বিশ্বের কোন দেশে নিখুঁত ভোট হয়-প্রশ্ন কাদেরের

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ১৪:৩৩ | অনলাইন সংস্করণ

বিশ্বের কোন দেশে নিখুঁত ভোট হয়-প্রশ্ন কাদেরের
ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

বিশ্বের কোনো দেশে নিখুঁত নির্বাচন হয় না মন্তব্য করে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, জাতিসংঘ বলেছে নির্বাচন নিখুঁত হয়নি। তারা বলেছে- সংলাপের কথা। আমার প্রশ্ন- বিশ্বের এমন কোনো দেশ কি দেখাতে পারবেন, যেখানে নিখুঁত ভোট হয়। নির্বাচনে কোনো না কোনো খুঁত থাকেই।

রোববার রাজধানীর বনানীতে সেতু বিভাগে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

নির্বাচন নিখুঁত হয়নি বলে জাতিসংঘ যে বক্তব্য দিয়েছে তার প্রতিক্রিয়ায় সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘কোন দেশে ইলেকশন পারফেক্ট হয়েছে, একটা দেশ দেখান। গণতান্ত্রিক দেশগুলোতে পারফেক্ট বলে যে কথাটি বলা হয় তাতেও কিছু খুঁত তো থাকেই। তাতে ইলেকশনের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠে না।’

ভোট নিয়ে জাতিসংঘের সংলাপের তাগিদের বিষয়ে তিনি বলেন, জাতিসংঘ সংলাপের কথা বলেনি, তবে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে সংলাপ হতে পারে। প্রয়োজন হলে বিষয়টি পরে দেখা হবে।

তিনি বলেন, সরকারের সঙ্গে কাজ করার জন্য জাতিসংঘের পক্ষ থেকে এরইমধ্যে জোরালোভাবে বলা হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিজ দলের চাপে আছেন বলে সরকারবিরোধী কথা বেশি বলছেন বলে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, নিজ দলের লোকেরাই ফখরুলকে দালাল বলছেন।

বিএনপির ভুল রাজনীতি ও মির্জা ফখরুলের সমালোচনায় আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, আগে বিএনপির ঘর সামলাতে হবে, নেতার পরিবর্তন দরকার। এখন ফখরুল সাহেবকে নিজ দলের লোকজন দালাল বলছেন। আরও অনেক কথা হয়তো বা আসবে।

জনগণের চোখ অন্যদিকে সরাতে আওয়ামী লীগ ‘বিজয় সমাবেশ’ করছে বলে মির্জা ফখরুল যে বক্তব্য দিয়েছেন তার জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি আর ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে দেশে বিদেশে যে অপপ্রয়াস চালিয়েছে তা ব্যর্থতায় পর্যবসিত হয়েছে। এখন ভোট নিয়ে যে বিষয়টা তারা বলছে, এটা পরাজিতের মুখে ব্যর্থতার প্রলাপ।

দুর্নীতির বিষয়ে সরকারের কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়ে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের তা মনে রাখার নির্দেশ দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী।

তিনি বলেন, দেশে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে। বড় প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। এ জন্য আমাদের স্বচ্ছতা, নীতি ও পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।

দুর্নীতির বিষয়ে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির কথা পুনর্ব্যক্ত করে তিনি বলেন, সরকারের বড় জয়ে বড় চ্যালেঞ্জ আছে। আপনারা নিরপেক্ষভাবে কাজ করবেন। দুর্নীতিকে জিরো টলারেন্সে রাখবেন। না হলে বড় বড় প্রকল্প শেষ করা যাবে না। এমন কাজ করবেন না যাতে সরকারের সুনাম ক্ষুণ্ন হয়।

পদ্মা সেতুর কাজ ২০২২ সালে শেষ হবে জানিয়ে তিনি বলেন, পদ্মা সেতুর সার্বিক অগ্রগতি ৬৩ শতাংশ হয়েছে। কর্ণফুলী টানেলের অগ্রগতি হয়েছে ৩০ শতাংশ। ২০২২ সালে কাজ শেষ হবে।

এর আগে সেতু বিভাগের কর্মকর্তা এবং বাস্তবায়নাধীন প্রকল্প প্রধানদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন তিনি।

ঘটনাপ্রবাহ : একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন

আরও
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×