মেয়র হলে আনিসুল হকের অসমাপ্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো: আদম তমিজি
jugantor
মেয়র হলে আনিসুল হকের অসমাপ্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো: আদম তমিজি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

১৬ জানুয়ারি ২০১৮, ১৮:২৬:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

আদম তমিজি হক

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের হয়ে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন ‘হক গ্রুপ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হক। দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের মুখোমুখি হয়ে নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছেন তিনি।

যুগান্তর: নতুন করে রাজনীতিতে নাম লেখালেন কেন?
আদম তমিজি হক:
আমি রাজনীতি নিয়ে পড়ালেখা করেছি। অনেক আগে থেকেই আমার রাজনীতিতে যোগদানের ইচ্ছা ছিল। প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে গত ১১ বছর ধরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে সম্পৃক্ত আছি। শুধু তাই নয়, আমি গর্বের সাথে বলি আমার বাবা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কাছের মানুষ ছিলেন। ব্যবসায়ী হিসেবে বিভিন্নভাবে সাধারণ মানুষের সেবা করতে চেষ্টা করেছি। তা আরও বৃহৎ পরিসরে করা এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জনগণের সেবা করার ইচ্ছা থেকে আমার রাজনীতিতে আসা।

যুগান্তর: আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আপনি কতটা আশাবাদী?
আদম তমিজি হক:
মনোনয়নের ব্যাপারে জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। আমি জনসাধারণের সাথে কাজ আগেও করেছি, কাজগুলোকে আরও গতিশীল করার জন্য মেয়র হিসেবে কাজ করতে চাই। আমি আশাবাদী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আমার অংশগ্রহণ ও একাত্মতা মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিবেচনায় আনবেন।

যুগান্তর: যদি আওয়ামীলীগ আপনাকে মনোনয়ন না দেয় সে ক্ষেত্রে কি করবেন?
আদম তমিজি হক:
মনোনয়ন না পেলে ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় কাজ করে যাবো, যেমনটা আগেও করে এসেছি। একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে নেত্রীর সিদ্ধান্তকে প্রাধান্য দিব এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিক নির্দেশনা মেনে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবো ইনশাআল্লাহ্‌। অবশ্যই দলীয় মনোনীত পদপ্রার্থীকে জয়ী করতে সর্বাধিক সহায়তা করবো।

যুগান্তর: উপনির্বাচন কতটা প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হবে?
আদম তমিজি হক:
উপনির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হবেই। বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা এবং ফলাফলের ওপর আপামর জনগণের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, তাই দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এই নির্বাচনে নৌকার জয়ই জনগণের জয়।

যুগান্তর: রংপুরে সম্প্রতি নির্বাচনে আওয়ামীলীগ-বিএনপি ভাল ফলাফল করেনি বলে এখানেও তাদের একই অবস্থা হবে বলা হচ্ছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
আদম তমিজি হক:
রংপুরের নির্বাচনের মত সুস্থ ও সুন্দর নির্বাচন আমাদের ঢাকা উত্তরের ক্ষেত্রেও কাম্য, যা কিনা ছিল সরকারের নিরপেক্ষতার উজ্জল দৃষ্টান্ত। যেহেতু প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক সাহেবের নগর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনগণ সাদরে গ্রহণ করেছেন, সেহেতু এই উন্নয়নের ধারা তরান্বিত করার জন্যে জনগণ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীকেই জয়ী করবে।

যুগান্তর: নির্বাচনে আপনার নাম আসার পর কেমন সাড়া পাচ্ছেন?
আদম তমিজি হক:
সাধারন মানুষ আমাকে আন্তরিকভাবে গ্রহণ করছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও সরাসরি আমার সাথে অনেকেই সাক্ষাৎ করেছে এবং সক্রিয় অংশগ্রহণ করে পাশে থাকছে।

যুগান্তর: আপনার নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি কি কি?
আদম তমিজি হক:
ঢাকা উত্তর নিয়ে নগর উন্নয়ন বাস্তবায়নে জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনার পাশাপাশি প্রয়াত আনিসুল হকের অসমাপ্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো। আমার ব্যাক্তিগত কর্মপরিকল্পনাগুলো পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাবো। যেমন- সুবিধাবঞ্ছিতদের জন্য সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর বাসযোগ্য পরিবেশ প্রদান করা; নাগরিকদের জীবনকে সচল করতে পরিকল্পিত এবং আন্তর্জাতিক মানের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা; জলাবদ্ধতা নিরসন এবং পয়োঃনিষ্কাশনের সুব্যবস্থার মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন পরিবেশ নিশ্চিতকরণ; আবদ্ধ জলাশয়গুলোকে ব্যবহারযোগ্য রূপ প্রদান; সবুজ শ্যামল বাসযোগ্য একটি নগরী হিসেবে গড়ে তোলা ইত্যাদি।

যুগান্তর: নির্বাচন করার সুযোগ পেলে পরাজিত হলে আপনি কি নির্বাচন মেনে নেবেন?
আদম তমিজি হক:
নির্বাচন করার সুযোগ পেলে আমরা জয়ী হবো ইনশাআল্লাহ্‌।

মেয়র হলে আনিসুল হকের অসমাপ্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো: আদম তমিজি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
১৬ জানুয়ারি ২০১৮, ০৬:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আদম তমিজি হক
‘হক গ্রুপ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হক

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগের হয়ে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে দলীয় মনোনয়ন ফরম কিনেছেন ‘হক গ্রুপ’-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হক। দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের মুখোমুখি হয়ে নির্বাচন নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেছেন তিনি। 

যুগান্তর: নতুন করে রাজনীতিতে নাম লেখালেন কেন?
আদম তমিজি হক:
আমি রাজনীতি নিয়ে পড়ালেখা করেছি। অনেক আগে থেকেই আমার রাজনীতিতে যোগদানের ইচ্ছা ছিল। প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে গত ১১ বছর ধরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাথে সম্পৃক্ত আছি। শুধু তাই নয়, আমি গর্বের সাথে বলি আমার বাবা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কাছের মানুষ ছিলেন। ব্যবসায়ী হিসেবে বিভিন্নভাবে সাধারণ মানুষের সেবা করতে চেষ্টা করেছি। তা আরও বৃহৎ পরিসরে করা এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে জনগণের সেবা করার ইচ্ছা থেকে আমার রাজনীতিতে আসা।

যুগান্তর: আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন পাওয়ার ব্যাপারে আপনি কতটা আশাবাদী?
আদম তমিজি হক:
মনোনয়নের ব্যাপারে জননেত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত। আমি জনসাধারণের সাথে কাজ আগেও করেছি, কাজগুলোকে আরও গতিশীল করার জন্য মেয়র হিসেবে কাজ করতে চাই। আমি আশাবাদী জননেত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ আমার অংশগ্রহণ ও একাত্মতা মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিবেচনায় আনবেন। 

যুগান্তর: যদি আওয়ামীলীগ আপনাকে মনোনয়ন না দেয় সে ক্ষেত্রে কি করবেন?
আদম তমিজি হক:
মনোনয়ন না পেলে ব্যক্তিগত প্রচেষ্টায় কাজ করে যাবো, যেমনটা আগেও করে এসেছি। একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে নেত্রীর সিদ্ধান্তকে প্রাধান্য দিব এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দিক নির্দেশনা মেনে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড অব্যাহত রাখবো ইনশাআল্লাহ্‌। অবশ্যই দলীয় মনোনীত পদপ্রার্থীকে জয়ী করতে সর্বাধিক সহায়তা করবো।

যুগান্তর: উপনির্বাচন কতটা প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হবে?
আদম তমিজি হক:
উপনির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বীতাপূর্ণ হবেই। বর্তমান সরকারের পরিকল্পনা এবং ফলাফলের ওপর আপামর জনগণের পূর্ণ আস্থা রয়েছে, তাই দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি এই নির্বাচনে নৌকার জয়ই জনগণের জয়।

যুগান্তর: রংপুরে সম্প্রতি নির্বাচনে আওয়ামীলীগ-বিএনপি ভাল ফলাফল করেনি বলে এখানেও তাদের একই অবস্থা হবে বলা হচ্ছে। আপনিও কি তাই মনে করেন?
আদম তমিজি হক:
রংপুরের নির্বাচনের মত সুস্থ ও সুন্দর নির্বাচন আমাদের ঢাকা উত্তরের ক্ষেত্রেও কাম্য, যা কিনা ছিল সরকারের নিরপেক্ষতার উজ্জল দৃষ্টান্ত। যেহেতু প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক সাহেবের নগর উন্নয়ন কর্মকাণ্ড জনগণ সাদরে গ্রহণ করেছেন, সেহেতু এই উন্নয়নের ধারা তরান্বিত করার জন্যে জনগণ আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থীকেই জয়ী করবে।

যুগান্তর: নির্বাচনে আপনার নাম আসার পর কেমন সাড়া পাচ্ছেন?
আদম তমিজি হক:
সাধারন মানুষ আমাকে আন্তরিকভাবে গ্রহণ করছেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ও সরাসরি আমার সাথে অনেকেই সাক্ষাৎ করেছে এবং সক্রিয় অংশগ্রহণ করে পাশে থাকছে।

যুগান্তর: আপনার নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি কি কি?
আদম তমিজি হক:
ঢাকা উত্তর নিয়ে নগর উন্নয়ন বাস্তবায়নে জননেত্রী শেখ হাসিনার পরিকল্পনার পাশাপাশি প্রয়াত আনিসুল হকের অসমাপ্ত কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবো। আমার ব্যাক্তিগত কর্মপরিকল্পনাগুলো পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে এগিয়ে নিয়ে যাবো। যেমন- সুবিধাবঞ্ছিতদের জন্য সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করার পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর বাসযোগ্য পরিবেশ প্রদান করা; নাগরিকদের জীবনকে সচল করতে পরিকল্পিত এবং আন্তর্জাতিক মানের ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা; জলাবদ্ধতা নিরসন এবং পয়োঃনিষ্কাশনের সুব্যবস্থার  মাধ্যমে পরিচ্ছন্ন পরিবেশ নিশ্চিতকরণ; আবদ্ধ জলাশয়গুলোকে ব্যবহারযোগ্য রূপ প্রদান; সবুজ শ্যামল বাসযোগ্য একটি নগরী হিসেবে গড়ে তোলা ইত্যাদি।

যুগান্তর: নির্বাচন করার সুযোগ পেলে পরাজিত হলে আপনি কি নির্বাচন মেনে নেবেন?
আদম তমিজি হক:
নির্বাচন করার সুযোগ পেলে আমরা জয়ী হবো ইনশাআল্লাহ্‌।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন