চিনির বিকল্প

  লাইফস্টাইল ডেস্ক ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চিনিগো’।
চিনিগো’। ছবি সংগৃহীত

মিষ্টি পছন্দ করেন না বা চিনিপ্রেম নেই এমন মানুষ মেলা ভার। তবে মনে মনে মিষ্টির প্রতি প্রেম থাকলেও ডায়াবেটিস আর ওজন বাড়ার ভয়ে সেই প্রেম আর জমে ওঠে না। কারণ মিষ্টির পেছনে আছে চিনি। আর নিত্যদিনের প্রিয় আহার চা, কফি, শরবত, ডেজার্টজাতীয় খাবার মানেই চিনি। চিনি ছাড়া এসব খাবার ভাবা যায় না একদমই। কিন্তু ক্ষতিকর প্রভাবের কারণে চিনিকে খাদ্যতালিকা থেকে বাদ দিচ্ছেন অনেকেই। স্বাস্থ্য সচেতন হতে গিয়ে অনেকেই মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন চিনির মিষ্টতা থেকে। চিনি নিয়ে দ্বিধা আর প্রশ্নের বেড়াজালে আটকে যাচ্ছে মিষ্টির স্বাদ।

স্টিভিয়া গাছের পাতা থেকে সংগৃহীত নির্যাস দিয়ে তৈরি করা হয়েছে ‘চিনিগো’। স্টিভিয়া কী? স্টিভিয়া মূলত দক্ষিণ আমেরিকা অঞ্চলের একটি ভেষজ উদ্ভিদ। স্থানীয়ভাবে দীর্ঘদিন ধরেই খাবার ও পানীয়তে চিনির বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে স্টিভিয়া। স্টিভিয়া এক্সট্রাক্ট বা রিবিয়ানা নামেও পরিচিত সেখানে।

এর মিষ্টতার পেছনে মূল উপাদান হল বিভিন্ন ধরনের স্টিভিওল গ্লাইকোসাইড (প্রধানত স্টেভিওসাইড ও রিবডিওসাইট)। এসব উপাদানের কারণে স্টিভিয়া সাধারণ চিনির চেয়ে প্রায় ৪০ গুণ বেশি মিষ্টি, তবে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রায় এর কোনো ধরনের প্রভাব নেই। ফলে ডায়াবেটিস রোগীদের জন্যও এটি সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যকর। এর সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হল- এটি পুরোপুরি প্রাকৃতিক উপাদান, কোনোভাবেই কৃত্রিম নয়।

অতিরিক্ত ওজন ঠেকাতে চিনি বাদ দিয়ে অনেকেই অ্যাসপার্টেম, সুক্রালোজ, আর স্টেভিওসাইডের মতো কৃত্রিম মিষ্টবস্তুকে বেছে নিয়েছেন। এখানে সমস্যা হচ্ছে, চিনির চেয়ে এই কৃত্রিম বস্তুগুলোর কেমিক্যাল গঠন আলাদা। জিভে উপস্থিত স্বাদ গ্রহণকারী রিসেপ্টরকে এই উপাদানগুলো জাগিয়ে তোলে, ফলে মস্তিষ্কে মিষ্টি খাওয়ার সংকেত পৌঁছায়।

বেষক মেগান আজাদ গবেষণায় পেয়েছেন, এই পদার্থগুলো শরীরের কোনো ক্ষতি করছে কিনা, সেটি খতিয়ে দেখা হয়নি এতদিন। ব্যবহারকারীরা যে ধরনের শারীরিক সমস্যা নিয়ে আসছেন, তাতে অন্তত এটি পরিষ্কার যে বিষয়টিকে আর হালকাভাবে না নিয়ে গভীরভাবে বিবেচনা করার সময় এসে গেছে।

অনেক ডায়েটিশিয়ানও এটা বলেন, মাঝে মধ্যে খাবারে বা চা-কফিতে সামান্য চিনি খেলে তত ক্ষতি হয় না যতটা লম্বা সময় ধরে কৃত্রিম সুইটনার ব্যবহার করলে হতে পারে। তবে যারা দিনে অন্তত ৫-৭ কাপ চা-কফি পান করেন, তারা ধীরে ধীরে চিনির পরিমাণ কমানোর চেষ্টা করুন, প্রথমদিকে অসুবিধা হলেও পরে দেখবেন চিনিহীন চা-কফিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছেন। বাংলাদেশের বাজারে চিনিগো নিয়ে এসেছে পূর্নাভা লিমিটেড।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×