কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় আট মাস কাজ পাইনি: আদিতি হায়দারি

  যুগান্তর ডেস্ক ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১৭:২৮ | অনলাইন সংস্করণ

অদিতি রাও হায়দারি
বলি অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি

মুম্বাই এসেই বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিলেন সাবেক মিস ইন্ডিয়া ও বলি তারকা তনুশ্রী দত্ত। সে বিস্ফোরণে পুড়ে ছাই হয়েছে বহু বলি পরিচালক, বর্ষীয়ান অভিনেতা।

শুরু হয় ভারতেও হ্যাশট্যাগ মিটু আন্দোলন। মিটুর জেরে বেরিয়ে আসতে থাকে একের পর এক বলিউডের তারকাদের যৌন হেনস্থার ঘটনা।

শুরুতে মিটু বিতর্কে জড়ান জনপ্রিয় বলি অভিনেতা নানা পাটেকার। এরপর তনুশ্রীর দেখাদেখি মুখ খুলেন অনেক বলি সেলিব্রেটিও। অভিযোগের কাতারে দাঁড়াতে হয় বিগবি অমিতাভ বচ্চনকেও।

অভিযুক্ত পরিচালকের সঙ্গে কাজ করতে অস্বীকৃতি জানান মি. পারফেক্টশনিস্ট আমির খান। মার্শাল আর্ট হিরো জড়িয়ে যান মিটু বিতর্কে।

ছবি পরিচালনা থেকে সড়ে দাঁড়াতে হয় অভিযুক্ত পরিচালক সাজিদ খান। সমালোচিত হন তার বড় বোন ফারাহ খান, বলিউড ভাইজান সালমান খানও।

বলি ড্রামাকুইন রাখি সাওয়ান্ত চলে আসেন আলোচনায়। মুখোশ খুলে যায় গীতিকার আন্নু মালিকের মতো বিখ্যাত সব ব্যক্তিত্বের।

তনুশ্রীর দেখাদেখি সম্প্রতি মিটু আন্দোলনে সম্পৃক্ত হন ভার্সেটাইল অভিনেত্রী অদিতি রাও হায়দারি।

যৌন হেনস্থা নিয়ে জনসম্মুখে তিনি শেয়ার করেন নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতা।

জি নিউজের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সম্প্রতি এক ইংরেজী দৈনিকের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে অদিতি তার ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের যৌন হেনস্থার অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন।

তিনি জানান, শারীরিক লাঞ্ছনার প্রতিবাদ করায় আট মাস তাকে কাজ ছাড়া থাকতে হয়েছিল।

ভারতের এক সংবাদমাধ্যমের অনুষ্ঠানে অদিতি বলেন, ‘ক্যারিয়ার শুরুতে একেবারে সাদাসিধে ছিলাম। সেই সময়েই এই ন্যাক্কারজনক একটি ঘটনা ঘটে। সেই ঘটনায় প্রতবাদ করায় আমি আমি কাজ হারিয়ে ছিলাম। আট মাস ঘরেই বেকার বসে থাকতে হয়েছিল আমাকে।’

তবে ঘটনাটি সেভাবে তার মনে কোনো দাগ ফেলেনি বলে আবার তিনি এই জগতে ফিরে এসেছেন বলে জানান অদিতি। তিনি জানান, যোগ্যতা থাকলে ভালো কাজ এমনিতেই আসবে।

উদাহরণস্বরূপ তিনি জানান, আলোচিত ছবি 'পদ্মাবত' এ আলাউদ্দিন খলজির স্ত্রীর চরিত্রটির জন্য স্বয়ং জয়া বচ্চন তার নাম সুপারিশ করেছিলেন। #মিটু তে নিজের কথা বলে হেনস্থাকারীদের মুখোশ খুলে দিতে সবাইকে এগিয়ে আসতে আহ্বান করেন ‘দ্য লিজেন্ড অফ মাইকেল মিশ্র’ ছবির এই অভিনেত্রী।

ঘটনাপ্রবাহ : তনুশ্রী-নানা পাটেকর বিতর্ক

আরও
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×