কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি এখন ডোবা
jugantor
কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি এখন ডোবা

  কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি  

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৮:২৮:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুস্টিয়া

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি সারা বছর পানিতে নিমজ্জিত থাকে। ফলে একদিকে ব্যাহত হচ্ছে খেলাধুলা, অন্যদিকে সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচি পালন এবং বুজরুক দুর্গাপুর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের শারীরিক কসরত নিয়ে শিক্ষকরা পড়েছেন মহাসংকটে।

এলাকার একাধিক বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি জানান, উপজেলা পরিষদের মাঠটি ছিল এই এলাকার একমাত্র বিনোদনের জায়গা। উঠতি বয়সী ছেলে ও যুবকরা এই মাঠে ফুটবল, ক্রিকেট খেলতো এবং বিভিন্ন ধরনের খেলার প্রতিযোগিতা হতো। কিন্তু বেশ কয়েকবছর ধরে মাঠটিতে প্রায় সারাবছর পানি থাকার কারণে এলাকার ছেলেরা খেলাধুলা করতে পারে না। এছাড়া ঈদের নামাজ এই মাঠটিতে অনুষ্ঠিত হতো। কিন্তু বেশ কয়েকবছর যাবত সেটা আর সম্ভব হচ্ছে না।

বুজরুক দুর্গাপুর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি দ্বীন মহম্মদ মন্টু জানান, তাদের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ নেই। উপজেলা পরিষদের এই মাঠেই তাদের বাচ্চাদের পিটি প্যারেড করানো হয়। কিন্তু বর্তমানে প্রায় সারাবছর মাঠটিতে পানি থাকে। তাছাড়া সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচি এই মাঠেই করা হয়। পানি থাকার কারণে খুবই সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া খেলাধুলা না করতে পারায় উঠতি বয়সী অনেকেই নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিবুল ইসলাম খান জানান, মাঠটি সংস্কারের জন্য একাধিকবার ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এখনো সেটা কার্যকর হয়নি। তবে উপজেলা চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্যের মাধ্যমে চেষ্টা করা হচ্ছে দ্রুতগতিতে সংস্কারের জন্য।

কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি এখন ডোবা

 কুমারখালী (কুষ্টিয়া) প্রতিনিধি 
১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:২৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কুস্টিয়া
কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি সারা বছর পানিতে নিমজ্জিত থাকে। যুগান্তর

কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলা পরিষদের খেলার মাঠটি সারা বছর পানিতে নিমজ্জিত থাকে। ফলে একদিকে ব্যাহত হচ্ছে খেলাধুলা, অন্যদিকে সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচি পালন এবং বুজরুক দুর্গাপুর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীদের শারীরিক কসরত নিয়ে শিক্ষকরা পড়েছেন মহাসংকটে।

এলাকার একাধিক বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তি জানান, উপজেলা পরিষদের মাঠটি ছিল এই এলাকার একমাত্র বিনোদনের জায়গা। উঠতি বয়সী ছেলে ও যুবকরা এই মাঠে ফুটবল, ক্রিকেট খেলতো এবং বিভিন্ন ধরনের খেলার প্রতিযোগিতা হতো। কিন্তু বেশ কয়েকবছর ধরে মাঠটিতে প্রায় সারাবছর পানি থাকার কারণে এলাকার ছেলেরা খেলাধুলা করতে পারে না। এছাড়া ঈদের নামাজ এই মাঠটিতে অনুষ্ঠিত হতো। কিন্তু বেশ কয়েকবছর যাবত সেটা আর সম্ভব হচ্ছে না।

বুজরুক দুর্গাপুর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি দ্বীন মহম্মদ মন্টু জানান, তাদের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠ নেই। উপজেলা পরিষদের এই মাঠেই তাদের বাচ্চাদের পিটি প্যারেড করানো হয়। কিন্তু বর্তমানে প্রায় সারাবছর মাঠটিতে পানি থাকে। তাছাড়া সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচি এই মাঠেই করা হয়। পানি থাকার কারণে খুবই সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া খেলাধুলা না করতে পারায় উঠতি বয়সী অনেকেই নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজিবুল ইসলাম খান জানান, মাঠটি সংস্কারের জন্য একাধিকবার ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। কিন্তু এখনো সেটা কার্যকর হয়নি। তবে উপজেলা চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্যের মাধ্যমে চেষ্টা করা হচ্ছে দ্রুতগতিতে সংস্কারের জন্য।
 

 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন