সরকারের হাতে খালেদা জিয়াকে দুনিয়া থেকে সরানোর নীলনকশা: রিজভী

  যুগান্তর রিপোর্ট ১০ জুলাই ২০১৯, ১৪:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

সরকারের হাতে খালেদা জিয়াকে দুনিয়া থেকে সরানোর নীলনকশা: রিজভী
সংবাদ সম্মেলনে রিজভী। ফাইল ছবি

কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে হত্যার নীলনকশা সরকার করে রেখেছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, দেশের মানুষের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী খালেদা জিয়াকে দুনিয়া থেকে সরিয়ে দেয়ার নীলনকশা তৈরি করেছে সরকার। এ জন্য তাকে মিথ্যা মামলায় ক্ষমতার মত্ততায় দেড় বছর বন্দি রাখা হয়েছে। তার জামিনে বাধা সৃষ্টি করা হচ্ছে।

খালেদা জিয়া অসুস্থ উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশনেত্রী গুরুতর অসুস্থ। তার জামিনে এখন সরাসরি বাধা দিচ্ছেন মিডনাইট নির্বাচনের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আদালতে হস্তক্ষেপ করার পাশাপাশি দেশনেত্রীর আইনজীবীদেরও আইনি পদক্ষেপ নিতে বাধা দেয়া হচ্ছে। এমনকি দেশনেত্রীর ওকালতনামায় স্বাক্ষর করতে দেয়া হচ্ছে না। এর মাধ্যমে একজন নাগরিক হিসেবে সংবিধান প্রদত্ত আইনি অধিকার থেকেও তাকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এর থেকে জুলুম আর কি হতে পারে? এখানেই প্রমাণিত হয়-কর্তৃত্ববাদী সরকারের হাতের মুঠোয় থাকে রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান।

খালেদা জিয়ার আশু মুক্তি দাবি করে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে রিজভী বলেন, আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলব-মধ্যরাতের নির্বাচনে মিথ্যা জয়ের অহংকারে আর কত জুলুম করবেন ৭৪ বছর বয়সী একজন মহীয়সী বয়স্ক নারীকে? আর কতদিনে মিটবে আপনার নির্দয় প্রতিহিংসার তৃষ্ণা? আমি এ মুহূর্তে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও তার নিঃশর্ত মুক্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী ও অ্যাডভোকেট আহমেদ আযম খান।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×