পাকিস্তানে সিরিজ হার কীভাবে দেখছেন মাহমুদউল্লাহ?
jugantor
পাকিস্তানে সিরিজ হার কীভাবে দেখছেন মাহমুদউল্লাহ?

  স্পোর্টস ডেস্ক  

২৯ জানুয়ারি ২০২০, ১০:২৬:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের কাছে ২-০ ব্যবধানে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত না হলে হয়তো টাইগারদের কপালে জুটত হোয়াইটওয়াশের লজ্জা। পুরো সিরিজে দলের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। তবে নিজের দলকে এর চেয়ে ভালো বলছেন লাল-সবুজ জার্সিধারীদের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

সোমবার লাহোরে পাকিস্তান-বাংলাদেশের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। প্রথম দুই ম্যাচে জয় পায় পাকিস্তান। ফলে ২-০ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারে বাংলাদেশ। বৃষ্টিতে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর পুরস্কার বিতরণী শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন পাকিস্তানে প্রথম দফা সফরের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

তিনি বলেন, পাকিস্তান ১ নম্বর দল, আমরা ৯ নম্বর। কিন্তু আমরা আরও ভালো পারফর্ম করতে চেয়েছি। যেটি আমরা করতে পারিনি। আমাদের সম্ভাবনা ছিল, প্রতিভা ছিল। কিন্তু প্রয়োগ করতে পারিনি। তারা আমাদের থেকে ভালো করেছে। নিজেদের পারফরম্যান্সে আমি খুব হতাশ। আমরা আসলে এর চেয়ে ভালো দল।

টাইগার দলপতি বলেন, পাকিস্তানকে কৃতিত্ব দিতে হবে। প্রথম ম্যাচে আমরা কিছুটা লড়াই করেছিলাম। পরের ম্যাচে আমরা লড়াই করতে পারিনি। তারা সহজেই জিতেছে। এখন আমাদের সবাইকে আলোচনায় বসতে হবে। ভাবতে হবে, কোথায় উন্নতি করা দরকার। এ একটা ফরম্যাট যেখানে আমাদের অনেক উন্নতির জায়গা আছে। আমাদের দলটা তরুণ। তাদের নিয়ে কাজ করতে হবে। আমাদের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ ও সময় দরকার। আশা করছি, ভবিষ্যতে এ তরুণরা দারুণ খেলবে।

সিরিজে প্রথম ম্যাচ ৫ উইকেটে এবং দ্বিতীয়টি ৯ উইকেটে হারে বাংলাদেশ। এর পরও ব্যাট হাতে সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম ইকবাল। ২ ইনিংসে ১ হাফসেঞ্চুরিতে ১০৪ রান করেন তিনি। প্রথম ম্যাচে ৩৪ বলে ৩৯ রান করেন দেশসেরা ওপেনার। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে আরও বড় ইনিংস খেলেন তিনি। ৫৩ বলে ৬৫ রান করেন এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

তাই হেরে যাওয়া সিরিজ থেকে তামিমের ব্যাটিংকে প্রাপ্তি হিসেবে দেখছেন মাহমুদউল্লাহ। তিনি বলেন, এ সিরিজে প্রাপ্তি মনে হয় একটু কম। প্রাপ্তি যদি বলতে হয়, তবে আমি শুধু তামিমের ব্যাটিংকেই বলব। কারণ উইকেটের আচরণ বুঝে সেভাবে ব্যাটিং করেছে সে। তার অভিজ্ঞতা নিয়ে সামনে এগিয়ে এসেছে। কিন্তু পুরো ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে আমরা ভালো করতে পারিনি। যদিও উইকেট ব্যাটিং সহায়ক ছিল না। তবু আমার মনে হয়, এ উইকেটে ভালো করার সামর্থ্য আমাদের ছিল।

ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শুধু তামিমের প্রশংসা করলেও নিজ দলের বোলারদের প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশ কাপ্তান। তিনি বলেন, আমার মনে হয় বোলিং ইউনিটের কথা বলতে গেলে, দলের বোলাররা মোটামুটি ভালোই করেছে। প্রথম ম্যাচে বোলাররা বেশ ভালো বোলিং করেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা ব্যাটিংয়ে বড় কিছু করতে পারিনি। তাই বোলারদেরও তেমন কিছু করার ছিল না।

পাকিস্তানে সিরিজ হার কীভাবে দেখছেন মাহমুদউল্লাহ?

 স্পোর্টস ডেস্ক 
২৯ জানুয়ারি ২০২০, ১০:২৬ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাকিস্তানের কাছে ২-০ ব্যবধানে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি বৃষ্টিতে পরিত্যক্ত না হলে হয়তো টাইগারদের কপালে জুটত হোয়াইটওয়াশের লজ্জা। পুরো সিরিজে দলের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। তবে নিজের দলকে এর চেয়ে ভালো বলছেন লাল-সবুজ জার্সিধারীদের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ।

সোমবার লাহোরে পাকিস্তান-বাংলাদেশের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়। প্রথম দুই ম্যাচে জয় পায় পাকিস্তান। ফলে ২-০ ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারে বাংলাদেশ। বৃষ্টিতে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর পুরস্কার বিতরণী শেষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন পাকিস্তানে প্রথম দফা সফরের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ।

তিনি বলেন, পাকিস্তান ১ নম্বর দল, আমরা ৯ নম্বর। কিন্তু আমরা আরও ভালো পারফর্ম করতে চেয়েছি। যেটি আমরা করতে পারিনি। আমাদের সম্ভাবনা ছিল, প্রতিভা ছিল। কিন্তু প্রয়োগ করতে পারিনি। তারা আমাদের থেকে ভালো করেছে। নিজেদের পারফরম্যান্সে আমি খুব হতাশ। আমরা আসলে এর চেয়ে ভালো দল।

টাইগার দলপতি বলেন, পাকিস্তানকে কৃতিত্ব দিতে হবে। প্রথম ম্যাচে আমরা কিছুটা লড়াই করেছিলাম। পরের ম্যাচে আমরা লড়াই করতে পারিনি। তারা সহজেই জিতেছে। এখন আমাদের সবাইকে আলোচনায় বসতে হবে। ভাবতে হবে, কোথায় উন্নতি করা দরকার। এ একটা ফরম্যাট যেখানে আমাদের অনেক উন্নতির জায়গা আছে। আমাদের দলটা তরুণ। তাদের নিয়ে কাজ করতে হবে। আমাদের অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য পর্যাপ্ত সুযোগ ও সময় দরকার। আশা করছি, ভবিষ্যতে এ তরুণরা দারুণ খেলবে।

সিরিজে প্রথম ম্যাচ ৫ উইকেটে এবং দ্বিতীয়টি ৯ উইকেটে হারে বাংলাদেশ। এর পরও ব্যাট হাতে সিরিজের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম ইকবাল। ২ ইনিংসে ১ হাফসেঞ্চুরিতে ১০৪ রান করেন তিনি। প্রথম ম্যাচে ৩৪ বলে ৩৯ রান করেন দেশসেরা ওপেনার। দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে আরও বড় ইনিংস খেলেন তিনি। ৫৩ বলে ৬৫ রান করেন এ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

তাই হেরে যাওয়া সিরিজ থেকে তামিমের ব্যাটিংকে প্রাপ্তি হিসেবে দেখছেন মাহমুদউল্লাহ। তিনি বলেন, এ সিরিজে প্রাপ্তি মনে হয় একটু কম। প্রাপ্তি যদি বলতে হয়, তবে আমি শুধু তামিমের ব্যাটিংকেই বলব। কারণ উইকেটের আচরণ বুঝে সেভাবে ব্যাটিং করেছে সে। তার অভিজ্ঞতা নিয়ে সামনে এগিয়ে এসেছে। কিন্তু পুরো ব্যাটিং ইউনিট হিসেবে আমরা ভালো করতে পারিনি। যদিও উইকেট ব্যাটিং সহায়ক ছিল না। তবু আমার মনে হয়, এ উইকেটে ভালো করার সামর্থ্য আমাদের ছিল।

ব্যাটসম্যানদের মধ্যে শুধু তামিমের প্রশংসা করলেও নিজ দলের বোলারদের প্রশংসা করেছেন বাংলাদেশ কাপ্তান। তিনি বলেন, আমার মনে হয় বোলিং ইউনিটের কথা বলতে গেলে, দলের বোলাররা মোটামুটি ভালোই করেছে। প্রথম ম্যাচে বোলাররা বেশ ভালো বোলিং করেছিল। দ্বিতীয় ম্যাচে আমরা ব্যাটিংয়ে বড় কিছু করতে পারিনি। তাই বোলারদেরও তেমন কিছু করার ছিল না।

 

ঘটনাপ্রবাহ : বাংলাদেশের পাকিস্তান সফর-২০২০