সত্যি নাকি গল্প

এক বলে ২৮৬ রান

  যুগান্তর ডেস্ক    ২১ জানুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ক্রিকেট দেখার অভিজ্ঞতা থেকে বলুন তো, এক বলে সর্বোচ্চ কত রান হতে পারে? উত্তরটা দুই অঙ্ক ছাড়াবে না বলে বিশ্বাস। কারণ আধুনিক ক্রিকেটে একটি নির্দিষ্ট বলে সর্বোচ্চ চার-ছয়ের বাইরে আর কতই বা হতে পারে। দুই ব্যাটসম্যান দৌড়ে নিলেও তিন বা চারের বেশি নিতে পারবেন না। ওভার থ্রো বা অন্যান্য অস্বাভাবিক কারণে পাঁচ-ছয় রানও হতে পারে। কিন্তু ক্রিকেটে এক বলে ২৮৬ রান নেয়ার ঘটনা ঘটেছে। অবাক হওয়ার মতোই ঘটনা। অভাবনীয় হলেও এ ব্যাপারে সংবাদপত্রভিত্তিক প্রমাণ আছে ক্রিকেট দুনিয়ার সামনে।

প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেট অবশ্য এক বলে ১০ রানের বেশি স্বীকার করে না। মানে, এক বলে সর্বোচ্চ ১০ রান নেয়া হয়েছিল বলেই প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটের আনুষ্ঠানিক নথিপত্রে লিপিবদ্ধ আছে। ইংল্যান্ডের ফোর সাময়িকীর ফিচারে সামারভিল গিবনে নামের এক ক্রিকেট লেখক বলেন, ‘ক্রিকেটে এক বলে সর্বোচ্চ ৯৩ রান নেয়ার ঘটনাও আছে।’ কিন্তু লন্ডন থেকে প্রকাশিত ‘পলমল গেজেট’ নামের একটি পত্রিকা ১৮৯৪ সালের ১৫ জানুয়ারি সংখ্যায় এক বলে ২৮৬ রানের অবিশ্বাস্য খবরটা প্রকাশ করে।

১৮৬৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার ঘটনা। পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া বনাম ভিক্টোরিয়ার একটি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচে এ ঘটনাটি ঘটে। খেলাটি এমন মাঠে হচ্ছিল যার মধ্যে একটি বড় গাছের কিছু অংশ এসে পড়েছিল। আর এ কারণেই অবিশ্বাস্য ঘটনাটি ঘটে। ম্যাচের প্রথম বলেই ভিক্টোরিয়ার ব্যাটসম্যানের শটে বল সোজা গাছে গিয়ে আশ্রয় নেয়। এ সময় পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার খেলোয়াড়েরা আম্পায়ারের কাছে বল হারিয়ে যাওয়ার কথা জানালেও আম্পায়ার তাতে রাজি হননি। কারণ গাছের ডালে আটকে থাকা বলটি খুব ভালোভাবেই চোখে পড়ছিল আম্পায়ারের। এমন ফ্যাসাদের মধ্যেই ভিক্টোরিয়ার দুই ব্যাটসম্যান রান তোলার ম্যারাথন প্রচেষ্টায় নামেন। দুই ব্যাটসম্যান হাঁপিয়ে যাওয়ার আগ পর্যন্ত নিজেদের মধ্যে জায়গা বদল করতে থাকেন। থামার পর দেখেন তারা দুজন নিজেদের মধ্যে জায়গা বদল করেছেন ২৮৬ বার। এ হিসেবে তারা দৌড়েছেন প্রায় ৬ কিলোমিটার।

গাছ থেকে বল নামাতে মূল দেরিটা হয়েছে কুড়াল খুঁজতে গিয়ে। বলটা দুটি ডালের মধ্যে এমন একটা জায়গায় আটকে ছিল যা বের করতে কুড়ালের প্রয়োজন দেখা দেয়। কিন্তু পশ্চিম অস্ট্রেলিয়া দলের লোকজন ঠিক ওই মুহূর্তে কুড়াল খুঁজে পাচ্ছিলেন না কোথাও। কুড়াল খুঁজে পেতে পেতেই ২৮৬ রান নেয়া হয়ে যায় ভিক্টোরিয়ানদের। তাদের আফসোস হয়তো ছিল, ইশ্ ৩০০ রান করা গেল না! ঘটনা এখানেই শেষ নয়। এক বলে ২৮৬ রান করার পরপরই ইনিংস ঘোষণা করে দেয় ভিক্টোরিয়া। ইনিংসে মাত্র এক বল হওয়ার এই ঘটনাও ক্রিকেটে একটা রেকর্ড। ভিক্টোরিয়া এই ম্যাচটি জিতেও ছিল।

পলমল গেজেটে প্রকাশিত এ ঘটনাটি নিয়ে কিন্তু যথেষ্ট বিতর্কও আছে। সবচেয়ে বড় বিতর্ক হল- ঘটনাস্থল অস্ট্রেলিয়া হলেও সংবাদটি সেখানের কোনো স্থানীয় পত্রিকায় কেন আগে প্রকাশিত হল না। পলমল গেজেটে সংবাদটি প্রকাশের প্রায় দুই মাস পর এ সংক্রান্ত একটি সংবাদ ছাপে পার্থের একটি পত্রিকা। সেখানে বলা হয়, ‘কোনো এক রূপকথার লেখক লন্ডনে বসে গাঁজায় টান দিয়ে সংবাদটি তৈরি করেছেন।’ পলমল গেজেট অবশ্য ওই পত্রিকাটির বক্তব্যের প্রতিবাদ করেছিল। প্রমাণ না পাওয়ায় গিনেস বুকে স্থান মেলেনি এ রেকর্ডের। তবে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে লিপিবদ্ধ এক বলে সর্বোচ্চ রান ১৭। অস্ট্রেলিয়ার একটি ক্লাব ম্যাচে সংঘটিত এ ঘটনার পূর্ণ বিবরণ লেখা আছে ১৯৯২ সালের গিনেস বুক সংস্করণে।

সালমান রিয়াজ

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×