চলন্ত বাসে নামাজ আদায় করা যাবে?
jugantor
চলন্ত বাসে নামাজ আদায় করা যাবে?

  যুগান্তর ডেস্ক  

১১ জানুয়ারি ২০২২, ২১:০১:১৬  |  অনলাইন সংস্করণ

চলন্ত বাসে নামাজ আদায় করা যাবে?

প্রশ্ন: আমি চট্টগ্রামে থাকি। কয়েকদিনের মধ্যে আমার ঢাকা যেতে হবে। বাসে যাব। বাসের মধ্যে নামাজ আদায় করা তো সম্ভব না। কী করব?

উত্তর: বাসে যেহেতু সাধারণত দাঁড়িয়ে স্বাভাবিকভাবে নামাজ পড়া যায় না তাই কাছাকাছি যাতায়াতের ক্ষেত্রে ওয়াক্ত শেষ হওয়ার পূর্বে গন্তব্যে পৌঁছে নামাজ আদায় করা সম্ভব হবেনা বলে মনে হলে এবং নেমে যাওয়া ঝুঁকিপূর্ণ অথবা অসুবিধাজনক না হলে পথিমধ্যে নেমে ফরজ নামাজ পড়ে নিবে।

আর দূরের যাত্রা হলে অথবা যে ক্ষেত্রে নেমে গেলে ঝুঁকি অথবা সমস্যায় পড়ার আশঙ্কা থাকে সে ক্ষেত্রে বাস না থামলে দাঁড়িয়ে সিট ধরে কিংবা সিটেই যেভাবে সম্ভব বসে বা ইশারায় কিবলা নির্ধারণ করে নামাজ আদায় করে নিতে হবে।

আর কিবলা নির্ধারণের জন্য কম্পাস, GPS ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে, যদি নামাজরত অবস্থায় কিবলা ঘুরে যাচ্ছে বলে বুঝা যায়, তাহলে ওই দিকে সীনা ঘুরিয়ে নিতে হবে। আর সতর্কতামূলক পরবর্তীতে এই নামাজ পূণরায় পড়ে নেওয়া উত্তম হবে। আল্লাহতায়ালা সর্বজ্ঞ।

তথ্যসূত্র: ইলাউস সুনান: ৭/২১২; মাআরিফুস সুনান: ৩/৩৯৪; আদ্দুররুল মুখতার: ২/১০১

চলন্ত বাসে নামাজ আদায় করা যাবে?

 যুগান্তর ডেস্ক 
১১ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
চলন্ত বাসে নামাজ আদায় করা যাবে?
প্রতীকি ছবি

প্রশ্ন: আমি চট্টগ্রামে থাকি। কয়েকদিনের মধ্যে আমার ঢাকা যেতে হবে। বাসে যাব। বাসের মধ্যে নামাজ আদায় করা তো সম্ভব না। কী করব?

উত্তর: বাসে যেহেতু সাধারণত দাঁড়িয়ে স্বাভাবিকভাবে নামাজ পড়া যায় না তাই কাছাকাছি যাতায়াতের ক্ষেত্রে ওয়াক্ত শেষ হওয়ার পূর্বে গন্তব্যে পৌঁছে নামাজ আদায় করা সম্ভব হবেনা বলে মনে হলে এবং নেমে যাওয়া ঝুঁকিপূর্ণ অথবা অসুবিধাজনক না হলে পথিমধ্যে নেমে ফরজ নামাজ পড়ে নিবে। 

আর দূরের যাত্রা হলে অথবা যে ক্ষেত্রে নেমে গেলে ঝুঁকি অথবা সমস্যায় পড়ার আশঙ্কা থাকে সে ক্ষেত্রে বাস না থামলে দাঁড়িয়ে সিট ধরে কিংবা সিটেই যেভাবে সম্ভব বসে বা ইশারায় কিবলা নির্ধারণ করে নামাজ আদায় করে নিতে হবে।

আর কিবলা নির্ধারণের জন্য কম্পাস, GPS ইত্যাদি ব্যবহার করা যেতে পারে, যদি নামাজরত অবস্থায় কিবলা ঘুরে যাচ্ছে বলে বুঝা যায়, তাহলে ওই দিকে সীনা ঘুরিয়ে নিতে হবে। আর সতর্কতামূলক পরবর্তীতে এই নামাজ পূণরায় পড়ে নেওয়া উত্তম হবে। আল্লাহতায়ালা সর্বজ্ঞ।

তথ্যসূত্র: ইলাউস সুনান: ৭/২১২; মাআরিফুস সুনান: ৩/৩৯৪; আদ্দুররুল মুখতার: ২/১০১

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর