১৯ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
jugantor
১৯ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
আজ নানা কর্মসূচি

  শেকৃবি সংবাদদাতা  

১৫ জুলাই ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

১৯ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আজ (১৫ জুলাই) ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। হাঁটি-হাঁটি পা-পা করে ১৯ বছরে পদার্পণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৩৮ সালের ১১ ডিসেম্বর দি বেঙ্গল কৃষি ইন্সটিটিউট নামে প্রতিষ্ঠিত হয়।

তৎকালীন অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরেবাংলা একে ফজলুল হক এটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠানটি এ অঞ্চলের প্রথম কৃষি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ১৯৪৭ সালে এটির নাম পূর্ব পাকিস্তান কৃষি ইন্সটিটিউট করা হয়।

পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এর নাম বাংলাদেশ কৃষি ইন্সটিটিউট করা হয়। ২০০১ সালের ১৫ জুলাই এ প্রতিষ্ঠানকে ইন্সটিটিউট থেকে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় নগরীর শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৩০৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা, চারটি অনুষদের ৩৫টি বিভাগে ৩৬০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে।

এ ছাড়া পাঁচটি আবাসিক হল, অত্যাধুনিক লাইব্রেরি, কেন্দ্রীয় গবেষণা মাঠ, মন্দির, মসজিদ, ফার্ম ও একটি বিশাল খেলার মাঠ রয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আজ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, সকাল ১০টায় একাডেমিক ভবনসংলগ্ন স্বাধীনতা চত্বরে জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ।

এরপর সকাল সাড়ে ১০টায় ভিসি পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন। তারপর আনন্দ র‌্যালি ও কেক কাটা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে গৃহীত অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ। এ ছাড়া, বিকাল ৩টায় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ছাত্রদের প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

ভিসি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, দেশে সক্ষম তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ কৃষিবিদ এবং কৃষিবিজ্ঞানী তৈরি করাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।

বাংলাদেশে উচ্চতর কৃষি শিক্ষার বিস্তারের মাধ্যমে দেশে কৃষি উন্নয়নের গুরু দায়িত্ব পালন করবেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষিবিদ ও কৃষিবিজ্ঞানীরা। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কৃষি গবেষণার যথাযথ প্রচার ও প্রসারের জন্য বিশেষ অবদান রেখে চলেছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যায়ের সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গবেষণার প্রকল্প চুক্তি হচ্ছে। ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাথে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক নেটওয়ার্ক তৈরি হচ্ছে।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশে একটি মডেল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রূপান্তরিত হবে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে যেসব ঘাটতি রয়েছে তা পূরণ করার চেষ্টা করছি। এ ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চান তিনি।

১৯ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

আজ নানা কর্মসূচি
 শেকৃবি সংবাদদাতা 
১৫ জুলাই ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
১৯ বছরে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়
শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইল ছবি

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের আজ (১৫ জুলাই) ১৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। হাঁটি-হাঁটি পা-পা করে ১৯ বছরে পদার্পণ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৩৮ সালের ১১ ডিসেম্বর দি বেঙ্গল কৃষি ইন্সটিটিউট নামে প্রতিষ্ঠিত হয়।

তৎকালীন অবিভক্ত বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শেরেবাংলা একে ফজলুল হক এটি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠানটি এ অঞ্চলের প্রথম কৃষি শিক্ষা ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান। ১৯৪৭ সালে এটির নাম পূর্ব পাকিস্তান কৃষি ইন্সটিটিউট করা হয়।

পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর এর নাম বাংলাদেশ কৃষি ইন্সটিটিউট করা হয়। ২০০১ সালের ১৫ জুলাই এ প্রতিষ্ঠানকে ইন্সটিটিউট থেকে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরিত করেন তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় নগরীর শেরেবাংলা নগরে অবস্থিত। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ৩০৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা, চারটি অনুষদের ৩৫টি বিভাগে ৩৬০০ শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছে।

এ ছাড়া পাঁচটি আবাসিক হল, অত্যাধুনিক লাইব্রেরি, কেন্দ্রীয় গবেষণা মাঠ, মন্দির, মসজিদ, ফার্ম ও একটি বিশাল খেলার মাঠ রয়েছে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আজ বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এসব কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, সকাল ১০টায় একাডেমিক ভবনসংলগ্ন স্বাধীনতা চত্বরে জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও শেরেবাংলা একে ফজলুল হকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ।

এরপর সকাল সাড়ে ১০টায় ভিসি পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন। তারপর আনন্দ র‌্যালি ও কেক কাটা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে গৃহীত অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষি অনুষদে আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণ। এ ছাড়া, বিকাল ৩টায় কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ছাত্রদের প্রীতি ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

ভিসি অধ্যাপক ড. কামাল উদ্দিন আহাম্মদ বলেন, দেশে সক্ষম তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক জ্ঞানসম্পন্ন দক্ষ কৃষিবিদ এবং কৃষিবিজ্ঞানী তৈরি করাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।

বাংলাদেশে উচ্চতর কৃষি শিক্ষার বিস্তারের মাধ্যমে দেশে কৃষি উন্নয়নের গুরু দায়িত্ব পালন করবেন এ বিশ্ববিদ্যালয়ের কৃষিবিদ ও কৃষিবিজ্ঞানীরা। শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কৃষি গবেষণার যথাযথ প্রচার ও প্রসারের জন্য বিশেষ অবদান রেখে চলেছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যায়ের সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গবেষণার প্রকল্প চুক্তি হচ্ছে। ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাথে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈশ্বিক নেটওয়ার্ক তৈরি হচ্ছে।

শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশে একটি মডেল বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রূপান্তরিত হবে। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে যেসব ঘাটতি রয়েছে তা পূরণ করার চেষ্টা করছি। এ ক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চান তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন