বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত
jugantor
বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত

  সাইফ আহমাদ  

১৩ অক্টোবর ২০১৯, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হল বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯। সৌজন্যে ছিল আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড।

গতকাল ১২ অক্টোবর, ২০১৯ রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনের গ্র্যান্ড বলরুমে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, এমপি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি ডিভিশনের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক দিদারুল আলম বলেন, এ বছরের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসের আদলে সাজানো হয়েছে।

আয়োজনে ছিল বিগত বছরের বিজয়ীদের প্রকল্প প্রদর্শনী, লেজার শো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পাশাপাশি, নতুন আদলে বানানো আইসিটি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের হাতে তুলে দেয়া হয় আজকের আয়োজনের মধ্য দিয়ে।

আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও মমিনুল ইসলাম বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডের লক্ষ্য হল ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ব্যক্তি, ছাত্র, উদ্যোক্তা, এসএমই এবং বাংলাদেশে পরিচালিত তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য স্বীকৃতি প্রদান করা। আমরা এ উদ্যোগের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদে থাকতে চাই।

সভাপতির বক্তব্যে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসের মাধ্যমে আমরা সারা দেশের উদ্ভাবনী এবং সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি প্রকল্পগুলোকে বাছাই করি এবং উৎসাহ প্রদান করার লক্ষ্যে পুরস্কার প্রদান করি। বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্রকল্পগুলো আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিস্তৃত সম্ভাবনাগুলোই তুলে ধরছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রযাত্রায় বেসিস নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সারা দেশ থেকে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে প্রকল্প বাছাই করে পুরস্কার প্রদান আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্টদের জন্য বিরাট সম্মানের বিষয়। পাশাপাশি বিজয়ীরা আইসিটি অস্কার খ্যাত অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। যা নিঃসন্দেহে প্রতিযোগীদের উৎসাহিত করবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, এমপি বলেন, বেসিসের উদ্যোগে ৩য় বারের মতো বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত হল। আমি গর্বিত এটা জানতে পেরে যে, বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় দল এবার ভিয়েতনামে অনুষ্ঠেয় অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে অংশ নিতে যাচ্ছে। আমাদের দেশকে এ প্রতিযোগিতা নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

এবারে বাংলাদেশ থেকে ৮০ সদস্যের প্রতিনিধি দল অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এ অংশ নিচ্ছে। এবারে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে ৬৯টি প্রতিষ্ঠান/প্রকল্পকে সম্মানিত করার পাশাপাশি ৩৭ জন বিচারক, আয়োজক কমিটির সদস্যদের সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের শেষে বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ফারহানা এ রহমান ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটির সমাপ্তির ঘোষণা করেন। বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এর পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড।

বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত

 সাইফ আহমাদ 
১৩ অক্টোবর ২০১৯, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জমকালো পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শেষ হল বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯। সৌজন্যে ছিল আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড।

গতকাল ১২ অক্টোবর, ২০১৯ রাজধানীর র‌্যাডিসন ব্লু ওয়াটার গার্ডেনের গ্র্যান্ড বলরুমে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানটি অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন এমপি, সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, এমপি এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, এমপি। আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিটি ডিভিশনের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এর আহ্বায়ক ও বেসিস পরিচালক দিদারুল আলম বলেন, এ বছরের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসের আদলে সাজানো হয়েছে।

আয়োজনে ছিল বিগত বছরের বিজয়ীদের প্রকল্প প্রদর্শনী, লেজার শো, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। পাশাপাশি, নতুন আদলে বানানো আইসিটি অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের হাতে তুলে দেয়া হয় আজকের আয়োজনের মধ্য দিয়ে।

আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও মমিনুল ইসলাম বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডের লক্ষ্য হল ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে ব্যক্তি, ছাত্র, উদ্যোক্তা, এসএমই এবং বাংলাদেশে পরিচালিত তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলোর অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য স্বীকৃতি প্রদান করা। আমরা এ উদ্যোগের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদে থাকতে চাই।

সভাপতির বক্তব্যে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবীর বলেন, বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডসের মাধ্যমে আমরা সারা দেশের উদ্ভাবনী এবং সম্ভাবনাময় তথ্যপ্রযুক্তি প্রকল্পগুলোকে বাছাই করি এবং উৎসাহ প্রদান করার লক্ষ্যে পুরস্কার প্রদান করি। বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্রকল্পগুলো আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বিস্তৃত সম্ভাবনাগুলোই তুলে ধরছে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের অগ্রযাত্রায় বেসিস নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সারা দেশ থেকে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে প্রকল্প বাছাই করে পুরস্কার প্রদান আমাদের তথ্যপ্রযুক্তি খাত সংশ্লিষ্টদের জন্য বিরাট সম্মানের বিষয়। পাশাপাশি বিজয়ীরা আইসিটি অস্কার খ্যাত অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে যাওয়ার সুযোগ পাচ্ছে। যা নিঃসন্দেহে প্রতিযোগীদের উৎসাহিত করবে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, এমপি বলেন, বেসিসের উদ্যোগে ৩য় বারের মতো বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠিত হল। আমি গর্বিত এটা জানতে পেরে যে, বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় দল এবার ভিয়েতনামে অনুষ্ঠেয় অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডসে অংশ নিতে যাচ্ছে। আমাদের দেশকে এ প্রতিযোগিতা নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

এবারে বাংলাদেশ থেকে ৮০ সদস্যের প্রতিনিধি দল অ্যাপিকটা অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এ অংশ নিচ্ছে। এবারে ৩৫টি ক্যাটাগরিতে ৬৯টি প্রতিষ্ঠান/প্রকল্পকে সম্মানিত করার পাশাপাশি ৩৭ জন বিচারক, আয়োজক কমিটির সদস্যদের সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানের শেষে বেসিসের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি ফারহানা এ রহমান ধন্যবাদ জ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটির সমাপ্তির ঘোষণা করেন। বেসিস ন্যাশনাল আইসিটি অ্যাওয়ার্ডস ২০১৯-এর পৃষ্ঠপোষকতায় ছিল আইপিডিসি ফাইন্যান্স লিমিটেড।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন