টাঙ্গাইল-৩: এমপি রানার বাবার মনোনয়ন নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া
jugantor
টাঙ্গাইল-৩: এমপি রানার বাবার মনোনয়ন নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

  টাঙ্গাইল প্রতিনিধি  

২০ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি রানার বাবার আতাউর রহমান খান

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানা আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন না পেলেও আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন তার বাবা আতাউর রহমান খান। তিনি সোনালী ব্যাংকের সাবেক উপ-মহাব্যবস্থাপক।

বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। এতে উজ্জীবিত এমপি রানার সমর্থকরা। তবে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে তার বিরোধীরা। এমপি আমানুর রহমান খান রানা টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় ২৬ মাস ধরে কারাগারে রয়েছেন।

মনোনয়ন পাওয়ার খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফারুক আহমেদ হত্যার বিচারের দাবিতে সক্রিয় থাকা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতাকর্মী জানান, ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত হয়ে এমপি রানা ও তার ভাইয়েরা চার বছর ধরে টাঙ্গাইল ছাড়া হয়েছেন। সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য, টেন্ডার সব নিয়ন্ত্রণ করত রানা ‘খান পরিবার’।

এই মনোনয়ন পাওয়ার মধ্য দিয়ে তাদের আবার টাঙ্গাইলের রাজনীতিতে ফিরে আসার সম্ভাবনার সৃষ্টি হল। এ ব্যাপারে নিহত ফারুক আহমেদের স্ত্রী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাহার আহমেদ কোনো মন্তব্য করেননি।

ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও মনোনয়ন প্রত্যাশী শহিদুল ইসলাম লেবু জানান, আতাউর রহমান খানের মনোনয়নের সিদ্ধান্ত যদি হয়ে থাকে, তবে তা সঠিক হয়নি। এতে তৃণমূলের মতামত প্রতিফলিত হয়নি। এ ব্যাপারে তিনি সিদ্ধান্তটি পুনরায় বিবেচনার জন্য দলের প্রতি দাবি জানান।

ঘাটাইল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম (ভিপি শহিদ) জানান, দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে তার পক্ষেই কাজ করব। রানা এমপির চেয়ে তার বাবা আতাউর রহমান খানকে মনোনয়ন দেয়ায় সহজেই নৌকার এ আসনে বিজয় হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।

টাঙ্গাইল-৩: এমপি রানার বাবার মনোনয়ন নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

 টাঙ্গাইল প্রতিনিধি 
২০ নভেম্বর ২০১৮, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি রানার বাবার আতাউর রহমান খান
টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি রানার বাবার আতাউর রহমান খান। ছবি: যুগান্তর

টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের এমপি আমানুর রহমান খান রানা আওয়ামী লীগ দলীয় মনোনয়ন না পেলেও আগামী একাদশ সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পাচ্ছেন তার বাবা আতাউর রহমান খান। তিনি সোনালী ব্যাংকের সাবেক উপ-মহাব্যবস্থাপক।

বর্তমানে তিনি জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। এতে উজ্জীবিত এমপি রানার সমর্থকরা। তবে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে তার বিরোধীরা। এমপি আমানুর রহমান খান রানা টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় ২৬ মাস ধরে কারাগারে রয়েছেন।

মনোনয়ন পাওয়ার খবরে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফারুক আহমেদ হত্যার বিচারের দাবিতে সক্রিয় থাকা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক নেতাকর্মী জানান, ফারুক আহমেদ হত্যা মামলায় অভিযুক্ত হয়ে এমপি রানা ও তার ভাইয়েরা চার বছর ধরে টাঙ্গাইল ছাড়া হয়েছেন। সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ব্যবসা বাণিজ্য, টেন্ডার সব নিয়ন্ত্রণ করত রানা ‘খান পরিবার’।

এই মনোনয়ন পাওয়ার মধ্য দিয়ে তাদের আবার টাঙ্গাইলের রাজনীতিতে ফিরে আসার সম্ভাবনার সৃষ্টি হল। এ ব্যাপারে নিহত ফারুক আহমেদের স্ত্রী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক নাহার আহমেদ কোনো মন্তব্য করেননি।

ঘাটাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও মনোনয়ন প্রত্যাশী শহিদুল ইসলাম লেবু জানান, আতাউর রহমান খানের মনোনয়নের সিদ্ধান্ত যদি হয়ে থাকে, তবে তা সঠিক হয়নি। এতে তৃণমূলের মতামত প্রতিফলিত হয়নি। এ ব্যাপারে তিনি সিদ্ধান্তটি পুনরায় বিবেচনার জন্য দলের প্রতি দাবি জানান।

ঘাটাইল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও পৌর মেয়র শহিদুল ইসলাম (ভিপি শহিদ) জানান, দল যাকে মনোনয়ন দিয়েছে তার পক্ষেই কাজ করব। রানা এমপির চেয়ে তার বাবা আতাউর রহমান খানকে মনোনয়ন দেয়ায় সহজেই নৌকার এ আসনে বিজয় হবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।