আ.লীগের দুপক্ষের কোন্দলে শিক্ষকের কবজি কর্তন
jugantor
কুড়িগ্রামের রাজারহাট
আ.লীগের দুপক্ষের কোন্দলে শিক্ষকের কবজি কর্তন

  মাহবুব রহমান, রংপুর  

১৮ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুড়িগ্রামের রাজারহাটে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের কোন্দলের জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন কলেজ শিক্ষক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আতাউর রহমানের হাতের কবজি কেটে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে হামলার শিকার হন কুড়িগ্রাম মজিদা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের এ প্রভাষক।

রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে মঙ্গলবার রাতেই তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন ছাড়াও বাম হাতের কবজি ঝুলে আছে। কেটে দেওয়া হয়েছে দুই হাঁটুর নিচের রগও। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকপন্থি বাঁধন বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ও তার স্বজনরা। ঘটনার পর কুড়িগ্রামে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। কাঁঠালবাড়ি এবং শাপল মোড় এলাকায় মঙ্গলবার রাতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ হয়েছে।

সূত্র জানায়, হামলার শিকার আতাউর কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলীর ভাগিনা। জেলা আওয়ামী লীগের আরেক শীর্ষ নেতার অনুসারী যুবলীগ কর্মী পরিচয় দেওয়া বাঁধনের সঙ্গে আতাউরের বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। অভিযোগ রয়েছে, কিছুদিন আগে বাঁধনের ওপর হামলা চালায় আতাউরের অনুসারীরা। ওই ঘটনার জেরে মঙ্গলবারের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী জানান, রাজারহাটের ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়ায় একটি প্রকল্পের কাজে যাচ্ছিলেন তিনি। এ সময় পথরোধ করে কুড়িগ্রামের ক্যাডার বাঁধনের হাতকাটা বাহিনীর ক্যাডাররা হামলায় চালায়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলীর গ্রুপ করার কারণেই তারা আমার ওপর হামলা করেছে। তিন মাস আগেও আমার বাসায় গুলি করছে তারা। আমি ওসি সাহেব, এসপি সাহেবকে বললেও কোনো লাভ হয়নি।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অর্থপেডিক সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. সফিকুল ইসলাম বলেন, ওই প্রভাষকের ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আর বাম হাতের কবজিওটি ঝুলে ছিল। ওই হাতের অবস্থা সংকটাপন্ন। দুই হাঁটুর নিচের রগ কেটে দেওয়া হয়েছে।

আতাউরের শ্বশুর নুরুল ইসলাম চাঁদ জানান, আওয়ামী লীগে জাফর গ্রুপ করত আমার জামাই। প্রতিপক্ষ গ্রুপের সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রধান বাঁধনের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে আতাউরের হাত কেটে দিয়েছে। তিনি বলেন, এর আগের ঘটনায় জিডি করা আছে। কিন্তু পুলিশ কোনো সুরাহা করেনি।

ঘটনাস্থল রাজারহাট থানার ছিনাই ইউনিয়নের বিট পুলিশ অফিসার তছির উদ্দিন জানান, এর আগের ঘটনাগুলো সদরের কাঁঠালবাড়ি এলাকায়। সে কারণে ওসব বিষয়ে কিছুই বলতে পারছি না। তবে তাকে কাঁঠালবাড়ি থেকেই টার্গেট করা হয়েছিল।

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট

আ.লীগের দুপক্ষের কোন্দলে শিক্ষকের কবজি কর্তন

 মাহবুব রহমান, রংপুর 
১৮ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

কুড়িগ্রামের রাজারহাটে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের কোন্দলের জেরে প্রতিপক্ষের লোকজন কলেজ শিক্ষক ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক নেতা আতাউর রহমানের হাতের কবজি কেটে দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়া গ্রামে মঙ্গলবার দুপুরে হামলার শিকার হন কুড়িগ্রাম মজিদা আদর্শ ডিগ্রি কলেজের এ প্রভাষক।

রংপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে মঙ্গলবার রাতেই তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়। তার ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন ছাড়াও বাম হাতের কবজি ঝুলে আছে। কেটে দেওয়া হয়েছে দুই হাঁটুর নিচের রগও। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকপন্থি বাঁধন বাহিনী এই হামলা চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ও তার স্বজনরা। ঘটনার পর কুড়িগ্রামে দুপক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। কাঁঠালবাড়ি এবং শাপল মোড় এলাকায় মঙ্গলবার রাতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ হয়েছে।

সূত্র জানায়, হামলার শিকার আতাউর কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জাফর আলীর ভাগিনা। জেলা আওয়ামী লীগের আরেক শীর্ষ নেতার অনুসারী যুবলীগ কর্মী পরিচয় দেওয়া বাঁধনের সঙ্গে আতাউরের বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। অভিযোগ রয়েছে, কিছুদিন আগে বাঁধনের ওপর হামলা চালায় আতাউরের অনুসারীরা। ওই ঘটনার জেরে মঙ্গলবারের ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

ভুক্তভোগী জানান, রাজারহাটের ছিনাই ইউনিয়নের পালপাড়ায় একটি প্রকল্পের কাজে যাচ্ছিলেন তিনি। এ সময় পথরোধ করে কুড়িগ্রামের ক্যাডার বাঁধনের হাতকাটা বাহিনীর ক্যাডাররা হামলায় চালায়। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাফর আলীর গ্রুপ করার কারণেই তারা আমার ওপর হামলা করেছে। তিন মাস আগেও আমার বাসায় গুলি করছে তারা। আমি ওসি সাহেব, এসপি সাহেবকে বললেও কোনো লাভ হয়নি।

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল অর্থপেডিক সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. সফিকুল ইসলাম বলেন, ওই প্রভাষকের ডান হাতের কবজি বিচ্ছিন্ন হয়েছে। আর বাম হাতের কবজিওটি ঝুলে ছিল। ওই হাতের অবস্থা সংকটাপন্ন। দুই হাঁটুর নিচের রগ কেটে দেওয়া হয়েছে।

আতাউরের শ্বশুর নুরুল ইসলাম চাঁদ জানান, আওয়ামী লীগে জাফর গ্রুপ করত আমার জামাই। প্রতিপক্ষ গ্রুপের সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রধান বাঁধনের নেতৃত্বে হামলা চালিয়ে আতাউরের হাত কেটে দিয়েছে। তিনি বলেন, এর আগের ঘটনায় জিডি করা আছে। কিন্তু পুলিশ কোনো সুরাহা করেনি।

ঘটনাস্থল রাজারহাট থানার ছিনাই ইউনিয়নের বিট পুলিশ অফিসার তছির উদ্দিন জানান, এর আগের ঘটনাগুলো সদরের কাঁঠালবাড়ি এলাকায়। সে কারণে ওসব বিষয়ে কিছুই বলতে পারছি না। তবে তাকে কাঁঠালবাড়ি থেকেই টার্গেট করা হয়েছিল।

কুড়িগ্রামের পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পাশাপাশি হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন