দোয়ারাবাজারে ইউনিয়ন অফিসে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কার্যক্রম
jugantor
দোয়ারাবাজারে ইউনিয়ন অফিসে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কার্যক্রম

  তাজুল ইসলাম, দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) থেকে  

২৮ আগস্ট ২০২০, ১৭:২৯:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

দেয়ারাবাজার

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে ইউপি ভবনে চলছে সমাজসেবা অফিসের কার্যক্রম।ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ও উপজেলা পরিষদ ভবন পৃথক হলেও দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে যান উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে আগত সেবাগ্রহিতারা।

সেবাগ্রহিতা ছাড়াও এখানে সাধারণ মানুষের বাড়তি বিড়ম্বনা আছে প্রতিনিয়তই। কখনও কম্পিউটার অপারেটরের দোকান, কখনও বা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কার্যালয় আবার কখনও বা ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট মনে করে প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকার মানুষ নানান সমস্যা নিয়ে দেদার ঢুকে পড়ছেন উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের কার্যালয়ে। এতে অফিসে কর্মরত লোকজনসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা সাধারণ মানুষও বারবার বিড়ম্বনা আর বিরক্তির সম্মুখীন হচ্ছেন। অনেকে এক অফিসের কাজে এসে অন্য অফিসে ঢুকে পড়ে রীতিমতো বিব্রতবোধ করছেন।

দোয়ারাবাজার উপজেলা প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ তিন যুগ পেরিয়ে গেলেও আলোর মুখ দেখেনি উপজেলা সমাজসেবা অফিস। বিভিন্ন সেক্টরের নিজস্ব কার্যলয় থাকলেও ওই অফিসের নিজস্ব কোনো কার্যালয় নেই। ওই সুবাদেকখনও সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন পুরাতন পরিত্যক্ত জেলখানায় আবার কখনও বা ইউনিয়ন পরিষদের ভবনের ওপর নির্ভর করে জোড়াতালি দিয়ে কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের। এতে অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে।

জানা যায়, সমাজসেবা অফিসের স্থায়ী কার্যালয় নির্মাণের বিষয়ে উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছে। শুধু নিজস্ব কার্যালয়ের সংকটই নয়, এছাড়া আরও নানান সমস্যা ও সংকটে জর্জরিত উপজেলা সমাজসেবা অফিস। উপজেলার নয়টি ইউনিয়নে মাত্র ৩ জন সমাজকর্মী দিয়ে চলছে কার্যক্রম। এদের মধ্যে দুজনই প্রবীণ। পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় কাজের বাড়তি চাপ মোকাবেলা করতে হচ্ছে।

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম প্রতিবেদককে জানান, নিজস্ব অফিস থাকলে নির্বিঘ্নে কাজ করা যেত। নিজস্ব কার্যালয় না থাকায় আপাতত ইউনিয়ন পরিষদের ভবন ভাড়া নিয়ে কাজ করছি। এখানে প্রতিদিন নানান ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে ভবন সংকটের বিষয়টি অবহিত করেছি।

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা বলেন, উপজেলা পরিষদ ভবনে পর্যাপ্ত কক্ষ না থাকায় অন্যত্র কক্ষ ভাড়ায় পরিচালিত হচ্ছে বিভিন্ন দফতরের কার্যক্রম। আগামীতে নতুন ভবন নির্মাণ হলে সমাজসেবা অফিসের নিজস্ব কার্যালয় দেয়া হবে।

দোয়ারাবাজারে ইউনিয়ন অফিসে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের কার্যক্রম

 তাজুল ইসলাম, দোয়ারাবাজার (সুনামগঞ্জ) থেকে 
২৮ আগস্ট ২০২০, ০৫:২৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
দেয়ারাবাজার
ইউনিয়ন পরিষদ ভবন

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে ইউপি ভবনে চলছে সমাজসেবা অফিসের কার্যক্রম।ইউনিয়ন পরিষদ ভবন ও উপজেলা পরিষদ ভবন পৃথক হলেও দ্বিধাদ্বন্দ্বে পড়ে যান উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে আগত সেবাগ্রহিতারা।

 

সেবাগ্রহিতা ছাড়াও এখানে সাধারণ মানুষের বাড়তি বিড়ম্বনা আছে প্রতিনিয়তই। কখনও কম্পিউটার অপারেটরের দোকান, কখনও বা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কার্যালয় আবার কখনও বা ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট মনে করে প্রতিদিনই বিভিন্ন এলাকার মানুষ নানান সমস্যা নিয়ে দেদার ঢুকে পড়ছেন উপজেলা সমাজসেবা অফিসারের কার্যালয়ে। এতে অফিসে কর্মরত লোকজনসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা সাধারণ মানুষও বারবার বিড়ম্বনা আর বিরক্তির সম্মুখীন হচ্ছেন। অনেকে এক অফিসের কাজে এসে অন্য অফিসে ঢুকে পড়ে রীতিমতো বিব্রতবোধ করছেন। 

 

দোয়ারাবাজার উপজেলা প্রতিষ্ঠার দীর্ঘ তিন যুগ পেরিয়ে গেলেও আলোর মুখ দেখেনি উপজেলা সমাজসেবা অফিস। বিভিন্ন সেক্টরের নিজস্ব কার্যলয় থাকলেও ওই অফিসের নিজস্ব কোনো কার্যালয় নেই। ওই সুবাদে কখনও সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন পুরাতন পরিত্যক্ত জেলখানায় আবার কখনও বা ইউনিয়ন পরিষদের ভবনের ওপর নির্ভর করে জোড়াতালি দিয়ে কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে উপজেলা সমাজসেবা অফিসের। এতে অফিসের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে।

 

জানা যায়, সমাজসেবা অফিসের স্থায়ী কার্যালয় নির্মাণের বিষয়ে উপজেলার মাসিক সমন্বয় সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে অবহিত করা হয়েছে। শুধু নিজস্ব কার্যালয়ের সংকটই নয়, এছাড়া আরও নানান সমস্যা ও সংকটে জর্জরিত উপজেলা সমাজসেবা অফিস। উপজেলার নয়টি ইউনিয়নে মাত্র ৩ জন সমাজকর্মী দিয়ে চলছে কার্যক্রম। এদের মধ্যে দুজনই প্রবীণ। পর্যাপ্ত জনবল না থাকায় কাজের বাড়তি চাপ মোকাবেলা করতে হচ্ছে। 

 

উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম প্রতিবেদককে জানান, নিজস্ব অফিস থাকলে নির্বিঘ্নে কাজ করা যেত। নিজস্ব কার্যালয় না থাকায় আপাতত ইউনিয়ন পরিষদের ভবন ভাড়া নিয়ে কাজ করছি। এখানে প্রতিদিন নানান ঝামেলা পোহাতে হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে ভবন সংকটের বিষয়টি অবহিত করেছি।

 

জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোনিয়া সুলতানা বলেন, উপজেলা পরিষদ ভবনে পর্যাপ্ত কক্ষ না থাকায় অন্যত্র কক্ষ ভাড়ায় পরিচালিত হচ্ছে বিভিন্ন দফতরের কার্যক্রম। আগামীতে নতুন ভবন নির্মাণ হলে সমাজসেবা অফিসের নিজস্ব কার্যালয় দেয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন