সরকারি পুকুর দখল করে যুবলীগ নেতার মাছ চাষ
jugantor
সরকারি পুকুর দখল করে যুবলীগ নেতার মাছ চাষ

  বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি  

২২ জুলাই ২০২০, ২০:২৬:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ধুলিয়া ইউনিয়নে ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে সরকারি পুকুর অবৈধভাবে দখল করে মাছ চাষ করছেন স্থানীয় এক যুবলীগ নেতা।
 
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ধুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস সংলগ্ন দুটি খাস পুকুর কোনোরকম অনুমোদন বা লিজ না নিয়েই ১০ বছরের বেশি সময় ধরে মাছ চাষ করে আসছেন ধুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনিসুর রহমান জুয়েল।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, জুয়েল খলিফা দলীয় প্রভাব খাটিয়ে বছরের পর বছর অবৈধভাবে সরকারি পুকুর দখল করে মাছ চাষ করছেন। তিনি সরকারি পুকুরে অবৈধভাবে মাছ চাষ করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। ফলে সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে। 

এ বিষয়ে যুবলীগ নেতা আনিসুর রহমান জুয়েল বলেন, পুকুর দুটি পরিত্যক্ত ছিল, তাই আমি মাছ চাষ করছি। সরকারের প্রয়োজন হলে আর মাছ চাষ করব না। 

এ বিষয়ে ধুলিয়া ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। 

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিনুর রহমান বালি বলেন, সরকারি যে কোনো পুকুর সাধারণ মানুষ গোসলসহ থালা-বাসন ধোয়ার কাজে ব্যবহার করতে পারবে। লিজ ব্যতীত মাছ চাষ করতে পারবে না। যদি কেউ দখল করে মাছ চাষ করে থাকে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

সরকারি পুকুর দখল করে যুবলীগ নেতার মাছ চাষ

 বাউফল (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি 
২২ জুলাই ২০২০, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার ধুলিয়া ইউনিয়নে ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে সরকারি পুকুর অবৈধভাবে দখল করে মাছ চাষ করছেন স্থানীয় এক যুবলীগ নেতা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ধুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ও ইউনিয়ন ভূমি অফিস সংলগ্ন দুটি খাস পুকুর কোনোরকম অনুমোদন বা লিজ না নিয়েই ১০ বছরের বেশি সময় ধরে মাছ চাষ করে আসছেন ধুলিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আনিসুর রহমান জুয়েল।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে স্থানীয় একাধিক ব্যক্তি জানান, জুয়েল খলিফা দলীয় প্রভাব খাটিয়ে বছরের পর বছর অবৈধভাবে সরকারি পুকুর দখল করে মাছ চাষ করছেন। তিনি সরকারি পুকুরে অবৈধভাবে মাছ চাষ করে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। ফলে সরকার রাজস্ব হারাচ্ছে।

এ বিষয়ে যুবলীগ নেতা আনিসুর রহমান জুয়েল বলেন, পুকুর দুটি পরিত্যক্ত ছিল, তাই আমি মাছ চাষ করছি। সরকারের প্রয়োজন হলে আর মাছ চাষ করব না।

এ বিষয়ে ধুলিয়া ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আসিনুর রহমান বালি বলেন, সরকারি যে কোনো পুকুর সাধারণ মানুষ গোসলসহ থালা-বাসন ধোয়ার কাজে ব্যবহার করতে পারবে। লিজ ব্যতীত মাছ চাষ করতে পারবে না। যদি কেউ দখল করে মাছ চাষ করে থাকে তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন