সেরা অভিনেতা তারিক আনাম অভিনেত্রী সুনেরাহ
jugantor
আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন সোহেল রানা ও সুচন্দা
সেরা অভিনেতা তারিক আনাম অভিনেত্রী সুনেরাহ
জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার

  এফ আই দীপু  

০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯ ঘোষণা করা হয়েছে। এই শিল্পে অসাধারণ অবদানের জন্য সেরা অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন তারিক আনাম খান।

অনন্য মামুন পরিচালিত ‘আবার বসন্ত’ ছবির জন্য তিনি এ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। আর সেরা অভিনেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন সুনেরাহ বিনতে কামাল।

তানিম রহমান অংশু পরিচালিত ‘ন ডরাই’ ছবির জন্য তিনি সেরার মুকুট দখলে নিয়েছেন। আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা) ও কোহিনুর আক্তার সুচন্দা। বৃহস্পতিবার তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘ফাগুন হাওয়ায়’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু এবং ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’ ছবির জন্য সেরা পার্শ্ব-অভিনেত্রীর পুরস্কার পাচ্ছেন নারগিস আক্তার। শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের পুরস্কার পাচ্ছেন যৌথভাবে তানিম রহমান অংশুর পরিচালনায় ‘ন ডরাই’ ও তৌকীর আহমেদের ‘ফাগুন হাওয়ায়’।

‘ন ডরাই’ ছবির জন্য সেরা পরিচালকের পুরস্কার পাচ্ছেন তানিম রহমান অংশু। ‘সাপলুডু’ ছবিতে অন্যবদ্য অভিনয়ের জন্য সেরা খল অভিনেতার পুরস্কার পাচ্ছেন জাহিদ হাসান। এর আগেও খলচরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। ‘মায়া দ্য লস্ট মাদার’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালকের পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী ইমন। ‘শাটল ট্রেন’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ গায়কের পুরস্কার পাচ্ছেন মৃণাল কান্তি দাস।

এবারের আসরে সেরা গায়িকা হয়েছেন যুগ্মভাবে মমতাজ ও ফাতেমা তুজ জোহরা। ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’ ছবির গানের জন্য তারা এ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। যুগ্মভাবে সেরা গীতিকারের পুরস্কার পাচ্ছেন কবি নির্মলেন্দু গুণ (কালো মেঘের ভেলা) ও কবি কামাল চৌধুরী (মায়া : দ্য লস্ট মাদার)। ‘মায়া দ্য লস্ট মাদার’ চলচ্চিত্রের জন্য যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ সুরকারের পুরস্কার পাচ্ছেন প্লাবন কোরেশী ও তানভীর তারেক। একই চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ কাহিনীকার মাসুদ পথিক, শ্রেষ্ঠ সম্পাদক জুনায়েদ আহমেদ হালিম, শ্রেষ্ঠ মেকআপম্যান রাজু নির্বাচিত হয়েছেন।

‘ন ডরাই’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার মাহবুব উর রহমান, শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক সুমন কুমার সরকার এবং শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রাহক রিপন পুরস্কার পাচ্ছেন। ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা জাকির হোসেন রাজু, যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ শিল্পনির্দেশক রহমত উল্লাহ বাসু ও ফরিদ আহমেদ নির্বাচিত হয়েছেন।

‘ফাগুন হাওয়ায়’ চলচ্চিত্রের জন্য পোশাক ও সাজসজ্জা শিল্পীর পুরস্কার পাচ্ছেন সাজিয়া আফরিন। ‘কালো মেঘের ভেলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য নাইমুর রহমান আপন এবং ‘যদি একদিন’র জন্য আফরিন আক্তার যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পীর পুরস্কার পাচ্ছেন।

এছাড়া শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে ‘নারী জীবন’ প্রামাণ্য চিত্রের জন্য বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইন্সটিটিউট এবং ‘যা ছিল অন্ধকারে’র জন্য সেরা প্রামাণ্য চলচ্চিত্রের পুরস্কার পাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিভিশন। এবারের আসরে সবচেয়ে বেশি পুরস্কার পাচ্ছে মাসুদ পথিক পরিচালিত ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’। এ চলচ্চিত্রের জন্য সেরা কাহিনীকারের পুরস্কার পাচ্ছেন পরিচালক। কিন্তু এই স্বীকৃতি গ্রহণ করতে রাজি নন তিনি। এ প্রসঙ্গে মাসুদ পথিক বলেন, ‘ছবিটা ভালো ছিল বলেই আট শাখায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ১০টি পুরস্কার পেয়েছে। এতগুলো শাখায় পুরস্কার পাওয়ার পরও এ ছবিটি সেরা হয়নি। সর্বোচ্চ পুরস্কার পাওয়া ছবিই তো সেরা ছবি হওয়ার কথা, সেই ছবির পরিচালক সেরা হবেন, এটাই তো স্বাভাবিক। পরিচালকের নির্দেশনায়ই তো এতসবকিছু নির্মিত হয়েছে। তাহলে কীভাবে পরিচালক সেরা হয় না? ছবি সেরা হয় না? আমি কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ করছি না। তবে নিজেকে বঞ্চিত মনে করছি।’ নিজের পাওয়া পুরস্কারটি গ্রহণ করবেন কি না, এ বিষয়ে দু-একদিনের মধ্যেই বিস্তারিত জানাবেন তিনি।

এদিকে ক্যারিয়ারের প্রথম ছবিতেই বাজিমাত করেছেন সেরা অভিনেত্রীর স্বীকৃতি পাওয়া সুনেরাহ বিনতে কামাল। যুগান্তরকে অনুভূতির কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘শুরুতে ফেসবুকে বিষয়টি দেখে আমি বিশ্বাস করতে পারিনি। পরে প্রজ্ঞাপন দেখে বিশ্বাস হয়েছে, আমি সেরা হয়েছি।

অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। দায়িত্ব অনেক বেড়ে গেছে। আশা করি, স্বীকৃতির মর্যাদা রাখতে পারব।’ স্কুলজীবন থেকেই বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত নৃত্যশিল্পী সুনেহরাহ। নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় ফ্যাশন মডেল হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের আগে কয়েকটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছেন তিনি।

আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন সোহেল রানা ও সুচন্দা

সেরা অভিনেতা তারিক আনাম অভিনেত্রী সুনেরাহ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার
 এফ আই দীপু 
০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার-২০১৯ ঘোষণা করা হয়েছে। এই শিল্পে অসাধারণ অবদানের জন্য সেরা অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন তারিক আনাম খান।

অনন্য মামুন পরিচালিত ‘আবার বসন্ত’ ছবির জন্য তিনি এ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। আর সেরা অভিনেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন সুনেরাহ বিনতে কামাল।

তানিম রহমান অংশু পরিচালিত ‘ন ডরাই’ ছবির জন্য তিনি সেরার মুকুট দখলে নিয়েছেন। আজীবন সম্মাননা পাচ্ছেন মাসুদ পারভেজ (সোহেল রানা) ও কোহিনুর আক্তার সুচন্দা। বৃহস্পতিবার তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, ‘ফাগুন হাওয়ায়’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য সেরা পার্শ্ব-অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু এবং ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’ ছবির জন্য সেরা পার্শ্ব-অভিনেত্রীর পুরস্কার পাচ্ছেন নারগিস আক্তার। শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্রের পুরস্কার পাচ্ছেন যৌথভাবে তানিম রহমান অংশুর পরিচালনায় ‘ন ডরাই’ ও তৌকীর আহমেদের ‘ফাগুন হাওয়ায়’।

‘ন ডরাই’ ছবির জন্য সেরা পরিচালকের পুরস্কার পাচ্ছেন তানিম রহমান অংশু। ‘সাপলুডু’ ছবিতে অন্যবদ্য অভিনয়ের জন্য সেরা খল অভিনেতার পুরস্কার পাচ্ছেন জাহিদ হাসান। এর আগেও খলচরিত্রে অভিনয়ের জন্য তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন। ‘মায়া দ্য লস্ট মাদার’ ছবির জন্য শ্রেষ্ঠ সঙ্গীত পরিচালকের পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী ইমন। ‘শাটল ট্রেন’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ গায়কের পুরস্কার পাচ্ছেন মৃণাল কান্তি দাস।

এবারের আসরে সেরা গায়িকা হয়েছেন যুগ্মভাবে মমতাজ ও ফাতেমা তুজ জোহরা। ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’ ছবির গানের জন্য তারা এ পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন। যুগ্মভাবে সেরা গীতিকারের পুরস্কার পাচ্ছেন কবি নির্মলেন্দু গুণ (কালো মেঘের ভেলা) ও কবি কামাল চৌধুরী (মায়া : দ্য লস্ট মাদার)। ‘মায়া দ্য লস্ট মাদার’ চলচ্চিত্রের জন্য যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ সুরকারের পুরস্কার পাচ্ছেন প্লাবন কোরেশী ও তানভীর তারেক। একই চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ কাহিনীকার মাসুদ পথিক, শ্রেষ্ঠ সম্পাদক জুনায়েদ আহমেদ হালিম, শ্রেষ্ঠ মেকআপম্যান রাজু নির্বাচিত হয়েছেন।

‘ন ডরাই’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ চিত্রনাট্যকার মাহবুব উর রহমান, শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহক সুমন কুমার সরকার এবং শ্রেষ্ঠ শব্দগ্রাহক রিপন পুরস্কার পাচ্ছেন। ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা জাকির হোসেন রাজু, যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ শিল্পনির্দেশক রহমত উল্লাহ বাসু ও ফরিদ আহমেদ নির্বাচিত হয়েছেন।

‘ফাগুন হাওয়ায়’ চলচ্চিত্রের জন্য পোশাক ও সাজসজ্জা শিল্পীর পুরস্কার পাচ্ছেন সাজিয়া আফরিন। ‘কালো মেঘের ভেলা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য নাইমুর রহমান আপন এবং ‘যদি একদিন’র জন্য আফরিন আক্তার যৌথভাবে শ্রেষ্ঠ শিশুশিল্পীর পুরস্কার পাচ্ছেন।

এছাড়া শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে ‘নারী জীবন’ প্রামাণ্য চিত্রের জন্য বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও টেলিভিশন ইন্সটিটিউট এবং ‘যা ছিল অন্ধকারে’র জন্য সেরা প্রামাণ্য চলচ্চিত্রের পুরস্কার পাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিভিশন। এবারের আসরে সবচেয়ে বেশি পুরস্কার পাচ্ছে মাসুদ পথিক পরিচালিত ‘মায়া : দ্য লস্ট মাদার’। এ চলচ্চিত্রের জন্য সেরা কাহিনীকারের পুরস্কার পাচ্ছেন পরিচালক। কিন্তু এই স্বীকৃতি গ্রহণ করতে রাজি নন তিনি। এ প্রসঙ্গে মাসুদ পথিক বলেন, ‘ছবিটা ভালো ছিল বলেই আট শাখায় সর্বোচ্চ সংখ্যক ১০টি পুরস্কার পেয়েছে। এতগুলো শাখায় পুরস্কার পাওয়ার পরও এ ছবিটি সেরা হয়নি। সর্বোচ্চ পুরস্কার পাওয়া ছবিই তো সেরা ছবি হওয়ার কথা, সেই ছবির পরিচালক সেরা হবেন, এটাই তো স্বাভাবিক। পরিচালকের নির্দেশনায়ই তো এতসবকিছু নির্মিত হয়েছে। তাহলে কীভাবে পরিচালক সেরা হয় না? ছবি সেরা হয় না? আমি কারও বিরুদ্ধে অভিযোগ করছি না। তবে নিজেকে বঞ্চিত মনে করছি।’ নিজের পাওয়া পুরস্কারটি গ্রহণ করবেন কি না, এ বিষয়ে দু-একদিনের মধ্যেই বিস্তারিত জানাবেন তিনি।

এদিকে ক্যারিয়ারের প্রথম ছবিতেই বাজিমাত করেছেন সেরা অভিনেত্রীর স্বীকৃতি পাওয়া সুনেরাহ বিনতে কামাল। যুগান্তরকে অনুভূতির কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘শুরুতে ফেসবুকে বিষয়টি দেখে আমি বিশ্বাস করতে পারিনি। পরে প্রজ্ঞাপন দেখে বিশ্বাস হয়েছে, আমি সেরা হয়েছি।

অনেকেই শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। দায়িত্ব অনেক বেড়ে গেছে। আশা করি, স্বীকৃতির মর্যাদা রাখতে পারব।’ স্কুলজীবন থেকেই বাংলাদেশ টেলিভিশনের তালিকাভুক্ত নৃত্যশিল্পী সুনেহরাহ। নবম শ্রেণিতে পড়ার সময় ফ্যাশন মডেল হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেন। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের আগে কয়েকটি মিউজিক ভিডিওতে অভিনয় করেছেন তিনি।