বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স
jugantor
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স

  যুগান্তর ডেস্ক  

১২ জানুয়ারি ২০২০, ২২:২২:৪০  |  অনলাইন সংস্করণ

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স ও উচ্চতর সনদ প্রদান মজলিস।

রোববার সকাল ১০টা থেকে রাজধানীর চৌধুরীপাড়ার জামিআ ইকরা বাংলাদেশে মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে মক্কা, সিরিয়া ও ইরাক থেকে কয়েকজন মুহাদ্দিস অংশ নিয়েছেন।

জামিআ ইকরা বাংলাদেশের রঈস মাওলানা আরীফ উদ্দীন মারুফ জানান, এটি মৌলিকভাবে ‘সুনানে তিরমিযীর’ দরস এবং পাঠের কনফারেন্স। কনফারেন্স বলতে সাধারণত যে কনফারেন্স বোঝানোহয় এটি সে ধরনেরনয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উলামা-মাশায়েখ ও শিক্ষার্থীরা এখানে ইতিমধ্যে এসেছেন যারা ‘সুনানে তিরমিযীর’ দরস ও পাঠদানের মাধ্যমে সনদদান ও সনদগ্রহণ করবেন।

তিনি বলেন, ‘সিহাহ সিত্তা’ বা হাদিসের বিশুদ্ধতর যে ছয়টি গ্রন্থ, তম্মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে থাকা বিশুদ্ধতম হাদিসগ্রন্থ ইমাম তিরমিযী (রহ.) রচিত সুনানে তিরমিযী। এছাড়া তার ছোট্ট রচনা ‘কিতাবুল ইলাল’সহ রাসূলের (সা.) গঠন-দৈহিক অবয়ব সম্পর্কে রচিত বিশ্বখ্যাত ও তার সর্বাধিক প্রসিদ্ধ গ্রন্থ শামায়েলের শুরু থেকে শেষ আদ্যোপান্ত পাঠ করা হবে এখানে।

রোববার সুনানে তিরমিযী শরীফের দরসের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শায়খ মুহাম্মাদ আশ শাযালী, নিউফর, তিন্নিসীর (রহ.) ছাত্র, ইসলামিক ম্যানুস্ক্রিপ্ট বা মাখতুতাত স্পেশালিস্ট ও উলূমে বিশেষজ্ঞ শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ, ইরাক।

বক্তব্যে শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ ইমাম তিরমিযীর জীবনী, তিরমিযী শরীফের বৈশিষ্ট, হাদীসের সনদ-মতন ও ইলাল সম্পর্কে আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে তিরমিযী শরীফের তেলাওয়াত করেন কাকরাইল সার্কিট হাউজ মসজিদের খতিব ও জামিআ ইকরা বাংলাদেশের রঈস মাওলানা আরীফ উদ্দীন মারুফ (বাংলাদেশ), শায়েখ বিলাল আহমদ (মদিনা) ও ড. আহমদ তায়ী (লেবানন)।

আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্সের প্রথম দিন দরস প্রদান করছেন বাংলাদেশের আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ, সিরিয়ার শায়েখ মুহাম্মাদ আব্দুল মাজেদ আল হান্নাবী, ইরাকের শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ, শাইখুল হিন্দ ও মাওলানা ইয়াকুব নানুতুবীর (রহ.) শাগরিদ আল্লামা রাসূল খান হাজারাভীর (রহ.) ছাত্র মাওলানা নুরুদ্দীন লাহোরী প্রমুখ।

১২ জানুয়ারি রোববার থেকে শুরু হয়ে ১৭ জানুয়ারি শুক্রবার পর্যন্ত এই কনফারেন্স চলবে। কনফারেন্স শেষে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের সনদ প্রদান করা হবে।

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স

 যুগান্তর ডেস্ক 
১২ জানুয়ারি ২০২০, ১০:২২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স
ছবি: সংগৃহীত

প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্স ও উচ্চতর সনদ প্রদান মজলিস।

রোববার সকাল ১০টা থেকে রাজধানীর চৌধুরীপাড়ার জামিআ ইকরা বাংলাদেশে মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান শুরু হয়। এতে মক্কা, সিরিয়া ও ইরাক থেকে কয়েকজন মুহাদ্দিস অংশ নিয়েছেন। 

জামিআ ইকরা বাংলাদেশের রঈস মাওলানা আরীফ উদ্দীন মারুফ জানান, এটি মৌলিকভাবে ‘সুনানে তিরমিযীর’ দরস এবং পাঠের কনফারেন্স। কনফারেন্স বলতে সাধারণত যে কনফারেন্স বোঝানো হয় এটি সে ধরনের নয়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশের উলামা-মাশায়েখ ও শিক্ষার্থীরা এখানে ইতিমধ্যে এসেছেন যারা ‘সুনানে তিরমিযীর’ দরস ও পাঠদানের মাধ্যমে সনদদান ও সনদগ্রহণ করবেন।

তিনি বলেন, ‘সিহাহ সিত্তা’ বা হাদিসের বিশুদ্ধতর যে ছয়টি গ্রন্থ, তম্মধ্যে তৃতীয় অবস্থানে থাকা বিশুদ্ধতম হাদিসগ্রন্থ ইমাম তিরমিযী (রহ.) রচিত সুনানে তিরমিযী। এছাড়া তার ছোট্ট রচনা ‘কিতাবুল ইলাল’সহ রাসূলের (সা.) গঠন-দৈহিক অবয়ব সম্পর্কে রচিত বিশ্বখ্যাত ও তার সর্বাধিক প্রসিদ্ধ গ্রন্থ শামায়েলের শুরু থেকে শেষ আদ্যোপান্ত পাঠ করা হবে এখানে।  

রোববার সুনানে তিরমিযী শরীফের দরসের শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন শায়খ মুহাম্মাদ আশ শাযালী, নিউফর, তিন্নিসীর (রহ.) ছাত্র, ইসলামিক ম্যানুস্ক্রিপ্ট বা মাখতুতাত স্পেশালিস্ট ও উলূমে বিশেষজ্ঞ শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ, ইরাক।

বক্তব্যে শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ ইমাম তিরমিযীর জীবনী, তিরমিযী শরীফের বৈশিষ্ট, হাদীসের সনদ-মতন ও ইলাল সম্পর্কে আলোচনা করেন।

অনুষ্ঠানে তিরমিযী শরীফের তেলাওয়াত করেন কাকরাইল সার্কিট হাউজ মসজিদের খতিব ও জামিআ ইকরা বাংলাদেশের রঈস মাওলানা আরীফ উদ্দীন মারুফ (বাংলাদেশ), শায়েখ বিলাল আহমদ (মদিনা) ও ড. আহমদ তায়ী (লেবানন)।

আন্তর্জাতিক হাদিস কনফারেন্সের প্রথম দিন দরস প্রদান করছেন বাংলাদেশের আল্লামা ফরীদ উদ্দীন মাসঊদ, সিরিয়ার শায়েখ মুহাম্মাদ আব্দুল মাজেদ আল হান্নাবী, ইরাকের শায়খ নাজম আব্দুর রহমান খালাফ, শাইখুল হিন্দ ও মাওলানা ইয়াকুব নানুতুবীর (রহ.) শাগরিদ আল্লামা রাসূল খান হাজারাভীর (রহ.) ছাত্র মাওলানা নুরুদ্দীন লাহোরী প্রমুখ।

১২ জানুয়ারি রোববার থেকে শুরু হয়ে ১৭ জানুয়ারি শুক্রবার পর্যন্ত এই কনফারেন্স চলবে। কনফারেন্স শেষে উপস্থিত শিক্ষার্থীদের সনদ প্রদান করা হবে।  

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন