ঢেউয়ের ওপরে ভাসমান কৃষি হাট

  যুগান্তর রিপোর্ট ০২ মার্চ ২০১৯, ১৪:২৩ | অনলাইন সংস্করণ

ভাসমান কৃষি হাট।
ভাসমান কৃষি হাট। ছবি সংগৃহীত

প্রভাতের সূর্য উদয়ের মধ্য দিয়েই ঢেউয়ের ওপরে বসে ভাসমান কৃষি পণ্যের হাট। নৌকায় নৌকায় চলে শাক সবজির, ধান, চাল, মাছ, ফল, আখ, নারকেলসহ বিভিন্ন পণ্যের পসরা। দুপুর হওয়ার আগে ভেয়ে যায় হাট।

অর্ধশতবছরেরভাসমানসবজিরহাট বসছে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার বৈঠাকাটা বাজার সংলগ্ন বেলুয়া নদীতে। সপ্তাহের শনিবার ও মঙ্গলবার এই হাট বসে। ৬৫ বছর ধরে স্থানীয় ২০ থেকে ২৫ গ্রামের কৃষকরা এই হাটে বেচাবিক্রি করে চলেছেন।

দৃষ্টিনন্দন এই হাট দেখতে চাইলে যেতে হবে নাজিরপুর উপজেলা সদর থেকে ১৮ কিলেমিটার দূরে বেলুয়া নদী। বৈঠাকাটা বাজার ও বেলুয়া মুগারঝোর গ্রামের পাশ দিয়ে এই নদীর দেখা মিলবে।

বেলুয়ানদীর এই হাটে মিলবে শালগম, বাঁধাকপি, ফুলকপি, টমেটো, বেগুন, মরিচ, আলু, মিষ্টি কুমড়া, শিম, লাউ, করল্লা, কচুসহ ও নানা জাতের শাক সবজি। সবজির ছাড়াও আরো পাওয়া যাবে ফুলের চারাধান, চাল, মুড়ি ও নারকেলের হাট। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের মাছ ও মাছ ধরার সরঞ্জাম।

১৯৫৪ সালে বৈঠাকাটা বাজারের পাশে বেলুয়া নদীতে ভাসমান হাট বসা শুরু করে। দিনে দিনে হাটের ব্যাপ্তি বেড়ে চলছে। পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার কলারদোয়ানিয়া, মুগারঝোর, মনোহরপুর, গাঁওখালী, চাঁদকাঠি, ডুমুরিয়া, সাচিয়া, লড়া, বইবুনিয়া, পেনাখালী, নেছারাবাদ উপজেলার বলদিয়া, গগণ, মলুহার, কাটাখালী, উলুহার, জনতা, বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার বিশারকান্দি, উমারেরপাড়, উদয়কাঠী, কদমবাড়ি, বাইশাড়ি, চৌমোহনাসহ আশপাশের আরও কয়েকটি গ্রামের কৃষক তাদের উৎপাদিত কৃষিপণ্য এ হাটে বিক্রি করেন।

এই হাট থেকে পণ্য কিনে ঢাকাসহ দেশের বড় বড় শহরে নিয়ে যান ব্যবসায়ীরা। এ হাটের কৃষিপণ্য ইউরোপের বাজারেও রপ্তানি হয়।ভাসমানবাজার ও এই অঞ্চলের মানুষের বৈচিত্রময় জীবনধারাকে কেন্দ্র করে এখানে গড়ে উঠতে পারেনপর্যটন কেন্দ্র।

[প্রিয় পাঠক, আপনিও দৈনিক যুগান্তর অনলাইনের অংশ হয়ে উঠুন। লাইফস্টাইলবিষয়ক ফ্যাশন, স্বাস্থ্য, ভ্রমণ, নারী, ক্যারিয়ার, পরামর্শ, এখন আমি কী করব, খাবার, রূপচর্চা ও ঘরোয়া টিপস নিয়ে লিখুন এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ে ছবিসহ মেইল করুন-[email protected]-এ ঠিকানায়। লেখা আপনার নামে প্রকাশ করা হবে।]
আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×