বিদেশে আছি বলে যা ইচ্ছা তাই করছেন: সিদ্দিকী নাজমুলের ক্ষোভ

  যুগান্তর ডেস্ক ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১২:৪৮:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

সিদ্দিকী নাজমুল আলম। ফাইল ছবি

ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকী নাজমুল আলম ক্ষোভ প্রকাশ করে সামাজিকমাধ্যম ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

সম্পতি নিজের ফেরিভায়েড আইডি থেকে দেয়া ওই স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে দেয়া হলো–

‘বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যখন বিরোধী দলে ছিল, ১/১১-তে নেত্রী যখন কারাগারে ছিলেন, তখন আজকের অনেক ক্ষমতাবান মাননীয়রা (যদিও আমি কেয়ার করি না) আমেরিকা, লন্ডন, কানাডা, সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক থাকলেন।

এমনকি রাজনীতির আশপাশেও আসতেন না, আর আমরা তখন রাজপথ দাবড়াইয়া বেড়াইছি। হরতালে পিকেটিং, মিছিল সমাবেশ ছিল আমাদের নিত্যদিনের সঙ্গী!

আর আপনারা? মাইক্রোস্কোপ দিয়েও পাওয়া যেত না আপনাদের অস্তিত্ব।

আবার ২০১৪ সালের ইলেকশনের আগেও জ্বালাও-পোড়াও দেখে ভাগছিলেন উনারা।

দল আজ ক্ষমতায়, এখন আপনারা পুরো দলের মাতবর সেজে গেছেন, যা ইচ্ছা তাই করতেছেন নেত্রীর (শেখ হাসিনা) চোখ ফাঁকি দিয়ে।

দলের সুসময়ে দালালি বাদ দিয়ে বিদেশে আছি বলে যা ইচ্ছা তাই বলতেছেন এবং করতেছেন।

তবে নেত্রীর চোখ বেশিদিন ফাঁকি দিতে পারবেন না। কারণ শেখ হাসিনা সবসময় ভণ্ড, চাটুকার, মিথ্যা তথ্য প্রদানকারী, দলে
বিভাজনকারী, দলীয় পদ বিক্রয়কারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাটা অত্যন্ত কৌশলে নিয়ে থাকেন এবং যখন আছাড়টা মারবে, তখনই বুঝবেন। অবশ্য ততদিনে মাল কামিয়ে আবার আগের জায়গাতেই চলে যাবেন।

আরেকটা কথা আল্লাহ না করুক– আমাদের দল যদি আবার কোনোদিন বিরোধী দলে আসে (কখনও কামনা করি না), তখন আমরাই আবার রাজপথে ঘাম ঝরাব। আর তখন আপনারা আবার বিদেশে বসে ব্রো মারাবেন এবং অরাজনৈতিক ব্যক্তি সেজে যাবেন।

আর কারা কোন জমিদার ছিলেন, তাও কিন্তু অজানা না, সো...

কি বিশ্বাস হচ্ছে না? লাগবা বাজি?

অনুপ্রবেশকারীরা যেমন ক্ষতিকর দুধের মাছিরা অসম্ভব ক্ষতিকর।’

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত