‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ভূমিকা’
jugantor
বাংলাদেশ ডক্টরস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ডের প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা
‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ভূমিকা’

   

১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৭:৪০:২২  |  অনলাইন সংস্করণ

২১ ফেব্রুয়ারি ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা’ দিবসকে সামনে রেখে ‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ভূমিকা’ নিয়ে বাংলাদেশ ডক্টরস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড (বিডিপিএফ) আয়োজন করে উন্মুক্ত বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা। রোববার সকাল ১০টায় ফিনল্যান্ডের ওডি হেলসিঙ্কি সেন্ট্রাল পাবলিক লাইব্রেরীতে উন্মুক্ত প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

১ মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে বাংলা ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যদিয়ে বিডিপি এর উন্মুক্ত প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা শুরু করার আহবান জানান বিডিপিএফ এর নির্বাহী কমিটির সভাপতি মো. মঞ্জুরে মওলা।

‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা’ সামনে রেখে বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেশনধর্মী- যুগোপযোগী এবং প্রাণবন্তকর বিষয় উপস্থাপন করেন যথাক্রমে ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া, রিসার্স ম্যানেজার জাতীয় ভূমি জরিপ, ফিনল্যান্ড এবং ডক্টর অসীম কর, ডিসেন্ট (অ্যাডজ্যাংক্ট প্রফেসর) হেলসিঙ্কি বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড ।

ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া আলোকপাত করেন, গ্লোবাল ন্যাভিগেশন স্যাটেলাইট সিস্টেম অ্যান্ড ইটস ইমপ্যাক্ট অ্যান্ড এক্সপেনেশন টু আওয়ার সোসাইটি। তিনি তাঁর পেশাভিত্তিক কাজের অভিজ্ঞতার আলোকে উন্মুক্ত আলোচনা এবং সার্বজনীন প্রশ্নে, সুন্দর একটি বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে ইউরোপে ব্যবহৃত লো-কস্ট এবং অত্যাধুনিক‘ গ্লোবাল ন্যাভিগেশন স্যাটেলাইট সিস্টেম’, বাংলাদেশের ভূমি জরিপের ক্ষেত্রে ব্যবহার করার বিভিন্ন দিক এবং তার উপকারিতার কথা বলেন।

এ ছাড়াও ডক্টর ভূঁইয়া আরও বলেন, কর্মশালা আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশের সরকার তার এবং তাদের প্রতিষ্ঠানের সেবা নিতে পারেন।

ডক্টর অসীম কর, আলোকপাত করেন অ্যাকাডেমিক জার্নি অব অ্যান ইকনোমিস্ট: পটেনশিয়াল ইমপ্যাক্টস অন রিসার্চ অন বাংলাদেশ। অর্থনীতিতে ডক্টরেট ডিগ্রী অর্জনকারী, অসীম কর মাইক্রোফ্যাইনান্স নিয়ে তার অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার বিভিন্ন দিক উপস্থাপন করেন।

ডক্টর কর তাঁর উপস্থাপনার মাঝে উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল প্রাইজ উইনিয়ার প্রফেসর ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের কারণেই বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১৯০টি দেশ মাইক্রোফ্যাইনান্স নিয়ে কাজ করছে। বাংলাদেশে মাইক্রোফ্যাইনান্সের গবেষণার একটি নতুন দিগন্তের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন ডক্টর অসীম কর।

মাইক্রোফ্যাইনান্স ইন্সটিটিউসন্স (এমএফআই’স) ‘মিসন ড্রিফট’ নিয়ে কাজ করলে মাইক্রোফ্যাইনান্স, তার অধিষ্ঠ লক্ষ্যে পোঁছাতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়ার প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা, উনিভার্সিটি লেকচারার গোলাম মোঃ সারওয়ার, আলতো বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড এবং ডক্টর অসীম করের প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা সিনিয়র ইউনিভার্সিটি লেকচারার সাইদুল কাজি, তাম্পেরে এম্পালাইড বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড।

অলোচনা শেষে উপস্থিত সকল ডক্টর সদস্য একমত পোষণ করেন যে, প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে গঠনমূলক ভূমিকা রাখতে পারে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার, প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশাকে কাজে লাগানোর পথকে সুগম করতে হবে।

আলোচনার প্রাসঙ্গিকতায় অমর একুশের সার্থকতাকে সামনে রেখে আলোচনায় অংশগ্রহণকারী সকলেই মনে করেন, প্রবাসী সকল বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশার নেটওয়ার্কিং রিলেশন, বাংলা ভাষাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে অনুমোদন করানোর পথে সহায়ক ভূমিকার পালন করতে পারে।

তবে এ ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের এগিয়ে আসতে হবে বলে তারা মনে করেন। বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেসনধর্মী বিষয় উপস্থাপনের পরে মুখ্য আলোচকবৃন্দ উন্মুক্ত আলোচনা এবং সার্বজনীন প্রশ্ন পর্বের মুখোমুখি হন। প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সার্বজনীন প্রশ্ন পর্বে উপস্থিত ছিলেন ডক্টর হেলাল চৌধুরী, ডক্টর শরিফ চৌধুরী এবং ডক্টর সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন।

আলোচনার শেষে বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০ কমিটির আহবায়ক, প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. শিপুল বড়ুয়া (হেলসিংকি) এর পক্ষে পুরো কমিটির (বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০) নাম ঘোষণা করেন নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মুবিনুর রহমান।

বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০ কমিটির (রিভাইজড) আহবায়ক শিপুল বড়ুয়া (হেলসিংকি) এবং কমিটির অন্য সদস্যগন হলেন- শাহ্‌ মোঃ কামরুল হাসান (হেলসিংকি), সফিকুল আলম (তাম্পেরে), কামাল উদ্দিন (ভাসা), সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন (অওলু), মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া (এস্পো), রানা পারভেজ (অওলু), এ এইচ এম সামসুজ্জোহা (ভাসা), সাইদুল কাজী (তাম্পেরে) এবং মুবিনুর রহমান (এস্পো)।

আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা মাহবুব রহমান, সাইদুল কাজী এবং গোলাম মো. সারোয়ার, বিডিপিএফ এর প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী সদস্য শরিফ চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য মুবিনুর রহমান এবং ডক্টর সদস্য হেলাল চৌধুরী, সফিকুল আলম, অসীম কর ও মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া।

এ ছাড়াও অনলাইনে যোগ দিয়েছিলেন নির্বাহী সদস্য রানা পারভেজ এবং ডক্টর সদস্য সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন।

বর্তমানে বিডিপিএফ এর ডক্টর সদস্য সংখ্যা ৪৫। বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. মঞ্জুরে মওলা সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিডিপিএফ-এর প্রফেশনাল নেটওয়ার্কিং সেশনের ব্যানারে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
বাংলাদেশ ডক্টরস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ডের প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা

‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ভূমিকা’

  
১০ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৫:৪০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

২১ ফেব্রুয়ারি ‘আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা’ দিবসকে সামনে রেখে ‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ভূমিকা’ নিয়ে বাংলাদেশ ডক্টরস প্লাটফর্ম ইন ফিনল্যান্ড (বিডিপিএফ) আয়োজন করে উন্মুক্ত বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা। রোববার সকাল ১০টায় ফিনল্যান্ডের ওডি হেলসিঙ্কি সেন্ট্রাল পাবলিক লাইব্রেরীতে উন্মুক্ত প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। 

১ মিনিট নীরবতা পালনের মাধ্যমে বাংলা ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী সকল শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর মধ্যদিয়ে বিডিপি এর উন্মুক্ত প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনা শুরু করার আহবান জানান বিডিপিএফ এর নির্বাহী কমিটির সভাপতি মো. মঞ্জুরে মওলা।

‘প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে ভূমিকা’ সামনে রেখে বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেশনধর্মী- যুগোপযোগী এবং প্রাণবন্তকর বিষয় উপস্থাপন করেন যথাক্রমে ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া, রিসার্স ম্যানেজার জাতীয় ভূমি জরিপ, ফিনল্যান্ড এবং ডক্টর অসীম কর, ডিসেন্ট (অ্যাডজ্যাংক্ট প্রফেসর) হেলসিঙ্কি বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড ।
 
ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া আলোকপাত করেন, গ্লোবাল ন্যাভিগেশন স্যাটেলাইট সিস্টেম অ্যান্ড ইটস ইমপ্যাক্ট অ্যান্ড এক্সপেনেশন টু আওয়ার সোসাইটি। তিনি তাঁর পেশাভিত্তিক কাজের অভিজ্ঞতার আলোকে উন্মুক্ত আলোচনা এবং সার্বজনীন প্রশ্নে, সুন্দর একটি বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে ইউরোপে ব্যবহৃত লো-কস্ট এবং অত্যাধুনিক‘ গ্লোবাল ন্যাভিগেশন স্যাটেলাইট সিস্টেম’, বাংলাদেশের ভূমি জরিপের ক্ষেত্রে ব্যবহার করার বিভিন্ন দিক এবং তার উপকারিতার কথা বলেন। 

এ ছাড়াও ডক্টর ভূঁইয়া আরও বলেন, কর্মশালা আয়োজনের মাধ্যমে বাংলাদেশের সরকার তার এবং তাদের প্রতিষ্ঠানের সেবা নিতে পারেন।

ডক্টর অসীম কর, আলোকপাত করেন অ্যাকাডেমিক জার্নি অব অ্যান ইকনোমিস্ট: পটেনশিয়াল ইমপ্যাক্টস অন রিসার্চ অন বাংলাদেশ। অর্থনীতিতে ডক্টরেট ডিগ্রী অর্জনকারী, অসীম কর মাইক্রোফ্যাইনান্স নিয়ে তার অতীত, বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার বিভিন্ন দিক উপস্থাপন করেন। 

ডক্টর কর তাঁর উপস্থাপনার মাঝে উল্লেখ করেন, বাংলাদেশের একমাত্র নোবেল প্রাইজ উইনিয়ার প্রফেসর ডক্টর মোহাম্মদ ইউনুসের কারণেই বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ১৯০টি দেশ মাইক্রোফ্যাইনান্স নিয়ে কাজ করছে। বাংলাদেশে মাইক্রোফ্যাইনান্সের গবেষণার একটি নতুন দিগন্তের উপর গুরুত্ব আরোপ করেন ডক্টর অসীম কর। 

মাইক্রোফ্যাইনান্স ইন্সটিটিউসন্স (এমএফআই’স) ‘মিসন ড্রিফট’ নিয়ে কাজ করলে মাইক্রোফ্যাইনান্স, তার অধিষ্ঠ লক্ষ্যে পোঁছাতে পারবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। 

ডক্টর মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়ার প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা, উনিভার্সিটি লেকচারার গোলাম মোঃ সারওয়ার, আলতো বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড এবং ডক্টর অসীম করের প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সঞ্চালকের ভূমিকা পালন করেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা সিনিয়র ইউনিভার্সিটি লেকচারার সাইদুল কাজি, তাম্পেরে এম্পালাইড বিশ্ববিদ্যালয়, ফিনল্যান্ড।

অলোচনা শেষে উপস্থিত সকল ডক্টর সদস্য একমত পোষণ করেন যে, প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশা সুন্দর বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে গঠনমূলক ভূমিকা রাখতে পারে। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার, প্রবাসী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশাকে কাজে লাগানোর পথকে সুগম করতে হবে।

আলোচনার প্রাসঙ্গিকতায় অমর একুশের সার্থকতাকে সামনে রেখে আলোচনায় অংশগ্রহণকারী সকলেই মনে করেন, প্রবাসী সকল বাংলাদেশী বিশেষজ্ঞদের বর্তমান পেশার নেটওয়ার্কিং রিলেশন, বাংলা ভাষাকে জাতিসংঘের দাপ্তরিক ভাষা হিসেবে অনুমোদন করানোর পথে সহায়ক ভূমিকার পালন করতে পারে।

তবে এ ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতদের এগিয়ে আসতে হবে বলে তারা মনে করেন। বাংলা ভাষায় প্রেজেন্টেসনধর্মী বিষয় উপস্থাপনের পরে মুখ্য আলোচকবৃন্দ উন্মুক্ত আলোচনা এবং সার্বজনীন প্রশ্ন পর্বের মুখোমুখি হন। প্রেজেন্টেসনধর্মী আলোচনায় সার্বজনীন প্রশ্ন পর্বে উপস্থিত ছিলেন ডক্টর হেলাল চৌধুরী, ডক্টর শরিফ চৌধুরী এবং ডক্টর সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন।
 
আলোচনার শেষে বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০ কমিটির আহবায়ক, প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. শিপুল বড়ুয়া (হেলসিংকি) এর পক্ষে পুরো কমিটির (বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০) নাম ঘোষণা করেন নির্বাহী কমিটির সদস্য ড. মুবিনুর রহমান।

বিডিপিএফ গেট টুগেদার ২০২০ কমিটির (রিভাইজড) আহবায়ক শিপুল বড়ুয়া (হেলসিংকি) এবং কমিটির অন্য সদস্যগন হলেন- শাহ্‌ মোঃ কামরুল হাসান (হেলসিংকি), সফিকুল আলম (তাম্পেরে), কামাল উদ্দিন (ভাসা), সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন (অওলু), মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া (এস্পো), রানা পারভেজ (অওলু), এ এইচ এম সামসুজ্জোহা (ভাসা), সাইদুল কাজী (তাম্পেরে) এবং মুবিনুর রহমান (এস্পো)। 

আলোচনায় অংশগ্রহণ করেছেন বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা উপদেষ্টা মাহবুব রহমান, সাইদুল কাজী এবং গোলাম মো. সারোয়ার, বিডিপিএফ এর প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী সদস্য শরিফ চৌধুরী, নির্বাহী সদস্য মুবিনুর রহমান এবং ডক্টর সদস্য হেলাল চৌধুরী, সফিকুল আলম, অসীম কর ও মোঃ জাহিদুল হাসান ভূঁইয়া। 

এ ছাড়াও অনলাইনে যোগ দিয়েছিলেন নির্বাহী সদস্য রানা পারভেজ এবং ডক্টর সদস্য সাহারিয়ার সাহাবুদ্দিন। 

বর্তমানে বিডিপিএফ এর ডক্টর সদস্য সংখ্যা ৪৫। বিডিপিএফ-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মো. মঞ্জুরে মওলা সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে বিডিপিএফ-এর প্রফেশনাল নেটওয়ার্কিং সেশনের ব্যানারে আয়োজিত আলোচনা অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

[প্রিয় পাঠক, যুগান্তর অনলাইনে পরবাস বিভাগে আপনিও লিখতে পারেন। প্রবাসে আপনার কমিউনিটির নানান খবর, ভ্রমণ, আড্ডা, গল্প, স্মৃতিচারণসহ যে কোনো বিষয়ে লিখে পাঠাতে পারেন। সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন jugantorporobash@gmail.com এই ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর