ও কেউ কেউ আবাসিক হোটেলে উঠেছেন। বকশীবাজার এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

চকবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুল হক যুগান্তরকে জানান, দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ফজলে রাব্বী হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ছাত্রদের হল ছাড়তে নির্দেশ দেয়ার পর রাতেই ফজলে রাব্বী হল খালি হয়ে গেছে। বকশীবাজার এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।



সাবমিট

ঢামেকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ রাব্বী হল বন্ধ

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪, ১২:০০ এএম  | 
রাজধানীর বকশীবাজারে ঢাকা মেডিকেল কলেজের আবাসিক ছাত্রাবাসে বৃহস্পতিবার ছাত্রলীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষের পর ডা. ফজলে রাব্বী হল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। রাত ৯টায় হল খালি করে দেয়া হয়। তবে ঢাকা মেডিকেল কলেজ খোলা রয়েছে। ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সমর্থকদের সংঘর্ষের জের ধরে হল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সংঘর্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৮ জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ ছাত্রলীগের দফতর সম্পাদক তাসনীম হোসেন জানান, সম্প্রতি ছাত্রদলের কিছু কর্মী ছাত্রলীগে যোগ দেন। তাদের দলে নেয়া না নেয়াকে কেন্দ্র করে মেডিকেল কলেজের সভাপতি হুমায়ুন ইসলাম সুমন ও সাধারণ সম্পাদক আহাদ বিন কবিরের মধ্যে মতিবিরোধ দেখা দেয়। এ নিয়ে বুধবার রাতে তাদের মধ্যে বাকবিতণ্ডা ও হাতাহাতি হয়। বৃহস্পতিবার বেলা ৩টায় সমঝোতার জন্য তারা বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের মধ্যে আবারও বাকবিতণ্ডা শুরু হয় এবং একপর্যায়ে হাতাহাতিতে রূপ নেয়। সাধারণ সম্পাদকের গ্র“প সভাপতির গ্র“পকে ব্যাপক মারধর করে। এতে দুই পক্ষের ২০ জন আহত হন। আহতদের মধ্যে হুমায়ুন ইসলাম সুমন, শেখ আল আমিন, রবিন, তাসনীম আহমেদ, সৌবিক রায়, তারেক, সবুজ ও ইফতেখার হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।

সংঘর্ষের পর হাসপাতালের অধ্যক্ষ ইসমাইল খান ফজলে রাব্বী হলে যান। তিনি আরও সংঘর্ষ এড়াতে রাত ৯টার মধ্যে ছাত্রদের হল ত্যাগ করার নির্দেশ দেন। তিনি আরও জানান, শনিবার সকাল ৮টায় কলেজে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। বৈঠকে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে হল খোলার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। তিনি আরও জানান, কলেজ যথারীতি খোলা থাকবে এবং সব ক্লাস ও পরীক্ষা পূর্বনির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে।

হল বন্ধ করে দেয়ায় সাধারণ ছাত্ররা বিপাকে পড়েন। সব ছাত্রকে হল ছেড়ে অন্যত্র চলে যেতে দেখা গেছে। ছাত্রদের অনেকে রাতেই হল ছেড়ে আত্মীয়স্বজনের বাসা ও কেউ কেউ আবাসিক হোটেলে উঠেছেন। বকশীবাজার এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

চকবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুল হক যুগান্তরকে জানান, দুই পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় ফজলে রাব্বী হল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ছাত্রদের হল ছাড়তে নির্দেশ দেয়ার পর রাতেই ফজলে রাব্বী হল খালি হয়ে গেছে। বকশীবাজার এলাকায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।



 
শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র