রাবি ছাত্রীকে ধর্ষণ ও ব্ল্যাকমেইল

রিমান্ড শেষে মাহফুজ কারাগারে

সব অপরাধীর ফাঁসি দাবিতে রাবি ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

  রাজশাহী ব্যুরো ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শারদ
মাহফুজুর রহমান সার। ফাইল ছবি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণ ও ব্ল্যাকমেইলের ঘটনার মূলহোতা রাবি অর্থনীতি বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মাহফুজুর রহমান সারদকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। দু’দিনের রিমান্ড শেষে বুধবার দুপুরে রাজশাহী মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে পাঠানো হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মতিহার থানার এসআই আবদুর রহমান জানান, মাহফুজ শেষ মুহূর্তে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে অস্বীকার করে। তবে রিমান্ডের শেষদিন মঙ্গলবার সে ঘটনা সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তদন্তের স্বার্থে এখন তা প্রকাশ করা যাচ্ছে না। রোববার রাতে মাহফুজকে নগরীর কাজলা এলাকার একটি মেস থেকে গ্রেফতার করে মতিহার থানা পুলিশ। সোমবার তাকে দু’দিনের রিমান্ডে আনা হয়।

এদিকে ছাত্রী ধর্ষণ ও ব্লাকমেইলের প্রতিবাদে বুধবার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন ও সমাবেশ হয়েছে।

এতে বিভিন্ন বিভাগের দুই শতাধিক শিক্ষার্থী অংশ নেন। সমাবেশে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের যৌন হয়রানি বন্ধসহ তাদের নিরাপত্তায় ৬টি দাবি তুলে ধরেন।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থী মেহজাবিন বলেন, ‘নারী হিসেবে, মেয়ে হিসেবে এ সমাজের একজন পুরুষকেও বিশ্বাস করতে পারছি না। এমনকি নিজের কাছের বন্ধু কিংবা স্বামীকেও না। বাসাবাড়ি, যানবাহন, কর্মস্থল এমনকি দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গাতেও নারীরা নিজেদের নিরাপদ ভাবতে পারছে না।’

অন্য শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা কি এই বাংলাদেশ চেয়েছিলাম। যে স্বাধীনতার জন্য ত্রিশ লাখ শহীদ হয়েছেন, দুই লাখ মা-বোনের ইজ্জত দিতে হয়েছে- সেই দেশে পঞ্চাশ বছর পরও নিত্যদিন নারীদের যৌন হয়রানি আর ধর্ষণের শিকার হতে হয়। দেশ যেন আজ ধর্ষণের এক চারণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। এমন ঘৃণ্য অপরাধ করেও অপরাধীরা আজ নির্দ্বিধায় পার পেয়ে যাচ্ছে। এর মূলে রয়েছে বিচারহীন সংস্কৃতি।

মানববন্ধন থেকে শিক্ষার্থীরা ৬টি দাবি উত্থাপন করেন। এগুলো হল- ধর্ষক মাহফুজকে রাবি থেকে আজীবন বহিষ্কার ও সব অপরাধীর ফাঁসি নিশ্চিত করা, রাবির যৌন নিপীড়ন বিরোধী সেলের কার্যকারিতা বৃদ্ধি, আইনের ফাঁক গলিয়ে অপরাধী যাতে বের না হতে পারে সেজন্য প্রশাসনের কঠোর পদক্ষেপ নেয়া, নারীবান্ধব ক্যাম্পাস প্রতিষ্ঠা, ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা এবং ক্যাম্পাসে ছিনতাই প্রতিরোধে মোটরসাইকেলের স্পিড নিয়ন্ত্রণ করা।

উল্লেখ্য, ২৪ জানুয়ারি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী মাহফুজুর সারদ তার বান্ধবীকে (রাবি ছাত্রী) কাজলা সাঁকোপাড়া এলাকার মেসে নিয়ে ধর্ষণ ও তা ভিডিও ধারণ করে। ধর্ষণের পর ছাত্রীর কাছে ৫০ হাজার টাকা দাবি করে মাহফুজ ও তার সহযোগীরা।

টাকা না দিলে ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। এ ঘটনায় ২৭ জানুয়ারি ধর্ষণের শিকার ছাত্রী মামলা করেন। তদন্তের পর পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাফসান আহম্মেদ, জয়, জীবন ও প্লাবন তারিককে গ্রেফতার করে।

এর মধ্যে জয় ও জীবন আদালতে অপরাধ স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছেন। এখনও পলাতক রয়েছেন বিশাল সরকার নামের আরেক আসামি।

'কোভিড-১৯' সর্বশেষ আপডেট

# আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বাংলাদেশ ৪৮ ১৫
বিশ্ব ৬,৫০,৫৬৭১,৩৯,৫৫২৩০,২৯৯
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

 
×