প্রাথমিকের দফতরিদের চাকরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তর করতে রুল
jugantor
প্রাথমিকের দফতরিদের চাকরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তর করতে রুল

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ২৩:০০:৪৬  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে কর্মরত ৬১৮ জনের চাকরি কেন রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

সোমবার বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ পৃথক দুটি রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি শেষে এ রুল জারি করেন।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

দেশের বিভিন্ন এলাকার ৬১৮ জন দফতরি কাম প্রহরীর করা রিট আবেদনে এ রুল জারি করা হয়। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও অ্যাডভোকটে নাসিরউদ্দিন খান সম্রাট। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমীন সরকার।

এর আগে গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর একই আদালত ১৮৫ জনের বিষয়ে রুল জারি করেছিলেন।

সরকার ২০১২ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী নিয়োগের জন্য নীতিমালা তৈরি করে। এরপর সারা দেশে ৩৬ হাজার ৯৮৮টি পদ সৃষ্টির মাধ্যমে নিয়োগ দেয় সরকার। সংশ্লিষ্টদের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়। এ অবস্থায় রাজস্ব খাতে স্থানান্তর চেয়ে সংশ্লিষ্টরা রিট আবেদন করেন।

প্রাথমিকের দফতরিদের চাকরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তর করতে রুল

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, ১১:০০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

দেশের বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী পদে অস্থায়ী ভিত্তিতে কর্মরত ৬১৮ জনের চাকরি কেন রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।
 
সোমবার বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ পৃথক দুটি রিট আবেদনের ওপর প্রাথমিক শুনানি শেষে এ রুল জারি করেন। 

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।
 
দেশের বিভিন্ন এলাকার ৬১৮ জন দফতরি কাম প্রহরীর করা রিট আবেদনে এ রুল জারি করা হয়। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও অ্যাডভোকটে নাসিরউদ্দিন খান সম্রাট। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আল আমীন সরকার।

এর আগে গত বছরের ১৪ ডিসেম্বর একই আদালত ১৮৫ জনের বিষয়ে রুল জারি করেছিলেন।
 
সরকার ২০১২ সালে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফতরি কাম প্রহরী নিয়োগের জন্য নীতিমালা তৈরি করে। এরপর সারা দেশে ৩৬ হাজার ৯৮৮টি পদ সৃষ্টির মাধ্যমে নিয়োগ দেয় সরকার। সংশ্লিষ্টদের অস্থায়ী ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়। এ অবস্থায় রাজস্ব খাতে স্থানান্তর চেয়ে সংশ্লিষ্টরা রিট আবেদন করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন